Bajaj CT100 , bajaj Platina, hero HF Dawn,hero Splendor bikes
Jaynata Bike
জয়ন্ত মণ্ডল

গ্রামের মেঠো রাস্তা মানে কী?

মাঠের রাস্তা, মাটির রাস্তা না কি কাঁচা রাস্তা?

না, এ সবেও ঠিকঠাক বোঝা যাচ্ছে না। সেই যে রাস্তা, যার এখানে-ওখানে ছড়িয়ে রয়েছে অগুন্তি খানা-খন্দ। নইতো বছরের বিশেষ মরশুমে তার কোনো অস্তিত্বই থাকে না। কোথাও মাটি, কোথাও অপর্যাপ্ত মোরাম আবার কোথাও দাঁত উঁচু করা ইটের বাহারি উপস্থিতি। এ রকম কোনো রাস্তার অবস্থাকে দুর্ভাগ্যজনক আখ্যা দিলেও কম বলা হয়।

গ্রামের রাস্তা সংস্কারে কেন্দ্রীয় বরাদ্দ এবং তার যথাযথ ব্যবহার নিয়ে অভিযোগের অন্ত নেই। সমীক্ষা বলছে, ভারতের মোট গ্রামের প্রায় ৪০ শতাংশ অঞ্চলে এখনও বাঁধানো রাস্তা নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। তবুও গত ডিসেম্বর মাসে গ্রামীণ এলাকায় মোটর বাইক বিক্রির পরিসংখ্যান দেখে চক্ষু চড়কগাছ হওয়ার শামিল। বিভিন্ন বাইক নির্মাতা সংস্থাগুলির দেওয়া তথ্য সম্মিলিত করে দেখা গিয়েছে, ৪৫ হাজার টাকার মধ্যে ১০০ সিসির বাইকের বিক্রি ওই মাসে প্রায় ১৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

অথচ আশ্চর্য জনক ভাবে, কিছু দিন আগেই ১০০ সিসির বাইকের বিক্রি কমে যাওয়ার দরুন নির্মাতা সংস্থাগুলি ধীরে ধীরে এগুলির উৎপাদন কমানোর দিকে হাঁটা শুরু করেছিল। বর্তমান বাজারে উচ্চ ক্ষমতার ইঞ্জিন আর রকমারি আকর্ষণীয় ফিচারের দিকে দৃষ্টি ঘুরে যাওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই বিক্রি কমছিল কম দামি বাইকের। কিন্তু সেই ছবিও একশো আশি ডিগ্রি ঘুরে দাঁড়াল। দেখা গিয়েছে, বাজারে বিক্রি হওয়া মোট বাইকের ৭৫ শতাংশের ক্রেতার বাস গ্রামেই। কারণ, বাইক কেনার সময় মাথায় থাকছে না রাস্তার বেহাল দশার কথা। সব থেকে খারাপ রাস্তায় এক মাত্র কাজের এবং পাশাপাশি শখ মেটানোর মাধ্যম হয়ে উঠতে পারে এই বাইক-ই। এমন সোজা সাপটা চিন্তার প্রতিফলনই দেখা যাচ্ছে বাজারের গতিতে।

এ ছাড়া রয়েছে ১০০সিসির বাইকের মাইলেজ। সচরাচর দেখা যায় এ ধরনের বাইকের মাইলেজ ৭০-৮০ কিমি প্রতি লিটারের কাছে ঘোরাফেরা করে।

উল্লেখ্য, সব থেকে বেশি বিক্রি হওয়া বাইকের মধ্যে রয়েছে বাজাজের সিটি ১০০, প্লাটিনা এবং হিরোর এইচএফ ডন ও স্প্লেন্ডর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here