Bike and Scooty of Bajaj And Suzuki
এখনও পুরোদমে মজুত সেই আবেগ।

ওয়বেডেস্ক: নয়ের দশকের সেই বি়জ্ঞাপন। রাস্তার ধারে দাঁড় করানো আছে একটি মোটর বাইক। এক অচেনা ব্যক্তি সেটির কাছে এলেন। এলেন বাইকের মালিকও। যিনি আবার ইংরাজি বোঝেন না। মালিকের কাছে অচেনা ব্যক্তি জানতে চাইলেন, ওই বাইকের পারফরমেন্স, জ্বালানির সার্ভিস ইত্যাদি। মালিক সব প্রশ্নের উত্তরেই ইংরাজিতে একটি কথাই বললেন-নো প্রবলেম। এমনকী যখন অচেনা ব্যক্তি তাঁর কাছ থেকে বাইকটি চালানোর অনুমতি চাইলেন তখনও -নো প্রবলেম।

মাত্র দুই স্ট্রোকের ওই সুজুকি সামুরাই যে কতটা মসূণ ভাবে এগোয়, সেটা বোঝাতেই ওই বিজ্ঞাপন। যা পরে শুধু বাইক নয়, ঢুকে পড়ে সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক কথাবার্তাতেও। নয়ের দশকে সুজুকির এই বাইকের বিক্রিও ছিল চোখে পড়ার মতোই।

গত শতাব্দীর গোটা সাত-আটের দশকে স্কুটারের জগতে অতিপরিচিত বাজাজ সুপার, বাজাজ চেতক বা বাজাজ কাব এখন এক কথায় অতীত। বাজাজের স্লোগান হামারা বাজাজ কিন্তু এখন আরও জোরদার। বাজাজ জাপানের কাওয়াসাকির সঙ্গে জোট বেঁধে নিয়ে এল দুই বক্সার, ক্যালিবারের মতো বাইক। সে সবও এখন বাজারে মেলে না। কিন্তু বাজার ছাড়া ভারতের বাইক বাজার এক কদমও এগোয় না এখন। বিশেষ করে বাজাজের পালসার তো পুরনো-নতুন সব প্রজন্মের কাছেই সমান জনপ্রিয়।

পুরনো দিনের সেই বাইক-স্কুটারগুলো না থাকলেও হামারা বাজাজ বিজ্ঞাপনী প্রচারে সমান আবেগ চাগিয়ে তোলে এ দেশের বাইকপ্রেমীদের। কারও কারও ব্যক্তিগত সংগ্রহে আছে ঠিকই, সংস্থাগুলি বন্ধ করে দিয়েছে এগুলির উৎপাদন। সম্প্রতি শোনা যাচ্ছে, বাজাজ ফের পুরনো দিনের সেই সব আবেগঘন স্কুটারের মডেল ফিরিয়ে নিয়ে আসার কথাও ভাবছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন