ওয়েবডেস্ক:  তখনও শুরু হয়নি আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা। সবে তার প্রথম সাংবাদিক বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে মাত্র।

সেই বৈঠকেই অন্তরঙ্গ এক সাক্ষাৎকারে কলকাতায় ফরাসি কনসাল দ্যামিয়েন সইদ জানিয়েছিলেন ভারতীয় ভাষায় অনূদিত ফরাসি সাহিত্য সম্পর্কে তাঁর দেশের ভাবনা-চিন্তা এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা। তিনি যে বৃথা প্রতিশ্রুতি দেন না, তা সম্প্রতি প্রমাণিত হয়ে গেল শহরে বিংশ শতাব্দীর নবরূপায়ণে।

‘বিংশ শতাব্দী’, এই শহরের মনস্ক পাঠক যাঁরা, তাঁদের কাছে অনেক দিন ধরেই এক সুপরিচিত নাম। পার্ক স্ট্রিটের এই বই-বিপণি কম দিন হল না পাঠকদের হাতে তুলে দিচ্ছে বিশেষ করে ফরাসি সাহিত্যের রস এবং রসদ।

তবে এ-ও সত্য, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রয়োজন মতো বদলে নিতে হয় নিজেকে। এই কথা যেমন মানুষের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, তেমনই প্রতিষ্ঠানের পক্ষেও বড়ো কম সত্য নয়। তা ছাড়া, নতুন যুগের চাহিদার কথা মাথায় রেখে মাননীয় সইদ বিশেষ করে জোর দিয়েছিলেন ডিজিটাল প্রস্তুতির দিকে।

bingsha shatabdi

সেই সব কিছু অঙ্গে নিয়েই এ বার নতুন সাজে ধরা দিল ‘বিংশ শতাব্দী’। যার উদ্বোধনে ফরাসি কনসাল তো উপস্থিত ছিলেনই! সঙ্গে শহর পেল নিকোলাস ইদিয়েরকেও, ইন্দো-ভারতীয় সাহিত্যিক প্রতিষ্ঠানের সেই কর্ণধার, যিনি দীর্ঘ দিন ধরেই অক্লান্ত পরিশ্রমে রক্ষণাবেক্ষণ করে চলেছেন দুই দেশের সাহিত্যিক সেতুটিকে। এ ছাড়া সে দিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শহরের ফরাসি ভাষা শিক্ষার প্রতিষ্ঠান আলিয়াঁজ ফ্রাঁসেজ দু বেঙ্গল-এর পরিচালক ফ্যাবরাইস প্ল্যানকন।

ভারত-ফ্রান্স মৈত্রীর ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন শহরে বুঁজুর ইন্ডিয়া নামে যে সাংস্কৃতিক উৎসব চলছে, তারই অন্যতম অঙ্গ রূপে সেজে উঠল এই বই-বিপণি। “বিংশ শতাব্দী সাহিত্যিক জগতে ইন্দো-ফরাসি যোগসূত্রের এক বৃহৎ মুহূর্ত। ভারতীয় এবং ফরাসি সাহিত্যের এক বিশাল সম্ভারই যে শুধু এখানে পাঠকদের জন্য উপস্থিত হয়েছে তা-ই নয়, সঙ্গে রয়েছে ফরাসি অনুবাদ সাহিত্যেরও উল্লেখযোগ্য সম্ভার। আমি আনন্দিত যে বুঁজুর ইন্ডিয়ার উদ্যোগে বিংশ শতাব্দীর নবরূপায়ণ হল”, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা জানিয়েছেন ফ্যাবরাইস প্ল্যানকন।

সত্যি বলতে কী, নতুন রূপে সেজে ওঠা ‘বিংশ শতাব্দী’ পাঠকদেরও নন্দিত করবে। এর ছিমছাম অথচ সুরুচিসম্পন্ন অন্দরসাজ, নরম আলোর মৌতাত এক লহমায় তৈরি করে দেবে বই পড়ার আমেজটিকে।

আর তা-ই তো হওয়ার কথাও! ফরাসি সুরা যেমন বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আরও বেশি করে স্বাদু হয়ে ওঠে, সাহিত্যও যে তার ব্যতিক্রম নয়‍!

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন