কলকাতা : বাসে করে প্রেমিক-প্রেমিক যাচ্ছে। একই সিটে পাশাপাশি বসে। কারও সঙ্গে কোনো কথা নেই। হাতে-হাতের আলতো স্পর্শ নেই। দেখে বোঝা যায় দু’জনের মধ্যে কোনো ঝগড়া হয়নি। উভয়ের হাতে ধরা মোবাইল। হোয়াটস অ্যাপের চ্যাট চলছে পরস্পরের সঙ্গে। এ দৃশ্য নতুন নয়, চোখ মেলে তাকালে এ রকম এক গুচ্ছ নির্দশন চোখে পড়বে।

যোগাযোগের মাধ্যম বেড়েছে, কিন্তু তা হয়ে উঠছে প্রযুক্তিনির্ভর। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর ফলে দূরত্ব বাড়ছে মানুষে মানুষে। তাঁদের মতে ‘সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং’ শক্তিশালী হলেও ‘সামাজিক ভাবে বিচ্ছিন্ন’ হচ্ছে মানুষ। ঘনিষ্ট মানুষের সঙ্গে যোগাযোগও হয়ে উঠছে প্রযুক্তিনির্ভর।

এই বিষয়টি নিয়েই মানুষকে সচেতন করতে গত এক বছর ধরে প্রচার চালিয়ে আসছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘শেডিনুক’। এরই প্রচারে সোমবার কলকাতা এসেছিলেন ‘মিস্টার ওয়ার্ল্ড ২০১৬’ রোহিত খান্ডেলওয়াল। এই বিষয়টি নিয়ে কলকাতার একাধিক নামী বেসরকারি স্কুলে প্রচার চালাবে এই সংস্থাটি।

রোহিত নিজেও এই কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে বেশ উচ্ছ্বসিত। প্রযুক্তির যতই অগ্রগতি হোক না কেন শিকড়কে আমাদের  ছুঁয়ে থাকতে হবে, মত তাঁর।

সংস্থাটি বিশেষভাবে সক্ষম শিশুদের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনার জন্যও প্রচার চালায়। এই উপলক্ষে কলামন্দিরে ‘জশ্নে জিন্দেগি’ নামে একটি সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এ দিন।       

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here