inaugural function of international history and heritage exhibition
papiya mitra
পাপিয়া মিত্র

শীতঋতুর সকালে বসন্তের হাওয়ায় সময়টা মন্দ কাটার নয়। আর তা যদি হয় এক আন্তর্জাতিক ইতিহাস উৎসব। বেলা সাড়ে দশটার মধ্যেই মঞ্চে চাঁদের হাট। সাবর্ণ সংগ্রহশালার ১৩তম প্রদর্শনীর শুভ সূচনা হল শুভাকাঙ্ক্ষীদের উপস্থিতিতে।

সাবর্ণ রায়চৌধুরী পরিবার পরিষদ আয়োজিত আন্তর্জাতিক ইতিহাস উৎসব (ইন্টারন্যাশনাল হিস্ট্রি অ্যান্ড হেরিটেজ একজিবিশন) বড়িশার ‘সপ্তর্ষি ভবনে’ রবিবার ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হল। চলবে ৭ ফেব্রুয়ারি রাত ৯টা পর্যন্ত। পড়ুয়াদের সুবিধার্থে সকাল দশটা থেকেই খুলে যাচ্ছে সংগ্রহশালাটি।

আরও পড়ুন: সাবর্ণ সংগ্রহশালায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ১৩তম আন্তর্জাতিক ইতিহাস উৎসব

রবিবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শঙ্খধ্বনির মধ্যে দিয়ে বরণ করে নেওয়া হল অতিথিদের। উপস্থিত ছিলেন শিল্পী সমীর আইচ, ফ্রান্সের লেখিকা ও অধ্যাপক জোসেফাইন, যিনি ভারতে এসেছেন অন্তত ৪৬ বার। ভারতবর্ষ নিয়ে ৩টি বইও লিখেছেন। অতি সম্প্রতি তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গেস্ট লেকচারার হিসাবে যোগ দিয়েছেন। ছিলেন অভিনেতা নীলাদ্রী লাহিড়ী ও কন্যা অভিনেত্রী সম্পূর্ণা লাহিড়ী, পরিষদের চেয়ারম্যান নির্মল রায়চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ ননীগোপাল রায়চৌধুরী প্রমুখ। অতিথিদের উত্তরীয়, টেরাকোটার গণেশ মূর্তি, সাবর্ণবার্তা, এক পিঠে আটচালার ছবি ও অন্য দিকে সংগ্রহশালার ছবি সংবলিত রুপোর মুদ্রা, মিষ্টান্ন, ৬ বালিগঞ্জ প্লেসের খাদ্য উৎসবের সামগ্রী-সহ নানা উপহার দিয়ে সম্মান জানানো হয়। ২৯ বছর ধরে প্রকাশিত হচ্ছে হাতে লেখা পত্রিকা ‘সপ্তর্ষি’। গুণীজনের হাত দিয়ে তা উদ্বোধন হল এই সকালে। এই পত্রিকায় বাংলাদেশকেও যুক্ত করা হয়েছে।

release of 'saptarshi'
‘সপ্তর্ষি’র প্রকাশ।

নগর কলকাতা আবিষ্কারের ঐতিহাসিক মাটিতে দাঁড়িয়ে যে সকালকে অতিথিরা পেলেন, যে ঐতিহ্যমণ্ডিত পরিবারের পাশে থেকে সংগ্রহশালার দ্বারোদ্ঘাটন করলেন, তাতে স্বভাবতই সবাই আপ্লুত। সমীর আইচ বললেন, “কলকাতাকে জানতে হলে এই পরিবারকে জানতে হবে। এমন ঐতিহ্যবাহী পরিবারের কর্মকাণ্ডের পাশে থাকতে পেরে নিজেকে গর্বিত অনুভব করছি।” এখানে ডাকার জন্য ধন্যবাদ জানালেন জোসেফাইন। পুরোনো কলকাতার জন্মের সঙ্গে এই পরিবার যুক্ত জেনে প্রকৃতই তিনি আনন্দিত। খাদ্য উৎসবে যোগ দিয়ে খুব ভালো লেগেছে তাঁর।

নীলাদ্রী লাহিড়ী জানালেন, সাবর্ণ রায়চৌধুরী পরিবার শুধু বাঙালির গর্ব নয়, গোটা ভারতবর্ষের গর্ব। পরিষদের সংগ্রহ ও তার প্রতি ভালোবাসা তাঁকে মুগ্ধ করেছে। এখানে এসে, সব দেখে আজ মনে করছেন সত্যি ইতিহাস এখানে কথা বলছে। সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হল, নবীন প্রজন্মের কাছে এ এক জীবন্ত দলিল, বলে গেলেন নীলাদ্রীবাবু। এই পরিবারের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরে অভিনেত্রী সম্পূর্ণা নিজেকে ভাগ্যবতী বলে জানালেন। গয়না ভালোবাসেন বলে হেরিটেজ গয়নার বাক্স দেখার জন্য উদ্গ্রীব হয়েছেন। এমন একটি পরিবারের মাটিতে দাঁড়িয়ে থাকতে পেরে নিজেদের গর্বিত মনে করেন, এই প্রসঙ্গটি কেউই বাদ দিলেন না বক্তব্য থেকে।

the road to international history and heritage exhibitionনানা অনুষ্ঠানের মধ্যে ৬ ফেব্রুয়ারি গীতিকার ও সুরকার প্রণব রায় দিবস উদযাপিত হবে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাঁকে সম্মান জানানো হবে। এ বারের ‘থিম কান্ট্রি’ থাইল্যান্ড। আছে সেই দেশের নানা সম্ভার। শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তাঁর ব্যবহৃত জিনিসের পাশাপাশি একই ঘরে আছে শতবর্ষ-উত্তীর্ণ সত্য চৌধুরীর নানা রেকর্ড। আছে সাবর্ণ পরিবারের ক্রম পর্যায়ের ইতিহাসের রেখা ও লেখা। প্রবেশদ্বার থেকেই প্রাচীন কলকাতা সহ নানা মন্দিরের ইতিহাস জানিয়ে দেবে আপনি কোথায় চলেছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন