উৎখাত, উচ্ছেদ, বঞ্চনা, বিস্মরণ…

এ-সবের বিরুদ্ধে কথা বলছে সাম্প্রতিক ভারতীয় সাহিত্যের যে অংশ, তাকেই বলা হচ্ছে ‘জনতার সাহিত্য’। বলছেন, ‘জনতার সাহিত্য উৎসব’ বা ‘পিপলস লিটারারি ফেস্টিভ্যাল’-এর সংগঠকেরা। আগামী ২৪ ও ২৫ মার্চ কলকাতায় অনুষ্ঠিত হবে এই উৎসব, ফুলবাগান এলাকার সুকান্ত মঞ্চে। প্রবেশ অবাধ। আয়োজক — বস্তার সলিডারিটি নেটওয়ার্ক, কলকাতা।

উৎসবে আসছেন কারা?

আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিপ্রাপ্ত কবি জাসিন্টা কেরকেট্টা। আদিবাসী বংশোদ্ভুত ঝাড়খণ্ডের এই তরুণী মূলত লেখেন সাদ্রি ভাষায়। তাঁর কবিতায় জনজাতির বঞ্চনার কথা। কাব্যগ্রন্থের নাম ‘আঙ্গোর’; সাদা বাংলায় অঙ্গার।

jacinta-kerketta
জাসিন্টা কেরকেট্টা

‘উন্নয়ন’-এর কোপে জমি-জীবিকা থেকে উৎখাত হন যে সব মানুষ, তাঁদের সংগ্রামের কথা শিশুপাঠ্য গল্পে তুলে ধরেছেন লেখিকা রিনচিন। রংচঙে ছবিওলা সে-সব গল্প আদ্যন্ত রাজনৈতিক। এঁরা আসছেন এই উৎসবে। আসার কথা তরুণ লেখক হাঁসদা শোভেন্দ্র শেখরের। সাহিত্য আকাদেমি যুব পুরস্কারে ভূষিত এই সাঁওতালি সাহিত্যিকের ইংরেজি গল্প সংকলন, ‘দ্য আদিবাসী উইল নট ড্যান্স’। গত বছর তাদের রাজ্যে বইটা নিষিদ্ধ করে ঝাড়খণ্ড সরকার। সরকারি চাকরি থেকে সাসপেন্ড হন শোভেন্দ্র।

rinchin
রিনচিন

তামিল কবি কুট্টি রেবতীর লেখা সিনেমার গান হিট। হালফিল তাঁর গানে সুর দিয়েছেন এ আর রহমান, শ্রীদেবীর শেষ ছবি ‘মম’-এর তামিল সংস্করণে। কিন্তু এ সব নয়, রেবতীর মূল পরিচয় — তিনি নারীবাদী লেখিকা। তাঁর কাব্যগ্রন্থ ‘মুলাইগল’ (স্তন) অতি-বিতর্কিত। কিন্তু হুমকির মুখেও লিখে যান রেবতী। নারীর শরীর ঘিরে যে দমনের রাজনীতি, তা-ই তাঁর বিষয়। তিনি আসছেন উৎসবে।

kutti-revati
কুট্টি রেবতী

আসছেন মহারাষ্ট্রের কবি ছায়া কোরেগাঁওকর। দলিত নারীজীবনের অন্তরঙ্গ সব কথা যাঁর কবিতায় হয়ে ওঠে রাজনৈতিক। এ ছাড়া, আসবেন মুসলমান নারীসমাজের অধিকার নিয়ে আন্দোলনকারী সমাজকর্মী ও লেখিকা হাসিনা খান।

chhaya-koregaonkar
ছায়া কোরেগাঁওকর

আসার কথা কাশ্মীরের তরুণ লেখক শাহনাজ বশিরের। প্রথম উপন্যাস, ‘দ্য হাফ মাদার’-এই যিনি সাড়া জাগিয়েছেন। যে আখ্যানে কাশ্মীরি এক কিশোরকে সন্দেহবশে তুলে নিয়ে যায় ভারতীয় সেনা; আর তাকে খুঁজে ফেরে তার একলা মা।

shahnaz-bashir
শাহনাজ বশির

জনতার সাহিত্য উৎসবে আসছেন আরও অনেকেই। মণিপুরের মেয়ে, কবি হরিপ্রিয়া সইবাম। জাতীয়তাবাদ ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস নিয়ে প্রশ্ন তুলে যিনি ইতিমধ্যেই বিতর্কিত। আসছেন নাগাল্যান্ডের লেখক বিসু রিতা কোর্চা। দলিত প্রশ্নে প্রখ্যাত তেলুগু লেখক কল্যাণ রাও। নেপালি ভাষার কবি রাজা পুনিয়ানি, প্রমুখ। আসছেন, একদা বন্দি, অধুনা রাজনৈতিক বন্দিমুক্তি আন্দোলনের কর্মী, মুম্বইয়ের আইনজীবী ও লেখক অরুণ ফেরেইরা। থাকার কথা অন্ধ্রপ্রদেশের মানবাধিকার কর্মী সাহিত্যিক ওয়রওয়ারা রাওয়ের।

varvara-rao
ওয়রওয়র রাও

আর বাংলা থেকে থাকছেন সাহিত্যিক আফসার আমেদ, কথাকার আনসারউদ্দিন, কবি নির্মল হালদার। সব মিলিয়ে, বসন্তের কলকাতায় এবার গোটা দেশের প্রতিবাদী লেখকদের এক বৃহৎ সম্মেলন।

তথাকথিত ‘উন্নয়ন’-এর সর্বগ্রাসী একপেশে বয়ানের বিরোধিতা করেই পাল্টা এই ‘জনতার সাহিত্য উৎসব’। তাই, কর্পোরেট সাহিত্য উৎসবের মতো তাঁদের কোনও স্পনসর নেই; পুরোটাই জনতার সাহায্য নিয়ে, চাঁদা তুলে – বললেন আয়োজকদের অন্যতম ঝিলাম রায়। আগ্রহীদের কাছে উৎসবে অংশগ্রহণ ও অর্থ সাহায্যের আবেদন জানাচ্ছেন তাঁরা।

যোগাযোগ: 98362 62819/94337 31206

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here