ওয়েবডেস্ক: বিশ্বে প্রথম বার এমন ঘটনা ঘটেছিল ২০০৮ সালে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনায়। থমাস বেটি নামের এক রূপান্তরকামী পুরুষ জন্ম দিয়েছিলেন সন্তানের। এ বার এই বিরলতম ঘটনার সঙ্গে জুড়ে গেল ব্রিটেনের নাম। ২১ বছরের ব্রিটিশ রূপান্তরকামী হেইডেন ক্রস সম্প্রতি জন্ম দিলেন কন্যা সন্তানের। মেয়ে হয়ে জন্মালেও বছর তিনেক আগে নিজের লিঙ্গ পরিবর্তন করেন হেইডেন।

আইনত পুরুষ হলেও রূপান্তরের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়নি এখনও। এর মাঝে গত সেপ্টেম্বরে অন্তঃসত্ত্বা হন হেইডেন। মা হওয়ার ইচ্ছেটা ভেতরে বরাবরই ছিল। তাই লিঙ্গ পরিবর্তন প্রক্রিয়া শুরুর আগে ব্রিটেনের চিকিৎসকদের অনুরোধ করেছিলেন তাঁর ডিম্বাণু যেন সংরক্ষণ করা হয়। চিকিৎসক রাজি না হওয়ায় শেষমেশ শুক্রাণু দাতার দ্বারস্থ হন ক্রস। ফেসবুকের এক গ্রুপের মাধ্যমে যোগাযোগ হয় দাতার সঙ্গে। গর্ভধারণের পর রূপান্তর প্রক্রিয়া স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেন হেইডেন।

জুনের মাঝামাঝি কন্যাসন্তান ট্রিনিটি-র জন্ম দিয়েছেন হেইডেন। নিজেই জানিয়েছেন, সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছে তাঁর মেয়ে। তবে হাসপাতালে কিন্তু বাবা নয়, মেয়ের মা হিসেবেই নথিভুক্ত হয়েছে হেইডেন ক্রসের নাম।

গর্ভধারণের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল, এই প্রশ্নে হেইডেন অকপটে জানিয়েছেন, “মিশ্র অনুভূতি ছিল। অন্তঃসত্ত্বা হওয়া ভীষণ ভাবেই নারীসুলভ অনুভূতি, অথচ আমার শরীর তখন পুরুষালি হতে শুরু করেছিল। কিন্তু সন্তানের জন্ম দিতে পারাটা আমার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমি সব সময় চাইতাম আমার নিজের কোনো সন্তান হোক।”

হেইডেন কিন্তু নিজের ইচ্ছেতেই পুরুষ হয়েছিলেন এবং একই সঙ্গে সন্তানধারণের সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন।  নারীসত্তা আর মাতৃসত্তা কি তবে সম্পূর্ণ ভিন্ন দু’টি বিষয়? আরও এক বার বিতর্ক উসকে দিলেন হেইডেন ক্রস।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here