খবর অনলাইন : জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে বাংলাদেশে ৩ জনকে মেরে ফেলা হয়েছে বলে সে দেশের পুলিশ দাবি করেছে। পাশাপাশি হত্যালীলাও অব্যাহত রয়েছে। মঙ্গলবার অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীদের হাতে খুন হয়েছেন এক পুরোহিত।

নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ-এর (জেএমবি) বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে ঢাকা ও রাজশাহীতে তিন জেএমবি সদস্য নিহত হয়েছে। পুলিশের দাবি, নিহত তিন জন দেশের উত্তরাঞ্চলে কয়েকটি জঙ্গি হামলায় জড়িত ছিল। পুলিশের মিডিয়া বিভাগের উপপরিচালক মাসুদুর রহমান বলেছেন, “ঢাকায় নিহতদের এক জনের নাম তারেক হোসেন মিলু ওরফে ওসমান। তার বাড়ি দিনাজপুরে। এই তারেক হোসেন মিলু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রেজাউল করিম হত্যাকাণ্ড এবং দিনাজপুরের কাহারোলে মন্দিরে হামলায় জড়িত ছিল।” মাসুদুর রহমান আরও জানান, ঢাকায় নিহত অপর জঙ্গির নাম মাহমুদ ওরফে রানা। সে বগুড়ায় শিয়া মসজিদ হামলায় জড়িত ছিল। পুলিশ আরও জানিয়েছে, রাজশাহীতে নিহত জামালুদ্দিনও জেএমবি সদস্য।

ও দিকে মঙ্গলবার আনন্দগোপাল গাঙ্গুলি নামে ৭০ বছরের এক বৃদ্ধ পুরোহিতের মৃতদেহ পশ্চিম ঝিনাইদহ জেলায় তাঁর মন্দিরের কাছে এক ধাবখেতে পাওয়া যায়। ডেপুটি পুলিশ প্রধান গোপীনাথ কাঞ্জিলাল জানান, আনন্দবাবু পুজো করতে এক বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পরে চাষিরা ধানখেতে তাঁর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here