কলকাতা : বেহালাবাসীর আন্তরিক ইচ্ছায় ও উদ্দীপনায় শুরু হয়ে গেল ১৯তম বেহালা বইমেলা। বৈদিক মন্ত্রে উদ্বোধন হল মেলা। এই প্রথম বড়িশা চণ্ডীমেলার মাঠে (সখের বাজার) বইদুনিয়ার দরজা খুলল। পরিচালনায় বেহালা বইমেলা সম্মিলনী।

আচার্য দীনেশ্চন্দ্র সেনের জন্ম সার্ধশতবর্ষ স্মরণে এই বইমেলা উৎসর্গিত। প্রায় ৫০টি স্টলে পূর্ণ নতুন বই থেকে পুরনো বইয়ের সম্ভারে সেজে উঠেছে মেলা। ধর্মপুস্তক কিনতে এসে বিমলাদেবী জানালেন, দূরে যেতে পারি না, স্থানীয় এই মেলায় নিজের পছন্দমতো বই কিনতে ও দেখতে পাচ্ছি। যথাযোগ্য মর্যাদায় স্থান পেয়েছে লিটিল ম্যাগাজিনও। বইমেলায় বৈকালিক সূচি সাজানো হয়েছে নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে। এলাকাবাসী ছাড়াও থাকছেন বিশিষ্ট গুণীজনেরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছিলেন ড. শ্যামলকান্তি চক্রবর্তী (প্রাক্তন অধিকর্তা ভারতীয় জাদুঘর ও জাতীয় গ্রন্থাগার) কলকাতা, সাহিত্যিক ভগীরথ মিশ্র-সহ আরও অনেকে। শ্যামলবাবু বইকে নৌকার সঙ্গে তুলনা করেছেন। বই-বৈঠা বেয়ে বৈতরণী পার হওয়ার কথা জানিয়েছেন। অনুষ্ঠানে উঠে এসেছে শঙ্খ ঘোষের ‘জ্ঞানপীঠ’ পুরস্কারের কথাও। মেলার সম্পাদক সমীর চট্টোপাধ্যায় জানান, বহু প্রতিবন্ধকতার মধ্যে দিয়ে বইমেলার যে আয়োজন করা গিয়েছে এ জন্য কৃতজ্ঞ। শেষে সভাপতি নীলকণ্ঠ ঘোষাল আগামী কয়েক দিনের কর্মসূচি জানিয়েছেন। মেলা চলবে ১ জানুয়ারি পর্যন্ত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here