ছতরপুর (মধ্যপ্রদেশ) : মধ্যপ্রদেশের ছতরপুরে জন্ম নিল এক বিরল শিশুকন্যা। সেই নবজাতিকার ছোট্টো হৃদয়টি অর্থাৎ হার্ট শরীরের বাইরে। এটা একটা অস্বাভাবিক শারীরিক অবস্থা। কিন্তু চিকিৎসাবিজ্ঞানের মতে, এই ঘটনা বিরল তবে অভাবনীয় নয়। খাজুরাহো স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ডাক্তার এস কে গুপ্তা বলেন, ১০ লাখ শিশুর মধ্যে মাত্র আট জনের এই সমস্যা থাকে। চিকিৎসাশাস্ত্রে এর নাম ইকটোপিয়া কর্ডিস। এই বিশেষ সমস্যাটিতে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবেই হৃদয়টি দেহের বাইরে অবস্থান করে। 

ছতরপুরের সিভিল সার্জন ডাক্তার আর এস ত্রিপাঠি বলেন, সাধারণ ভাবে হৃদয়টি হাড় আর চামড়া দিয়ে ঢাকা থাকে। কিন্তু এই ক্ষেত্রে ভ্রূণ অবস্থা থেকে শিশুটির হৃদয় পরিপূর্ণ ভাবে বেড়ে উঠেছে, কিন্তু তার শরীর ঠিক ভাবে পরিণত হয়নি।

আরও পড়ুন : ৪২ হাজার ফুট উঁচুতে জন্ম হল শিশুকন্যা কাদিজুর

শিশুটির বাবা অরবিন্দ পটেল জানান, তিনি খাজুরাহোর একটি মন্দিরে নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করেন। তাঁর স্ত্রী প্রেমকুমারী গত ৫ এপ্রিল খাজুরাহো স্বাস্থ্যকেন্দ্রে শিশুকন্যাটির জন্ম দেন। শিশুটিকে এই অবস্থায় পেয়ে আতান্তরে পড়েন তাঁরা। জানতে পারেন এর চিকিৎসা সম্ভব, তবে তা আকাশছোঁয়া। প্রায় ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা। পটেল বলেন, এত খরচ করার ক্ষমতা তাঁর নেই। ছতরপুরের জেলা কালেকটর রমেশ ভান্ডারি শিশুটির চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় সরকারি সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দেন। 

ছতরপুরের শিশু চিকিৎসক লখন তিওয়ারি জানান, ছতরপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে শিশুটিকে প্রথমে  ছতরপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তার পর সেখান থেকে গ্বালিয়র হয়ে তাকে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস (এইমস) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ছতরপুর থেকে এক জন চিকিৎসককে শিশুটির সঙ্গে পাঠানো হয়েছে। তবে শিশুটির অবস্থা খুব একটা ভালো নয়।  

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here