শ্রীনগর: এশিয়ার দীর্ঘতম সড়ক-টানেলটি রবিবার সর্বসাধারণের জন্য খুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ১০.৮৯ কিলোমিটার দীর্ঘ ওই টানেল জম্মু-শ্রীনগর জাতীয় সড়কে উধমপুর জেলার চেনানির সঙ্গে রম্বন জেলার নাশরিকে যুক্ত করেছে। ফলে ওই দুই জায়গার দূরত্ব ৪১ কিমি থেকে হয়েছে ১০.৯ কিমি। পাশাপাশি জম্মু-শ্রীনগরের মধ্যে যাতায়াতের সময় দু’ ঘণ্টা কমে যাবে।

১২০০ মিটার উঁচুতে তৈরি এই টানেলের বিশেষত্ব হল, সারা বছরই এই টানেল চালু থাকবে। প্রচণ্ড ঠান্ডাতেও পথ বন্ধ হবে না। এই টানেলে ভেন্টিলেশনের অত্যাধুনিক ব্যবস্থা থাকবে, যাতে চালকদের কোনো শারীরিক অসুবিধা না হয়। এ ছাড়াও এই দুই লেনের টানেলে গাড়ির যাতায়াত যাতে নির্বিঘ্ন হয়, তার জন্য নানা রকম ব্যবস্থা রয়েছে। এই টানেল দিয়ে যাওয়ার জন্য মোটরগাড়িকে এক পিঠের জন্য ৫৫ টাকা এবং দু’ পিঠের জন্য ৮৫ টাকা টোল দিতে হবে।

 

তবে এই টানেল উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে প্রধানমন্ত্রীর জম্মু-কাশ্মীর সফরের প্রতিবাদে কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদীরা রবিবার ধর্মঘট ডাকেন। হুরিয়ত কনফারেন্সের দুই নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানি ও মিরওয়াইজ উমর ফারুক এবং জেকেএলএফ-এর চেয়ারম্যান ইয়াসিন মালিক বলেন, “রাস্তা, টানেল ইত্যাদি নির্মাণ ও উন্নয়ন নিয়ে বড়ো বড়ো কথা বলা অর্থহীন। এ সব দিয়ে আমাদের প্রলোভিত করা যাবে না। কাশ্মীর একটা রাজনৈতিক বিষয়। এটা কোনো উন্নয়নগত, পরিচালনাগত, আইন শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সমস্যা নয়। প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আমাদের কোনো ব্যক্তিগত শত্রুতা নেই। তবে এটাই সব চেয়ে আতঙ্কের ও দুঃখের যে কাশ্মীরে যে গণহত্যা চলছে সে দিকে নজর না দিয়ে তিনি হত্যাকারীদেরই পুরস্কৃত করে চলেছেন।”    

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here