বাংলাদেশের সিলেটে বন্যায় প্রাণ গেল ১১ জনের

0
flood in Sylhet
বন্যাক্রান্তদের জন্য ত্রাণ।

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা: উত্তরপূর্ব ভারতের চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টিপাতে ১২২ বছরের রেকর্ড ভেঙে গিয়েছে। সেখানে মাত্র কয়েক দিনে সাড়ে ৪ হাজার মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আর তার জেরে বন্যাক্রান্ত বাংলাদেশের সিলেট বিভাগ।

মেঘালয়ের পাদদেশে বাংলাদেশের উত্তরপূর্ব প্রান্তে অবস্থান সিলেটের বিভাগের। এখানে সুরমা, কুশিয়ারা, সারি, খোয়াই নদী অসম ও মেঘালয়ের সঙ্গে যুক্ত। পাহাড়ি জনপদ মেঘালয়ে ভারী বর্ষণ হলে সেই জল হু হু করে নেমে আসে সিলেটে। জলে টইটুম্বুর হয় নদনদী। অসমের বরাক উপত্যকা মোটামুটি সমতল হলেও সিলেটের চেয়ে কিছুটা উঁচু। ফলে এই অঞ্চলটিতে তিন দিক থেকেই বলা যায় জলের আক্রমণ চলে।

হু হু করে ঢুকছে বন্যার জল।

এ বারে অসমের বরাক উপত্যকা জুড়ে বন্যা দেখা দেয় বাংলাদেশের আগেই। সেখানে অন্যায় মৃত্যুসংখ্যা অর্ধশত ছাড়িয়ে গিয়েছে। ধসে গিয়েছে জাতীয় সড়ক। এর আগে ভারী বর্ষণে সৃষ্ট জলের তোড়ে পাহাড় ধসে কয়েক কিলোমিটার রেলপথ ভেসে যায়। আটকা পড়ে ট্রেন ও যাত্রী। পরে তাদের উদ্ধার করা হয়। সেই বিপর্যয় পুরোপুরি কাটিয়ে ওঠা এখনও সম্ভব হয়নি।

এরই মধ্যে অবিরাম ভারী বর্ষণে বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটে। এরই সঙ্গে যুক্ত হয় বাংলাদেশের সিলেট ও উত্তরজনপদের বিপর্যয়। যেখানে এখন লাখো মানুষ জলবন্দি। প্রশাসনের সঙ্গে বন্যার্ত মানুষকে উদ্ধার করার কাজে যোগ দিয়েছেন সেনা ও নৌবাহিনী। ভারী বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে থাকা মানুষগুলোকে উদ্ধারের জন্য অবিরাম কাজ করে চলেছেন তাঁরা। 

পথেই আশ্রয়।

সিলেটে যখন ১২২ বছরের স্মরণকালে ভয়াবহ বন্যার সৃষ্টি হচ্ছে, তখন পরিস্থিতি বিবেচনা করে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। বন্ধ হয়ে যায় সিলেট বিমানবন্দর ও রেলস্টেশন। সুনামগঞ্জে বন্ধ রয়েছে ব্যাংক লেনদেন। বিচ্ছিন্ন রয়েছে বিদ্যুৎ ও মোবাইল নেটওয়ার্ক। ভয়াবহ বানের জল কেড়ে নিয়েছে ১১ জনের প্রাণ। যাদের মধ্যে সিলেটে ১০ জন এবং কুড়িগ্রামে একজন।

সিলেট ও উত্তরাঞ্চল ভাসছে অথৈ জলে। বানভাসি মানুষের স্বপ্ন ভাসিয়ে নিয়েছে বিধ্বংসী বন্যা। সোমবার বৃষ্টিপাত অনেকটা কমেছে। তাতে বানের জল ক্রমশ কমতে শুরু করেছে। উঁচুস্থানে মানুষ ও গবাদিপশু একই সঙ্গে আশ্রয় নিয়েছে। দুর্ভোগ কতটা হতে পারে তার সঠিক কারো জানা নেই। বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র বলছে, বৃষ্টি থেমে গেলেই বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে। এখনও উত্তরাঞ্চলের কুড়িগ্রাম-সহ বিভিন্ন স্থানের নদনদীর জল হু হু করে বেড়ে চলেছে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা।

আরও পড়তে পারেন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মানিক সাহার জন্য শেখ হাসিনার আম-উপহার

বিশ্ব শরণার্থী দিবস: যুদ্ধ, সহিংসতা ও নিপীড়নে বাড়ছে রাষ্ট্রহীন মানুষের সংখ্যা

রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হওয়ার প্রস্তাবে ‘না’ করে দিলেন গোপালকৃষ্ণ গান্ধী

১৬ পেরোলেই বিয়ে করতে পারবে মুসলিম মেয়েরা, রায় পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাই কোর্টের

গভীর রাতে লোন রিকভারি এজেন্টের ফোন! অভব্য আচারণ! অভিযোগ পেলেই কড়া ব্যবস্থার বার্তা দিল আরবিআই

বাংলা ছেড়ে অন্য এক বাঙালি রাজ্যের হয়েই খেলবেন ঋদ্ধিমান! জল্পনা বাড়ছে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন