Connect with us

বাংলাদেশ

সৌদিতে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দিতে বাংলাদেশকে চাপ

সৌদিতে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা বর্তমানে ৫৪ হাজারের মতো। সৌদিতে রোহিঙ্গাদের যাওয়া প্রায় ৪০ বছর ধরে চলছে।

Published

on

bangladesh foreign minister
বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। ফাইল চিত্র।

ঋদি হক: ঢাকা

রোহিঙ্গারা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে সৌদি আরব (Saudi Arab) গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে বহু রোহিঙ্গা (Rohingya)। সৌদিতে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা বর্তমানে ৫৪ হাজারের মতো। সৌদিতে রোহিঙ্গাদের যাওয়া প্রায় ৪০ বছর ধরে চলছে। এদের অনেককেই সৌদি সরকার সেখানে গ্রহণ করেছে। এখন এই সব রোহিঙ্গার নামে পাসপোর্ট ইস্যু করতে চাপ আসছে বাংলাদেশের (Bangladesh) ওপর। এমন আভাসও মিলছে যে, রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়া না হলে সৌদি আরবে যে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি রয়েছে, তাদের সেখানে রাখার বিষয়টি দেশটির সরকারকে বিবেচনা করতে হবে। তবে সৌদি আরবের এমন অযৌক্তিক দাবিকে আমলে নিচ্ছে না বাংলাদেশ। বুধবার এক সাংবাদিক বৈঠকে এ সব তথ্য জানান বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী (foreign minister) ড. এ কে আবদুল মোমেন (Dr. A K Abdul Momen)। বৈঠকে তিনি বলেন, বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়ে যে সব রোহিঙ্গা সৌদি আরব গিয়েছেন, একমাত্র তাদেরই দায় বাংলাদেশের।

ড. মোমেন জানান, সৌদি আরব নিজেই এ সব রোহিঙ্গাদের নিয়ে গিয়েছে এবং তারা সেখানে ৩০-৪০ বছর অবস্থান করছে। এই সব রোহিঙ্গার সন্তানসন্ততি এবং পরিজনরা সৌদি কালচারে মানুষ হয়েছে। তারা আরবিতে কথা বলে। এ সব রোহিঙ্গাকে পাসপোর্ট না দিলে সেখানে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানোর হুমকিও দেওয়া হচ্ছে।

Loading videos...

ড. মোমেন আরও জানান, ১৯৮০ সালে বা বিভিন্ন সময়ে সৌদি সরকার অনেক রোহিঙ্গাদের নিয়ে গিয়েছে। এখন পর্যন্ত ৫৪ হাজার রোহিঙ্গা সৌদি আরবে রয়েছে। এদের মধ্যে বাংলাদেশের পাসপোর্টধারী রোহিঙ্গাদের দায় বাংলাদেশের। কিন্তু অন্য দেশ থেকে রোহিঙ্গারা সৌদি আরবে গিয়ে থাকলে তার দায় তো বাংলাদেশ নেবে না।

সম্প্রতি সৌদি আরব অভিযোগ করেছে ৪৬২ জন রোহিঙ্গা বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়ে জেলে রয়েছে। তাদের ফেরাতে বলেছে সৌদি। বিদেশমন্ত্রী জানান, সৌদি আরব জানিয়েছে, পাসপোর্ট এবং কোনো রকম কাগজপত্র ছাড়াই ৫৪ হাজার রোহিঙ্গা সৌদি আরবে অবস্থান করছে। এ সব রোহিঙ্গার নামে বাংলাদেশের পাসপোর্ট ইস্যু করতে বলা হচ্ছে।

ড. মোমেন বলেন, “আমরা বলেছি, যারা আগে পাসপোর্ট পেয়েছে এবং তাদের পাসপোর্টের কাগজ যদি থাকে তবে আমরা নতুন পাসপোর্ট ইস্যু করব। কিন্তু তারা যদি আমাদের লোক না হয়, তবে আমরা নেব না।

রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়া না হলে বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানোর মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে কিনা এমন বিষয়ে বিদেশমন্ত্রী বলেন, “জুনিয়র লেভেলে কেউ কেউ বলছে তোমরা যদি এদের না নাও বা পাসপোর্ট ইস্যু না করো তবে তোমাদের যে ২২ লাখ লোক রয়েছে তাদের সম্পর্কে নেতিবাচক অবস্থান নেব।”

ড. মোমেন আরও বলেন, “এ নিয়ে বিদেশসচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি করা হয়েছে। কিন্তু সৌদি আরবের কিছুটা তাগাদা রয়েছে। তারা বলছে, নাগরিকত্বহীন কোনো ব্যক্তি তারা রাখবে না। এই বিষয়টির ব্যাপারে যথা শিগগির ব্যবস্থা নিতে বলেছে সৌদি আরব। আমরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। প্রায়ই তারা এ প্রশ্নটা তুলছে।”

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক মজবুত গাঁথুনির উপরে দাঁড়িয়ে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান

দেশ

ভারতের উপহার ২০ লক্ষ টিকা বুধবার পাচ্ছে বাংলাদেশ

২৫ বা ২৬ জানুয়ারি টিকার প্রথম চালান বাংলাদেশে আসবে। তবে তার আগেই ভারত সরকারের উপহার হিসেবে দেওয়া টিকা মিলবে।

Published

on

corona vaccine

ঋদি হক: ঢাকা

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের চুক্তি অনুযায়ী টিকার সকল আয়োজন সম্পন্ন। ভারত থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার (Oxford-AstraZeneca) টিকা আমদানির জন্য এরই মধ্যে ৬০০ কোটি পরিশোধও করে দিয়েছে বাংলাদেশ। চলতি সপ্তাহেই টিকার (Covid 19 vaccine) প্রথম চালান বাংলাদেশে পৌঁছোনোর কথা রয়েছে। তবে তার আগেই উপহার হিসাবে ভারত সরকারের দেওয়া ২০ লক্ষ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ।

এই টিকা বুধবার পৌঁছোনোর খবর নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। এবং এ ব্যাপারে ভারত সরকারের তরফে যে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে, সে তথ্যও নিশ্চিত করেছেন ডিজি হেলথ। ওই চিঠিতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২০ লক্ষ টিকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।  

Loading videos...

এর আগে সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ, DRU) ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী (Bangladesh Health Minister) জাহিদ মালেক (Jahid Malek) বলেন, ২৫ বা ২৬ জানুয়ারি টিকার প্রথম চালান বাংলাদেশে আসবে। তবে তার আগেই ভারত সরকারের উপহার হিসেবে দেওয়া টিকা মিলবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি। তবে তা ১৮ বছরের নীচে কাউকে দেওয়া হবে না।

এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। মানবদেহে টিকা প্রয়োগের জন্য ৪২ হাজার কর্মীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে। এরই মধ্যে বাংলাদেশে টিকা পাঠানোর প্রক্রিয়ায় হাত লাগিয়েছে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট (Serum Institute)। প্রথম চালানে যে টিকা পাঠানোর কথা রয়েছে, তার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ভারতের সংশ্লিষ্ট দফতরে পাঠানো হয়েছে। বাকি প্রক্রিয়া শেষে ইন্ডিয়া কাস্টমসে যাবে কাগজপত্র।

টিকা আসার এক সপ্তাহের মধ্যেই কাজ শুরু

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, টিকার প্রথম চালান হাতে পেলে তা থেকে বাংলাদেশে রিপোর্টারদের অন্যতম সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সদস্যরা ভ্যাকসিন পাবেন। পর্যায়ক্রমে সকল সাংবাদিককে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি আয়োজিত ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে স্বস্তির বার্তা দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। টিকা আনতে প্রয়োজনে বিশেষ উড়ানের ব্যবস্থা করবে সরকার। দেশে ভ্যাকসিন প্রবেশের এক সপ্তাহের মধ্যেই তার প্রয়োগ কার্যক্রম শুরু করা হবে। এ জন্য ৪২ হাজার কর্মীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ঢাকা জেলায় ৩০০টি চিকিৎসাকেন্দ্রে টিকাদান কেন্দ্র তৈরি করা হবে।

তিনি বলেন, বেসরকারি ভাবেও টিকা আমদানি ও প্রয়োগের অনুমোদনও দেবে সরকার। তার জন্য একটি নীতিমালাও এরই মধ্যে তৈরি করা হয়েছে। টিকার মূল্য নির্ধারণ করবে সরকার। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে এসেছে। নতুন সংক্রমণ ও মৃত্যু কমে যাওয়ার আভাস মিলছে পরিসংখ্যানে।

শেখ হাসিনার প্রশংসায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

দেশে সফল ভাবে করোনা নিয়ন্ত্রণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে চিঠি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের মতো ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচিতেও যে বাংলাদেশ সফল হবে, সে ব্যাপারে আশা ব্যক্ত করে সার্বিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তারা।

করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরুতে দেশে করোনা পরীক্ষার মাত্র একটি ল্যাব ছিল। এখন ২০০টি ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী লকডাউন থাকায় পিপিই-র সংকট ছিল। বর্তমানে বাংলাদেশ পিপিই রফতানি করছে। এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, যাঁরা বিদেশ যাচ্ছেন তাঁদের করোনা টেস্টের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।  প্রচুর মানুষ টেলিমেডিসিনের সুবিধা নিয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, করোনার মধ্যেও স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে উন্নয়ন থেমে নেই। দেশের অন্য সব পাবলিক পরীক্ষা স্থগিত থাকলেও মেডিক্যাল কলেজের সব পরীক্ষা চালু রয়েছে। তিনি আরও জানান, করোনা টিকার প্রথম ধাপে সাংবাদিক, ডাক্তার, নার্স, টেকনোলজিস্ট, পুলিশ, সেনাবাহিনী, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সাধারণের মধ্যে যাঁদের ৫৫ বছর বা তার বেশি বয়স প্রথম ধাপে তাঁদের টিকা দেওয়া হবে।

দ্বিতীয় ধাপের টাকা ছাড়ার প্রক্রিয়াও শুরু

বাংলাদেশ টিকা আমদানির প্রথম ধাপের কাজ সম্পন্ন করেছে। এ বারে টিকার দ্বিতীয় ধাপের টাকা ছাড়ার প্রক্রিয়ায় হাত লাগিয়েছে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদফতর। একই সঙ্গে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর প্রস্তুত রয়েছে টিকা দেশে এসে পৌঁছোনোর  পর সেগুলোর ব্যাচভিত্তিক যাচাই-বাছাই সাপেক্ষে আরেক দফা ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য। ছাড়পত্র দেওয়ার পরই মূলত এই টিকা ব্যবহার করা শুরু হবে। 

জানা গিয়েছে, বাংলাদেশ থেকে প্রয়োজনীয় নথিপত্র সেরামে পৌঁছোনোর পর ভারত সরকারের তরফ থেকেও ইতিবাচক সাড়া পেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর পর থেকেই শুরু হয় প্রস্তুতি। ফলে ২৫ জানুয়ারি বাংলাদেশে টিকা পাঠানোর যে কথা রয়েছে তা আরও এগিয়ে আসারও সম্ভাবনা রয়েছে। ২৫-২৬ জানুয়ারি বড়ো চালান আসার প্রস্তুতিও রয়েছে। সে জন্য নিয়মিত ফ্লাইটের পাশাপাশি বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানা গেছে ওই সূত্র থেকে। 

ডিআরইউর সভাপতি মুরসালিন নোমানীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খানের সঞ্চালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ছাড়াও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন: বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারকে ঘিরে রেলের উন্নয়নযজ্ঞ

Continue Reading

বাংলাদেশ

বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারকে ঘিরে রেলের উন্নয়নযজ্ঞ

কক্সবাজারকে শতভাগ পর্যটনবান্ধব করতে সরকারের তরফে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

Published

on

রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন আইকনিক রেলস্টেশনের শিলান্যাস করেন।

ঋদি হক: ঢাকা

বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্রসৈকতের গর্বিত মালিক বাংলাদেশ। প্রতি বছর বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন ভ্রমণপিপাসু পর্যটক। তাঁরা মুগ্ধ হন এবং কক্সবাজার ও আশপাশের দ্রষ্টব্য স্থানের নিসর্গ উপভোগ করেন। এই কক্সবাজারকে শতভাগ পর্যটনবান্ধব করতে সরকারের তরফে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

আগামী বছর থেকেই চালু হতে যাচ্ছে রেলপরিষেবা। জোরকদমে উন্নয়ন কাজ চলছে কক্সবাজার বিমানবন্দরেরও। রেলপথ চালু হলে ভ্রমণপিপাসুরা তুলনামূলক ভাবে কম খরচে এবং দ্রুত কক্সবাজার পৌঁছোতে পারবেন। কক্সবাজারকে পর্যটনবান্ধব করে তোলার জন্যই সরকার রেলপথ নির্মাণের কাজ হাতে নিয়েছে।

Loading videos...

কক্সবাজারে আইকনিক রেল স্টেশনভবনের শিলান্যাস করে বাংলাদেশের রেলপথ মন্ত্রকের মন্ত্রী মোঃ নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই কক্সবাজার পর্যন্ত রেললাইনের কাজ সম্পন্ন হবে এবং ঢাকা থেকে সরাসরি কক্সবাজার ট্রেন চালু হবে। রেলপথমন্ত্রীর এই নজিরগড়া ঘোষণায় পর্যটক তথা ভ্রমণপিপাসু মানুষের মধ্যে স্বস্তি এসেছে। এ বার অন্তত কোনো প্রকার ঝক্কিঝামেলা ছাড়াই ঢাকা থেকে একঘুমে কক্সবাজার পৌঁছে যাওয়া যাবে। আর ট্রেন থেকে নেমে আড়মোড়া ভেঙে এগিয়ে যেতেই সুবিশাল সমুদ্রসৈকত।

রেলপথমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর থেকেই দেশের নানা প্রান্তের মানুষ এখন থেকেই দিন গোনা শুরু করে দিয়েছেন। তবে বাংলাদেশের মানুষ এখন আর এই সব ঘোষণাযকে স্বপ্ন মনে করেন না। কারণ শেখ হাসিনার হাত ধরে উত্তাল পদ্মায় যখন সেতু গড়ে ওঠেছে, তখন আর বাঙালির আশঙ্কা হাওয়ায় মিলিয়ে গিয়েছে। এখন দৃপ্ত গতিতে সামনে এগিয়ে চলা।

অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন মন্ত্রী-সাংসদরা।

বাংলাদেশের রেলপথমন্ত্রীকে বলা হয়ে থাকে ‘রেলের উন্নয়ন কর্তা’। কারণ, তিনি কোনো অপরাধ দুর্নীতির রেয়াত করেন না। কাজ ছাড়া কোনো তোষামোদকারীকে কাছ ঘেঁষতে দেওয়া তো দূরের কথা ত্রিসীমানার বাইরে পাঠিয়ে দেন। তাঁর সাফ কথা, “তোষামোদ নয়, সঠিক দায়িত্ব পালন করুন। এখন থেকে রেল ২৪ ঘন্টা জেগে আছে এবং জেগে থাকবে। মানুষের কল্যাণে রেলকে এগিয়ে নিতে হবে। এটাই মূলমন্ত্র ধারণ করে কাজ করতে হবে।”

মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বললেন, “প্রকল্পের মেয়াদ ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত ধরা হলেও ছয় মাস হাতে রেখেই ঘোষণা করছি আগামী বছরেই মানুষ ট্রেনে করে কক্সবাজারে পৌঁছোতে পারবেন।” প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবহেলিত রেল ক্ষেত্রকে গুরুত্ব দিয়ে যে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তার উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এর জন্য আলাদা একটি মন্ত্রক করে দিয়েছেন। রেলে এখন অনেক প্রকল্প চলমান রয়েছে। মূলত ২০১১ সালের পর থেকেই রেলকে পুনর্গঠিত করার কাজ শুরু করেছেন শেখ হাসিনা। সরকারের দশটি মেগা প্রকল্পের মধ্যে দু’টি হল বাংলাদেশ রেলের – যার একটি হল দোহাজারি থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত নতুন রেললাইন নির্মাণ প্রকল্প।

প্রকল্প সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে কক্সবাজার থেকে রামু হয়ে মায়ানমারের নিকটবর্তী গুনদুম পর্যন্ত রেলপথ নিয়ে যাওয়া হবে সম্প্রসারিত হবে এবং তা চিন পর্যন্ত সম্প্রসারিত হবে। কক্সবাজার রেললাইন চালু হলে পর্যটনের ব্যাপক প্রসার ঘটবে। দেশের অগ্রগতিতে পর্যটন ক্ষেত্রের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। সে কথা মনে রেখেই এই প্রকল্পটি পরিকল্পনা মাফিক করা হচ্ছে।

২১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে কক্সবাজারে ঝিনুকের আদলে আইকনিক রেলওয়ে স্টেশনভবন নির্মিত হচ্ছে। ৬ তলা বিশিষ্ট এ ভবনে সকল সুবিধা থাকবে। আইকনিক স্টেশনভবনটি হবে আন্তর্জাতিক মানের। সে কথা জানিয়ে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, এখানে দেশি-বিদেশি প্রচুর পর্যটক আসবেন। আগত পর্যটকরা যাতে স্বস্তিবোধ করেন, তার জন্য সকল সুবিধা থাকবে।

সাংসদ জাফর আলম, সাইমুম সরওয়ার কমল, কানিজ ফাতেমা আহমেদ ও নাদিরা ইয়াসমিন জলি এবং রেলপথ মন্ত্রকের সংশ্লিষ্ট স্থায়ী কমিটির সদস্য, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশিদ, রেলপথ মন্ত্রকের সচিব মোহাম্মদ সেলিম রেজা শিলান্যাস অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশে রেলের মহাপরিচালক শামসুজ্জামান।

আরও পড়ুন: বার্ড ফ্লু: ভারতের ডিম, মুরগির বাচ্চা আমদানি নিষিদ্ধ করল বাংলাদেশ

Continue Reading

দেশ

বার্ড ফ্লু: ভারতের ডিম, মুরগির বাচ্চা আমদানি নিষিদ্ধ করল বাংলাদেশ

চোরাপথেও যাতে এ সব প্রাণী দেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে না পারে, সে জন্য সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর প্রশাসনকে সতর্ক করে চিঠিও দেওয়া হয়েছে।

Published

on

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: ভারতের ১০টি রাজ্যে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে অ্যাভিয়েন ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস (বার্ড ফ্লু) ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও ভাইরাসটির সংক্রমণ যাতে ছড়াতে না পারে সেই কারণে ভারতের সব ধরনের হাঁস-মুরগি, ডিম ও বাচ্চা আমদানি অনির্দিষ্ট কালের জন্য নিষিদ্ধ করেছে সে দেশের সরকার। বাংলাদেশের মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রক বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

চোরাপথেও যাতে এ সব প্রাণী দেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে না পারে, সে জন্য সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর প্রশাসনকে সতর্ক করে চিঠিও দেওয়া হয়েছে। মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রকের সচিব রওনক মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের কোনো জেলায় এখনও পর্যন্ত বার্ড ফ্লু-র সংক্রমণ দেখা যায়নি। এখানে খামারি বা ক্রেতার আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। ভারতের যে যে স্থানে বার্ড ফ্লু শনাক্ত হয়েছে, সেই সব জায়গা বাংলাদেশ থেকে কয়েকশো কিলোমিটার দূরে। এ ছাড়া ভারতও ওই সব এলাকায় সতর্কতা জারি করেছে।

প্রাণীসম্পদ মন্ত্রকের সচিব বুলেন, মাঠকর্মীদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। কোনো প্রকার উপসর্গ পেলেই সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশের পূর্বের অভিজ্ঞতা তো রয়েছেই। আতঙ্কিত হয়ে হাঁস-মুরগি বা ডিম খাওয়া বন্ধ না করতে ভোক্তাদের অনুরোধ করেন এই আধিকারিক। তবে ভারতে রোগটি ছড়িয়ে পড়ার বার্তা পাওয়ার পরই বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের তরফে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। হাঁস-মুরগি-ডিম আমদানি নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে মঙ্গলবারই আলাদা আলাদা করে তিনটি চিঠি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রক ও বিভাগে পাঠানোর বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করা হয়েছে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রকের তরফে।

Loading videos...

ভারত থেকে কোনো ভাবেই যাতে মুরগির বাচ্চা, হাঁস-মুরগি, পাখি ও ডিম আমদানি করা না হয় সে জন্য বাণিজ্য মন্ত্রককে অনুরোধ জানানোর পাশাপাশি অনুপ্রবেশ বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এবং বাংলাদেশ কোস্টগার্ডকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের জননিরাপত্তা বিভাগকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া সমুদ্র, নৌ এবং স্থলবন্দর দিয়ে মুরগির বাচ্চা, প্যারেন্টস্টক, হাঁস-মুরগি, পাখি ও ডিমের অনুপ্রবেশ বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট বন্দর র্কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য নৌপরিবহন মন্ত্রককে অনুরোধ জানিয়েছে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রক।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীতেই মৈত্রী সেতু উদ্বোধনের সম্ভাবনা

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
ফুটবল6 hours ago

হায়দরাবাদের জয় ঠেকিয়ে ওড়িশার জন্য ১ পয়েন্ট নিয়ে এলেন আলেকজান্ডার

দঃ ২৪ পরগনা9 hours ago

বিজেপির সভায় ভাঙচুর, সরগরম জয়নগর

দেশ9 hours ago

দিল্লি মেট্রো স্টেশনে আচমকা অসুস্থ এক যাত্রী, ভিডিয়োয় দেখুন এক সিআইএসএফ জওয়ান কী ভাবে তাঁর জীবন বাঁচালেন

রাজ্য10 hours ago

৩০ হাজার টেস্টে আক্রান্ত চারশোর কিছু বেশি, রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের হার নামল দেড় শতাংশেরও নীচে

দেশ11 hours ago

‘শাশুড়ির’ প্রতি এতটাই ভালোবাসা যে ১১ বউমা মিলে তৈরি করে ফেলেছেন ‘শাশুড়ির মন্দির’, নিয়মিত চলে পুজোপাঠ

WhatsApp
প্রযুক্তি14 hours ago

ভারতে আরও বড়ো সমস্যায় হোয়াটসঅ্যাপ!

Narendra Modi
ক্রিকেট15 hours ago

অভাবনীয় প্রতিজ্ঞা, অদম্য জেদ-সংকল্প’, রাহানেদের ‘নয়া ভারত’-র জয়ে উচ্ছ্বাস মোদীর

প্রবন্ধ15 hours ago

শিল্পী – স্বপ্ন – শঙ্কা: সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে যেমন দেখেছি, ৮৭তম জন্মদিনে শ্রদ্ধার্ঘ্য

election commission of india
রাজ্য18 hours ago

বুধবার রাজ্যে আসছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ

দেশ2 days ago

মহারাষ্ট্র-কেরলে সংক্রমিত ৮০৮৬ বাকি দেশে মাত্র ৫০৭২, ২৩ মে’র পর সব থেকে কম দৈনিক মৃত্যু ভারতে

রাজ্য2 days ago

দক্ষিণবঙ্গে দু’ দিনের জন্য তাপমাত্রা বাড়লেও ফের ফিরবে শীত, উত্তরের পাহাড়ে তুষারপাতের সম্ভাবনা

ফুটবল2 days ago

এগিয়ে থেকেও ড্র করে পয়েন্ট খোয়াল এটিকে মোহনবাগান

দেশ2 days ago

শনিবার নিয়েছিলেন টিকা, রবিবার উত্তরপ্রদেশে মৃত্যু স্বাস্থ্যকর্মীর

দেশ2 days ago

মাত্র ১৮ শতাংশ ভারতীয় হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার চালিয়ে যেতে পারেন, ৩৬ শতাংশ কমিয়ে দেবেন ব্যবহার: সমীক্ষা

ঘরদোর3 days ago

এই ৭টি মিথ্যে বাঁচিয়ে দিতে পারে আপনার সম্পর্কটি

দেশ3 days ago

দিল্লিতে দৈনিক করোনা সংক্রমণের হার কমে ০.৪৪ শতাংশ

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

কেনাকাটা1 week ago

৯৯ টাকার মধ্যে ব্র্যান্ডেড মেকআপের সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : ব্র্যান্ডেড সামগ্রী যদি নাগালের মধ্যে এসে যায় তা হলে তো কোনো কথাই নেই। তেমনই বেশ কিছু...

কেনাকাটা2 weeks ago

কয়েকটি ফোল্ডিং আইটেম খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি সঙ্গে থাকলে অনেক সুবিধে হত বলে মনে হয়, কিন্তু সব সময় তা পাওয়া...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের কাজ এগুলি সহজ করে দেবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের কাজ অনেক বেশি সহজ করে দিতে পারে যে সমস্ত জিনিস, তারই কয়েকটির খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা2 weeks ago

ম্যাক্সিড্রেসের নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সুন্দর ম্যাক্সিড্রেসের চাহিদা এখন তুঙ্গে। সামনেই কোনো আনন্দ অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ থাকলে ম্যাক্সি পরতে পারেন। বাছাই করা কয়েকটি ড্রেসের...

কেনাকাটা2 weeks ago

রকমারি ডিজাইনের ৯টি পুঁটলি ব্যাগের কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুমে নিমন্ত্রণে যেতে সাজের সঙ্গে মিলিয়ে ব্যাগ নেওয়ার চল রয়েছে। অনেকেই ডিজাইনার ব্যাগ পছন্দ করেন। তেমনই কয়েকটি...

কেনাকাটা2 weeks ago

কস্টিউম জুয়েলারির দারুণ কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুম আসছে। নিমন্ত্রণবাড়ি তো লেগেই থাকে। সেখানে আজকাল সোনার গয়নার থেকে কস্টিউম বা জাঙ্ক জুয়েলারি পরে যাওয়ার...

কেনাকাটা3 weeks ago

রুম হিটারের কালেকশন, ৬৫০ থেকে শুরু

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভালোই শীত চলছে। এই সময় রুম হিটারের প্রয়োজনীয়তা খুবই। তা সে ঘরের জন্যই হোক বা অফিস, বা কোথাও...

কেনাকাটা3 weeks ago

চোখের যত্ন নিতে কিনুন এগুলি, খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অনেকেই আছেন সারা দিনের ব্যস্ততার মাঝে যদিও বা পা, হাত বা মুখের টুকটাক যত্ন নেন, কিন্তু চোখের বিশেষ...

কেনাকাটা1 month ago

ফিলগুড প্রোডাক্ট! পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দিনের মধ্যে কিছু সময় যদি নিজের মতো করে নিজের জন্য দেওয়া যায় তা হলে মন যেমন ভালো থাকে...

নজরে