রোহিঙ্গাদের ওপরে নজরদারিতে বিশেষ পদক্ষেপ বাংলাদেশের

চট্টগ্রাম: রোহিঙ্গাদের ওপরে নজরদারিতে এ বার বিশেষ পদক্ষেপ করতে চলেছে বাংলাদেশ। শরণার্থী শিবিরগুলিকে কাঁটাতার দিয়ে ঘিরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়ে শেখ হাসিনা সরকার।

এমনই জানিয়েছেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। চট্টগ্রামের কাছে কক্সবাজার ও টেকনাফে রোহিঙ্গাদের শিবির রয়েছে। তাদের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণে আরও সশস্ত্র নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করা হবে বলেও জানিয়েছেন কামাল। সেই সঙ্গে নজরমিনার তৈরি এবং সিসিটিভি বসানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।  

২০১৬ সাল থেকে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে অন্তত ১১ লক্ষ রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গাদের ওপরে মায়ানামার সেনার অকথ্য অত্যাচারের অভিযোগ ওঠে। প্রাণভয়ে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে চলে আসে। মানবিকতার খাতিরে রোহিঙ্গাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কিন্তু সময় যত গড়িয়েছে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অসামাজিক কাজে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগও উঠেছে। এমনকি তাদের সঙ্গে জঙ্গি সংগঠনের যোগেরও অভিযোগ উঠেছে। এমনকি স্থানীয় কৃষকদের মাথায় হাত উঠেছে এই দেখে যে রোহিঙ্গারা অনেকেই তাদের জমিতে কৃষিকাজ শুরু করেছে।

আরও পড়ুন দু’বছর পর সমস্ত অভিযোগ থেকে মুক্ত ডঃ কাফিল আহমেদ খান

এই পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। যদিও তা করতে নারাজ রেঙ্গুন। রোহিঙ্গাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের দ্বারস্থও হয়েছে হাসিনা সরকার।

রোহিঙ্গাদের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বাংলাদেশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক করেন কামাল। বৈঠকে রোহিঙ্গা শিবিরগুলি কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ঘেরার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সে ক্ষেত্রে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলি কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে পরিণত হবে কি না এই প্রশ্নও উঠতে শুরু করে।

যদিও তার জবাবে কামাল বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শরণার্থী শিবির কাঁটাতার দিয়ে ঘেরার নজির রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমতিতেই এই সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.