tarek rahman, khaleda zia, sheikh hasina
আসামিপক্ষের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া

ওয়েবডেস্ক: বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার মামলায় রায় শোনাল আদালত। বুধবার গত ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট হাসিনাকে হত্যার চক্রান্ত মামলায় আদালত ১৯ জন অপরাধীকে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেয়। একই সঙ্গে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমান-সহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন এবং বাকি ১১ আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে। তবে আইনি লড়াই এখানেই সমাপ্ত করতে চায় না আসামিপক্ষ।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আসামিপক্ষের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া জানিয়েছেন, “এটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ষড়যন্ত্রমূলক মামলা। তারেক রহমান দেশে ফিরলে আমরা রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন করব”।

একই সঙ্গে বিএনপিপন্থী এই আইনজীবী জানিয়েছেন, “মামলার আসামি মুফতি হান্নানকে ৪০০ দিন রিমান্ডে রেখে তারেক রহমানকে জড়িয়ে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। পরে তিনি নিজেই জানিয়েছেন, তাঁকে দিয়ে জোর করে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে”। ওই আইনজীবী সংবাদ মাধ্যমের কাছে দাবি করেন, “আসামির সঙ্গে তারেক রহমানের কোনো দেখা হয়নি, বৈঠকও হয়নি। অথচ আজকে অন্যায়ভাবে, বেআইনিভাবে তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন দেওয়া হয়েছে”।

রাফাল প্রসঙ্গে কেন্দ্রের কাছে কঠিন প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টের!

সানাউল্লাহ মিয়া স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, “এই মামলার রায়ে আমরা সন্তুষ্ট না, আমরা ন্যায় বিচার পাইনি”।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন