করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেই রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে ফেরাতে উদ্যোগী হওয়ার ইঙ্গিত চিনের

0

ঋদি হক: ঢাকা

করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেই রোহিঙ্গাদের (Rohingyas) যাতে ফেরানো যায়, তার জন্য উদ্যোগী হবে চিন (China)। এমন ইঙ্গিত এল চিনের তরফে। সেই লক্ষ্যেই তারা কাজ করে যাচ্ছে।

রোহিঙ্গাদের ফেরানোর বিষয়ে মায়ানমারের (Myanmar) সঙ্গে বিভিন্ন পর্যায়ে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে চিন। বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে রাজি থাকার কথাও ফের চিনকে জানিয়েছে মায়ানমার।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চিনের বিদেশমন্ত্রী (Chinese Foreign Minister) ও স্টেট কাউন্সিলর ওয়াং ই (Wang Yi) বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী (Bangladesh Foreign Minister) ড. এ. কে. আব্দুল মোমেনকে (Dr. A. K. Abdul Momen) ফোনালাপে এ কথা জানিয়েছেন। রোহিঙ্গাদের ফেরাতে বাংলাদেশের (Bangladesh) সঙ্গে দ্রুত আলোচনা শুরু করতে মায়ানমারকে বলেছে চিন।

বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রীকে বিষয়টি অবহিত করে চিনের বিদেশমন্ত্রী বলেছেন, মায়ানমারের নির্বাচনের পর প্রথমে রাষ্ট্রদূত পর্যায়ে এবং পরবর্তীতে বাংলাদেশ, চিন ও মায়ানমারের মধ্যে মন্ত্রী পর্যায়ের ত্রিপক্ষীয় বৈঠকের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে ঢাকায় সিনিয়র কর্মকর্তা পর্যায়ের ত্রিপক্ষীয় বৈঠক দ্রুত শুরুর বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে চিন সরকার।

দুই বিদেশমন্ত্রীর ফোনালাপে কোভিড ১৯ টিকার (Covid 19 vaccine) প্রসঙ্গটিও ওঠে আসে। অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বাংলাদেশ যে কোভিড টিকা পাবে, তা-ও নিশ্চিত করেছেন চিনের বিদেশমন্ত্রী। করোনা-পরবর্তী কালে অর্থনৈতিক অবস্থার পুনরুদ্ধারে দুই দেশের একযোগে কাজ করার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেন ওয়াং ই।

করোনা মহামারি মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করে চিনের বিদেশমন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশের প্রতি চিনের সাহায্য অব্যাহত থাকবে। করোনা্র কারণে বাংলাদেশে চিনের যে সব প্রকল্প স্থগিত হয়ে রয়েছে বা ধীর গতিতে চলছে, সেগুলো করোনা কাটলেই দ্রুত শেষ করবে চিন।

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের পিরোজপুরে ছিনতাইয়ের কবলে পড়ে চিনের এক নাগরিক প্রাণ হারাণ। দুই বিদেশমন্ত্রীর ফোনালাপে এই প্রসঙ্গটিও ওঠে। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে প্রধান আসামি-সহ দু’ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। চিনের বিদেশমন্ত্রী বলেন, এই হত্যার দ্রুত বিচার এবং চিনের নাগরিকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের পদক্ষেপে চিন সরকার যথেষ্ট আস্থা রাখেন। ফোনালাপে ড. মোমেন জানিয়ে দেন, এ ঘটনায় দু’ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং দ্রুত বিচার নিশ্চিত করা হবে।

করোনা মহামারির কারণে চিনে আটকে পড়া বাংলাদেশের ছাত্রছাত্রী ও গবেষকদের ভিসা নবায়নের বিষয়েও দুই বিদেশমন্ত্রীর আলোচনা হয়েছে। বিদেশি ছাত্রছাত্রীদের চিনে প্রবেশের বিষয়ে তাঁর সরকার এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি জানিয়ে ওয়াং ই বলেন, এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হলে বাংলাদেশিদের অগ্রাধিকারের তালিকায় রাখা হবে। সে ক্ষেত্রে ভিসা ও অন্যান্য বিষয়ের দ্রুত সমাধান হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা ‘আমার দেখা নয়া চিন’ বইটি চিনা ভাষায় অনুবাদের উদ্যোগ নেওয়ায় সে দেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীতে চালু হয়ে যাচ্ছে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন