Connect with us

দেশ

হাসিনা সরকারের কূটনৈতিক দক্ষতায় ভারতের সঙ্গে আস্থার সম্পর্ক গড়ে উঠেছে, বললেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী

ওবায়দুল কাদের বলেন, দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর একান্ত আগ্রহে যে সব প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে তা এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে উন্নয়নের স্বার্থেই।

Published

on

vdo conf. of bangla road transport minister
ভিডিও কনফারেন্সে বাংলাদেশের সড়ক পরিবহন মন্ত্রী।

ঋদি হক: ঢাকা

শেখ হাসিনা (Sheikh Hasina) সরকার কূটনৈতিক দক্ষতা দিয়ে প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে আস্থার সম্পর্ক গড়ে তুলেছে। বাংলাদেশের (Bengladesh) উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ভারত (India) ও বাংলাদেশ একে অপরের সহায়ক বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামি লিগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের (Obaidul Quader)। রবিবার ভারতীয় ঋণ কর্মসূচির আওতায় বাস্তবায়নাধীন প্রকল্প ও অগ্রগতির পর্যালোচনা-সভায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এ কথা জানান।

ওবায়দুল কাদের তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সভায় যুক্ত হন। এ সময়ে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের বিদায়ী হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাশ, সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম-সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

মন্ত্রী বলেন, “ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সম্মতি, ইন্ডিয়ান এক্সিম ব্যাংকের ঐকমত্য-সহ নানা বিষয় মিলিয়ে আমাদের অংশের কার্যক্রম সম্পূর্ণ হতে প্রত্যাশিত সময়ের চেয়ে বেশি সময় লাগছে”। এলওসির আওতায় প্রকল্পগুলোর কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে বিশেষ নজর দেওয়ার আহ্বান জানান কাদের। কারণ প্রকল্পগুলো দু’দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও পারস্পরিক উন্নয়নের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর একান্ত আগ্রহে যে সব প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে তা এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে উন্নয়নের স্বার্থেই।

কাদের বলেন, “ভারত আমাদের বিশ্বস্ত বন্ধু। উভয় দেশের বন্ধুত্ব সময়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। আমাদের দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে উষ্ণ, মসৃণ এবং ভবিষ্যৎমুখী। ভারত আমাদের বড়ো প্রতিবেশী। প্রতিবেশীর সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকলে ‘পিপল টু পিপল কানেক্টিভিটি’ হলে দু’ দেশের মধ্যে অনেক অমীমাংসিত সমস্যা সহজে সমাধান সম্ভব হবে। তার প্রমাণ ছিটমহল বিনিময়, সীমান্ত সমস্যা-সহ অনেক সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ গ্রহণ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার কূটনৈতিক দক্ষতা দিয়ে প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বৈরিতার বিপরীতে গড়ে তুলেছে আস্থার সম্পর্ক। ভারত-বাংলাদেশ পারস্পরিক উন্নয়ন এগিয়ে নিয়ে যেতে দু’ দেশ একে অপরের সহায়ক। এরই ধারাবাহিকতায় ভারতীয় ঋণ কর্মসূচির আওতায় যৌথ ভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

নারায়ণগঞ্জের তল্লাবাগ যেন একটা শোকমঞ্চ

দেশ

রাষ্ট্রপতির সম্মতি মিললেও নয়া তিন কৃষি আইন কার্যকর করবে না মহারাষ্ট্র, হুঁশিয়ারি মন্ত্রীর

পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল কী পদক্ষেপ নেয়, সেটাও দেখার!

Published

on

Balasaheb Thorat
মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী বালাসাহেব থোরাট। ছবি: এএনআই

নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলগুলিতে স্বাক্ষর করার পরই মহারাষ্ট্রে কার্যকর করা হবে না বলে জানিয়ে দিলেন রাজ্যের রাজস্বমন্ত্রী।

অভূতপূর্ব নাটকীয়তার মধ্যে দিয়ে সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলগুলিতে রবিবার স্বাক্ষর করেন রাষ্ট্রপতি। এর পরই মহারাষ্ট্রের জোট সরকারের রাজস্বমন্ত্রী বালাসাহেব থোরাট বলেন, “মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার বিলগুলি কার্যকর করবে না”। তিনি বিলগুলিকে ‘কৃষক-বিরোধী’ বলে অভিহিত করেন। একই সঙ্গে কংগ্রেস নেতা জানিয়ে দেন, এ ব্যাপারে শিবসেনাও তাঁদের পাশে রয়েছে।

গেজেট বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি তিনটি কৃষি বিলে সম্মতি জানিয়েছেন। এগুলির মধ্যে রয়েছে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সংশোধনী’, ‘কৃষি পণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন’ এবং ‘কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি’ সংক্রান্ত তিনটি বিল।

বিরোধী রাজনৈতিক দল এবং কৃষক সংগঠনের চরম বিরোধিতার মাঝেই সংসদের বাদল অধিবেশনে বিলগুলি নাটকীয় ভাবে পাশ হয়ে যায়। সেই বিলগুলিতে রাষ্ট্রপতি স্বাক্ষর মিলতেই তা আইনে পরিণত হওয়ার কথা।

বিরোধীদের প্রতিবাদের পাশাপাশি এই বিলগুলি নিয়ে এনডিএ-র অন্দরেই সংঘাত বেঁধেছে। বিলের বিরোধিতা করে বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করেছে পুরনো সঙ্গী আকালি দল। (বিস্তারিত পড়ুন এখানে: বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরোধিতায় বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগ করল অকালি দল)

এ প্রসঙ্গে শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত বলেন, “শিবসেনা এবং অকালি দল- উভয়েই দুর্দিনে বিজেপির পাশে দাঁড়িয়েছিল। কিন্তু শিবসেনা গত বছর এনডিএ ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল, এখন কৃষি বিলকে কেন্দ্র করে অকালি দলও ছেড়ে গেল। এই ধরনের ঘটনার জন্য আমাদের দু:খ পাওয়াটা অমূলক নয়”।

এ দিন রাষ্ট্রপতির সম্মতি মিলতেই তড়িঘড়ি নয়া তিন আইনের বিজ্ঞপ্তিও জারি করে দিয়েছে কেন্দ্র। স্বাভাবিক ভাবেই মহারাষ্ট্র সরকার যদি তা কার্যকর করতে না চায়, তা হলে ফের নতুন করে সংঘাত বাঁধতে চলেছে।

এ দিকে গত শনিবার অকালি দলের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর তাদের সমর্থন জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেন, “আমরা সুখবীর সিং বাদল এবং অকালি দলের কৃষকদের সঙ্গে থাকার অবস্থানকে সমর্থন করছি। কৃষকদের জন্য লড়াই তৃণমূল কংগ্রেসের অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ”। ফলে মহারাষ্ট্রের মন্ত্রীর হুঁশিয়ারির পর নয়া আইনগুলি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল কী পদক্ষেপ নেয়, সেটাও দেখার!

Continue Reading

দেশ

নাটকীয় ভাবে সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলে স্বাক্ষর রাষ্ট্রপতির

Published

on

farm bills protest
কৃষি বিলের বিরুদ্ধে কৃষক সংগঠনের প্রতিবাদ। ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: অভূতপূর্ব নাটকীয়তার মধ্যে দিয়ে সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলগুলিতে রবিবার স্বাক্ষর করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির চরম বিরোধিতা সত্ত্বেও বিলগুলি গত সপ্তাহে পাশ হয় রাজ্যসভায়। সেই বিলের বিরুদ্ধে এখনও দেশের বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে একাধিক কৃষক সংগঠন। অন্য দিকে বিরোধীদের রাজ্যসভা বয়কটের সময় তাদের অনুপস্থিতিতেই পাশ হওয়ার বিলের বিরোধিতা করে বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করেছে পুরনো সঙ্গী আকালি দল। (বিস্তারিত পড়ুন এখানে: বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরোধিতায় বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগ করল অকালি দল)

এর আগে কংগ্রেসের নেতৃত্ব বিরোধী দলগুলি রাষ্ট্রপতির কাছে গিয়ে বিলের বিরুদ্ধে দরবার করে। তারা রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন জানায়, স্বাক্ষর না করে বিলগুলিকে পুনর্বিবেচনার জন্য ফেরত পাঠানো হোক। বিলগুলিকে ‘কৃষক-বিরোধী’ আখ্যা দিয়ে বিরোধী দল এবং কৃষক সংগঠনগুলি বহুবিধ আশঙ্কা প্রকাশ করে। যেগুলির মধ্যে অন্যতম, ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য নিয়ে অনিশ্চয়তা।

বিরোধীদের অভিযোগ, “সরকার সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে কৃষকদের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিচ্ছে। কৃষি যাতে তাদের পুঁজিবাদী বন্ধুদের উপার্জনের পথ হয়ে ওঠে, সেই চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকার”।

তবে সংসদের উভয়কক্ষে পাশ হওয়ার পর এ দিন রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের পর কৃষিক্ষেত্রের সংস্কার সংক্রান্ত বিলগুলি আইনে পরিণত হল।

প্রসঙ্গত, সংসদের বাদল অধিবেশনে ‘অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সংশোধনী’, ‘কৃষি পণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন’ এবং ‘কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি’ সংক্রান্ত তিনটি বিল পেশ করেছিল কেন্দ্র। সংসদের বাইরে-ভিতরে বিক্ষোভের মাঝেই সেই বিলগুলি পাশ হয়ে যায়। সেগুলিতেই এ দিন স্বাক্ষর করলেন রাষ্ট্রপতি।

বিলগুলি নিয়ে দেশের একাধিক রাজ্যের কৃষকেরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। তাঁদের অভিযোগ, এই বিলকে হাতিয়ার করেই ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ছেঁটে ফেলা হবে। তবে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর তরফে সেই অভিযোগ নস্যাৎ করা হয়েছে।

Continue Reading

দেশ

সেরো সার্ভের রিপোর্ট তুলে ধরে কোভিড নিয়ে সতর্ক করলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

“সেরো সার্ভের রিপোর্ট যেন মানুষের মধ্যে আত্মতুষ্টির ধারণা তৈরি না করে”, বললেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

Published

on

'সানডে সংবাদ'-এ ডা. হর্ষ বর্ধন

নয়াদিল্লি: এক বার কোভিড থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার পর ফের সংক্রামিতের সংখ্যা নগণ্য হলেও বিষয়টিকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে বলে রবিবার জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. হর্ষ বর্ধন। পাশাপাশি তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, “সেরো সার্ভের রিপোর্ট যেন মানুষের মধ্যে আত্মতুষ্টির ধারণা তৈরি না করে”।

এ দিন নিজের সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান ‘সানডে সংবাদ’-এ অংশ নিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বলেন, “শুধু ভারতে নয়, সারা বিশ্বেই একাধিক বার করোনা আক্রান্ত হওয়ার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। তবে এ মুহূর্তে বিষয়টা ততটা গুরুতর বিষয় নয়। অন্য দিকে দ্বিতীয় বার আক্রান্তের সংখ্যা নগণ্য হলেও বিষয়টির উপর নজর রাখা হচ্ছে। ঠিক যে ভাবে কোভিড-১৯-এর প্রতিটি দিক নিয়ে গবেষণা চলছে, এ বিষয়টিও তার অন্তর্ভুক্ত রয়েছে”।

মন্ত্রী বলেন, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চ (ICMR) বিষয়টির উপর নজর রাখছে।

সেরো সার্ভে এবং সচেতনতা

ভাইরাসের বিরুদ্ধে শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে কি না, তা নির্ণয়ে এই নিয়ে দু’টি সেরো সার্ভে রিপোর্ট পেশ করেছে আইসিএমআর। তবে দ্বিতীয় বারেও সার্বিক আশাব্যঞ্জক ফল পাওয়া যায়নি বলে ইঙ্গিত দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, “ভারতের বৃহত্তর জনসংখ্যার শরীরে ভাইরাসের বিরুদ্ধে অনাক্রম্যতা অর্জন এখনও অনেকটাই দূরে। আইসিএমআরের দ্বিতীয় সেরো সার্ভে রিপোর্টে সেই তথ্যই উঠে এসেছে”।

সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, “ফলে সংক্রমণ ঠেকাতে আমাদের এখনও যথাযথ কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। যে কোনো রকমের অবেহলা সংক্রমণ বিস্তারের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এমনকী উপাসনার স্থানেও মাস্ক পরে যাওয়া উচিত”।

প্রথম সেরো সার্ভে করা হয় মে মাসে। যে সময় দেশব্যাপী করোনা সংক্রমণ ছিল মাত্র .৭৩ শতাংশ। বিবৃতিতে তিনি বলেন, “মহামারির বিরুদ্ধে তখনই লড়াই করা যেতে পারে, যখন সরকার এবং সমাজ একযোগে কাজ করবে”।

তাঁর কথায়, “প্রত্যেকটি মানুষেরই উচিত কোভিডের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তোলা। নিজে সচেতন হওয়া এবং অন্যকে সচেতন করা। আমি নিজেও গাড়ি থামিয়ে মাস্ক-বিহীন মানুষকে মাস্ক পরার প্রয়োজনীয়তা কথা বোঝাচ্ছি”।

আরও পড়তে পারেন: আক্রান্তের সংখ্যা ৬০ লক্ষ ছুঁইছুঁই, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সুস্থতার হার

Continue Reading
Advertisement
আইপিএল7 hours ago

আইপিএল-এর ইতিহাসে রান তাড়া করার রেকর্ড, পাঞ্জাবকে হারিয়ে জিতল রাজস্থান রয়্যালস

Balasaheb Thorat
দেশ10 hours ago

রাষ্ট্রপতির সম্মতি মিললেও নয়া তিন কৃষি আইন কার্যকর করবে না মহারাষ্ট্র, হুঁশিয়ারি মন্ত্রীর

রাজ্য11 hours ago

রাজ্যে দৈনিক আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যায় সামান্য বৃদ্ধি, ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতা

farm bills protest
দেশ11 hours ago

নাটকীয় ভাবে সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলে স্বাক্ষর রাষ্ট্রপতির

দেশ12 hours ago

সেরো সার্ভের রিপোর্ট তুলে ধরে কোভিড নিয়ে সতর্ক করলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দেশ12 hours ago

জল্পনার অবসান! নীতীশ কুমারের দলে যোগ দিলেন বিহারের প্রাক্তন ডিজি

রাজ্য14 hours ago

২ নভেম্বর থেকে কলেজের ক্লাস অনলাইনে, সাফ জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

রাজ্য15 hours ago

সিঙ্গুর প্রসঙ্গ টেনে বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগকারী অকালি দলকে সমর্থন তৃণমূলের

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা3 days ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা5 days ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 week ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা2 weeks ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা3 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা3 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা1 month ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

নজরে