ঢাকা: বাংলাদেশের সাধারণ নির্বাচন এক সপ্তাহ পিছিয়ে গেল। ২৩ ডিসেম্বরের বদলে ভোটগ্রহণ হবে আগামী ৩০ ডিসেম্বর। এমনই জানিয়েছে সে দেশের নির্বাচন কমিশন।

সোমবার দুপুরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইভিএম প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা করেন বাংলাদাশের প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা। ওই অনুষ্ঠানে হুদা বলেন, ‘‘আমরা আশা করেছিলাম, এ বারের নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। তেমনটাই হচ্ছে। এ জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে অভিনন্দন জানাই। কয়েকটি বিরোধী দল নির্ঘণ্ট বদলের আবেদন জানিয়েছিল। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে আমরা দিন বদলের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

তিনি আরও জানান, মনোনয়নপত্র আগামী ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে। ওই মনোনয়নপত্র বাছাই এবং প্রত্যাহারের বিষয়ে পরে জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন বাংলাদেশের নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন জনপ্রিয় এই ক্রিকেটার, জল্পনা আর একজনকে নিয়ে

গত ৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়সূচি ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ওই ঘোষণায় বলা হয়েছিল, ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া যাবে। তা বাছাইয়ের শেষ দিন ছিল ২২ নভেম্বর। ২৯ নভেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল ২৩ ডিসেম্বর।

ওই ঘোষণার পরেই জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, বাম গণতান্ত্রিক জোট তার বিরোধিতা করে। এ দিনের এই নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ার ঘোষণার পরে বিরোধী দলগুলির তরফ থেকে এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here