30 C
Kolkata
Friday, June 18, 2021

ভারতের সঙ্গে স্থলসীমান্ত আরও ১৪ দিন বন্ধ রাখছে বাংলাদেশ

আরও পড়ুন

ঋদি হক: ঢাকা

ভারতের করোনা পরিস্থিতি বেহাল। এরই মধ্যে ভারতে চিকিৎসা করে ফেরা ১৩ জনের দেহে করোনাভাইরাসের (coronavirus) ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট (Indian variant) শনাক্ত হয়েছে। এ সব রোগীদের নজরে রাখা হয়েছে। এ সব কারণে ভারত-বাংলাদেশ স্থলসীমান্ত বন্ধের মেয়াদ আরও ১৪ দিন বাড়িয়ে দিয়েছে সরকার। শনিবার বিদেশসচিব মাসুদ বিন মোমেনের (Masud Bin Momen) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়।

Loading videos...
- Advertisement -

এ দিন বিদেশমন্ত্রকের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস সংবাদমাধ্যমকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান। স্থলপথে যাত্রী চলাচল বন্ধ থাকলেও পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল চালু রয়েছে।

ভারতে মারাত্মক করোনা পরিস্থিতির কারণে ২৬ এপ্রিল থেকে ১৪ দিনের জন্য স্থলসীমান্ত বন্ধ ঘোষণা করে বাংলাদেশ। এর ফলে ভারতে চিকিৎসা নিতে যাওয়া প্রায় হাজার দুয়েক বাংলাদেশি নাগরিক আটকে পড়েন। পরে পর্যায়ক্রমে তাঁদের ফিরিয়ে আনা হয়। কিন্তু যে আশঙ্কা আগেই করা হয়েছিল, ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তকরণের মধ্য দিয়ে তা সত্যে প্রমাণিত হল।

যাঁদের ভিসার মেয়াদ ১৫ দিনের কম শুধু তাঁরাই ফিরবেন

শনিবারের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, প্রথম দফার মতো এ বারও বাংলাদেশের যে সব নাগরিক চিকিৎসা নিতে এখনও ভারতে রয়েছেন এবং যাঁদের ভিসার মেয়াদ ১৫ দিনের কম শুধু তাঁরাই বেনাপোল, আখাউড়া ও বুড়িমারি সীমান্ত দিয়ে দেশে ফিরতে পারবেন।

ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়ার কারণে দেশে ফিরতে আগ্রহী বাংলাদেশের নাগরিকদের দিল্লি, কলকাতা ও আগরতলায় বাংলাদেশ মিশনের অনাপত্তিপত্র নিতে হবে।

আগরতলায় ভারত-বাংলাদেশ স্থলসীমান্ত।

এরই মধ্যে সীমান্ত এলাকায় কোয়ারান্টাইন সুবিধার জায়গা সীমিত হয়ে পড়ায় ঈদের ছুটির আগে ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশন অনাপত্তিপত্র দেওয়ার বিষয়ে কিছুটা কড়াকড়ি মেনে চলছে। 

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের সন্ধান

এ দিকে খোদ রাজধানী ঢাকায় ৫৮ বছর বয়সি এক মহিলার নমুনা পরীক্ষায় ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে। এর আগে যশোরে ১২ জনের দেহে এই ধরনটি মিলেছে।

প্রথম দফায় ১০ জনের করোনা শনাক্ত হলে, তাঁদের যশোর হাসপাতালে কোভিড ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সুযোগ বুঝে এই রোগীরা হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান। পরে তাঁদের খুঁজে বের করে ফের হাসপাতালে নিয়ে আসে প্রশাসন।

বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) জিনোমিক রিসার্চ ল্যাবরেটরির গবেষক দল ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ সংক্রান্ত তথ্য জার্মানির গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডেটাতে (জিআইএআইডি) প্রকাশিত হয়েছে।

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বাংলাদেশে আসার বিষয়টি শনিবার স্বাস্থ্য অধিদফতর সাংবাদিক বৈঠক করে নিশ্চিত করেছে। সংস্থাটির মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম উদ্বেগ প্রকাশ করে জানান, ছয়টি ভারতীয় ধরন শনাক্ত হয়েছে। দু’টি সরাসরি ডাবল মিউটেন্ট, বাকি চারটি কাছাকাছি।

এ ছাড়া হাসপাতাল থেকে পালানো আট জনের মধ্য এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়নি।  এ ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত রোগীরা চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়েছিলেন। তাঁরা যশোরে অবস্থান করছেন। বিশ্বের অন্তত ১৭টি দেশে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বা ধরন ছড়িয়ে পড়েছে। গত মাসের শেষের দিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) তাদের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

আরও পড়ুন: টিকা পেতে ভারতকে চিঠি, সীমান্তে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টে দুশ্চিন্তায় বাংলাদেশ

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

- Advertisement -

আপডেট

নন্দীগ্রাম মামলার শুনানিতে কেন অনুপস্থিত মামলাকারী

বিজেপি সমর্থক বিচারপতির মামলাটা ছেড়ে দেওয়া উচিত, বলল তৃণমূল!

পড়তে পারেন