চিন-বাংলাদেশ সম্পর্ক নিয়ে ভারতের চিন্তার কোনো কারণ নেই: হাসিনা

0

ঢাকা: চিন-বাংলাদেশ সম্পর্ক নিয়ে ভারতের চিন্তার কোনো কারণ নেই বলে আশ্বস্ত করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর দাবি, শুধুমাত্র উন্নয়নের জন্যই চিনের সাহায্য নিচ্ছে ঢাকা।

হাসিনার দাবি, বাংলাদেশের উন্নয়নে যে দেশ এগিয়ে আসবে তার সঙ্গেই সম্পর্ক দৃঢ় করবে বাংলাদেশ। হাসিনার বাড়িতে কয়েক জন ভারতীয় সাংবাদিকের মুখোমুখি হয়ে হাসিনা বলেন, “যে দেশই আমাদের সাহায্য করুক, আমরা বাংলাদেশে উন্নয়ন এবং বিনিয়োগ চাই। বাংলাদেশের মানুষের কথা ভেবেই এই উন্নয়নের কাজ চালিয়ে যাওয়া খুব দরকার।”

ভারত বা চিন শুধু নয়, বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার জন্য এগিয়ে আসছে জাপান এবং আরব দেশগুলিও, এমনই দাবি করেন হাসিনা। তাঁর কথায়, “ভারতের চিন্তার কোনো কারণ নেই।”

হাসিনা আরও বলেন, “আমি ভারতকে প্রস্তাব দিতে পারি তারা যেন সব প্রতিবেশীর সঙ্গেই ভালো সম্পর্ক রেখে চলেন, তা হলে সারা বিশ্বকে আমরা দেখিয়ে দিতে পারি যে উপমহাদেশ এক সঙ্গে কাজ করতে পারে।”

ভারতের সঙ্গে বরাবরই অসাধারণ সম্পর্ক বজায় রয়েছে বাংলাদেশ, সে কথা মনে করিয়ে দেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। হাসিনা বলেন, “কখনও কোনো সমস্যা হলে আলোচনা মাধ্যমেই মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা উচিত, যেমন আগেও হয়েছে। এর ফলে একটা শান্তিপূর্ণ দক্ষিণ এশিয়া গড়ে উঠবে।”

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজতে ঢাকাকে সাহায্য করছে বেজিং। পাশাপাশি বাংলাদেশের ছ’টা নতুন রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরির ক্ষেত্রেও বিপুল পরিমাণ অর্থসাহায্য করছে তারা।

তবে রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারতকে পাশে পাওয়ার বার্তা দিয়েছেন হাসিনা। রোহিঙ্গারা বেশি দিন বাংলাদেশে থাকলে নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে, এই কথা মনে করিয়ে হাসিনা বলেন, “আমরা চাই মায়ানমারের ওপরে চাপ সৃষ্টি করুক ভারত, যাতে তারা দ্রুত রোহিঙ্গাদের নিজেদের দেশে ফিরিয়ে নেয়।” রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারতের পাশাপাশি মায়ানমারের সব ক’টা প্রতিবেশী দেশের সঙ্গেই আলোচনায় আহ্বান করেছেন হাসিনা।

তিনদিন ব্যাপী ভারত-বাংলাদেশ ‘মিডিয়া ডায়লগ’ উপলক্ষে এই মুহূর্তে ঢাকায় রয়েছেন দিল্লি এবং কলকাতার সাংবাদিকরা।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.