Connect with us

বাংলাদেশ

চুক্তির প্রায় দু’ বছর পর চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে পণ্য গেল ভারতের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে

এটিকে ভারত-বাংলাদেশ ট্রানজিট চুক্তির পরীক্ষামূলক প্রথম চালান বলা হচ্ছে। তবে এটি মূলত চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহার করে প্রথম চালান বলাটাই সঠিক হবে।

Published

on

ঋদি হক: ঢাকা

চট্টগ্রাম বন্দর (Chattogram Port) ব্যবহার করে ভারতের (India) প্রান্তিক রাজ্য ত্রিপুরা (Tripura) ও অসমে (Assam) ১০০ টন পণ্য গেল। ৪টি কনটেনার বহন করে নিয়ে গেল চারটি ট্রেলার। বৃহস্পতিবার  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দরে নির্ধারিত কাস্টমস ডিউটি দিয়ে ত্রিপুরার আগরতলায় প্রবেশ করে ট্রেলারগুলি। বন্দর ব্যবহার করে পরীক্ষামূলক চালান হওয়ায় বাংলাদেশের সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) তাদের নির্ধারিত ফি ছাড় দিয়েছে।

Loading videos...

রড নিয়ে দু’টি কনটেনার গেল আগরতলায় এবং ডাল নিয়ে দু’টি কনটেনার গেল অসমে। আগরতলা স্থলবন্দরে আনুষ্ঠানিক ভাবে কনটেনার বাহক চারটি ট্রেলার গ্রহণ করেন ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। কনটেনার বাহক প্রতিটি ট্রেলার জীবাণুনাশক স্প্রের মাধ্যমে জীবাণুমুক্ত করে বন্দরে ঢোকায় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। 

২০১৮ সালে চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহারের জন্য ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে যে চুক্তি হয়েছিল তার প্রায় দু’ বছর পর চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে ব্যবহার করে প্রথম কোনো পণ্যচালান ভারতে প্রবেশে করল। এ ছাড়া আশুগঞ্জ নৌবন্দর দিয়ে অসমের করিমগঞ্জ, ধুবুরী, শীলঘাট ও পান্ডুতে জলপথে পণ্য পরিবহণ হয়ে আসছে। এর ফলে দু’ দেশের মধ্যে নৌবাণিজ্যের প্রসার ঘটছে দিন দিন।

বলতে গেলে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চল কার্যত দুর্গম এলাকা। ত্রিপুরার তিন দিকে বাংলাদেশ। এ ছাড়া বাংলাদেশের গা ঘেঁষে রয়েছে ভারতের অসম, মেঘালয়, মিজোরাম-সহ সাতটি রাজ্য, যারা ‘সেভেন সিস্টার্স’ হিসেবে পরিচিত। এখন থেকে চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার করে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোয় নিষ্কন্টক পণ্যপরিবহণে আর কোনো বাধা রইল না। বাংলাদেশের জলপথ ও বন্দর ব্যবহার করে পণ্য পরিবাহিত হলে সড়কপথের অর্ধেকেরও কম খরচ হব এবং বাঁচবে সময়। এটিকে ভারত-বাংলাদেশ ট্রানজিট চুক্তির পরীক্ষামূলক প্রথম চালান বলা হচ্ছে। তবে এটি মূলত চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহার করে প্রথম চালান বলাটাই সঠিক হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের মধ্যে সম্পাদিত ‘এগ্রিমেন্ট অন দ্য ইউজ অব চট্টগ্রাম অ্যান্ড মোংলা পোর্ট ফর মুভমেন্ট অব গুডস টু অ্যান্ড ফ্রম ইন্ডিয়া’ চুক্তি সই হয়। পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ৫ অক্টোবর দু’ দেশের মধ্যে স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) স্বাক্ষরিত  হয়। যার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের বন্দর ব্যবহার করে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে পণ্য পরিবহন শুরু করেছে ভারত। 

আরও পড়ুন: ঐতিহাসিক মাইলফলক! এই প্রথম কলকাতা থেকে জলপথে বাংলাদেশ হয়ে পণ্য পৌঁছোল ত্রিপুরায়

পরীক্ষামূলক এই ট্রানজিট পণ্যচালানের জন্য আগেই ফি নির্ধারণ করে দেয় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দ্বিতীয় সচিব (কাস্টমস: আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও চুক্তি) আকতার হোসেন স্বাক্ষরিত এক চিঠি থেকে জানা গেছে, প্রতি চালানের জন্য ডকুমেন্ট প্রসেসিং ফি ৩০ টাকা, ট্রান্সশিপমেন্ট ফি প্রতি মেট্রিক টনে ২০ টাকা, সিকিউরিটি চার্জ প্রতি মেট্রিক টন একশো টাকা, এসকর্ট চার্জ প্রতি মেট্রিক টন ৫০ টাকা, বিবিধ প্রশাসনিক চার্জ প্রতি মেট্রিক টন একশো টাকা, কনটেনার স্ক্যানিং ফি কনটেনার প্রতি ২৫৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়।এ ছাড়া বিধি অনুযায়ী ইলেকট্রিক লক অ্যান্ড সিল ফি দিতে হবে।

কলকাতা বন্দর থেকে ছেড়ে বাংলাদেশি জাহাজ ‘সেঁজুতি’ ১২১টি কনটেনার নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছোয় মঙ্গলবার। এর মধ্যে চারটি কনটেনারে ছিল ভারতের অসম ও ত্রিপুরার জন্য পণ্য। বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে বুধবার আখাউড়া স্থলবন্দরে পৌঁছোয় চারটি কনটেনার বাহক চারটি ট্রেলার। বৃহস্পতিবার আখাউড়া থেকে ওই চারটে ট্রেলার প্রবেশ করে আগরতলায়।

বাংলাদেশ

পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে গুলিবিদ্ধ মিলন বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি

মিলনের বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানার মাইদালের কুঠি গ্রামে।

Published

on

ঋদি হক: ঢাকা

ভারতের (India) কোচবিহারে (Cooch Behar) গুলিবিদ্ধ মিলন মিয়াঁ বাংলাদেশের (Bangladesh) কুড়িগ্রাম (Kurigram) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এটি কী করে হল? এ সম্পর্কে কুড়িগ্রাম জেলায় সীমান্তবর্তী নাগেশ্বরী থানার পুলিশ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নে তাঁর নানাবাড়িতে আসা ভারতীয় আহত যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।

Loading videos...

ডান পাঁজরে গুলিবিদ্ধ মিলন মিয়াঁর দাবি, নির্বাচনী সহিংসতার কারণে ভারতের কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানায় কার্ফু জারি ছিল। সেই কার্ফু চলাকালীন শনিবার সন্ধ্যায় সে বাড়ির বাইরে বের হয়। সে সময় চৌধুরীর হাট এলাকায় গুলিবিদ্ধ হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রতিবেশীরা চিকিৎসার জন্য তাকে বাংলাদেশের কুড়িগ্রামে নানার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। মিলন শনিবার রাতে ফুলবাড়ি উপজেলার অনন্তপুর সীমান্তের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পিলার ৯৪৬/৫ এস-এর কাছ দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

অবশ্য বিএসএফ (BSF) বলছে, সীমান্তে মাদক পাচারের সময় তাকে গুলি করা হয়েছিল। মিলনের বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার সাহেবগঞ্জ থানার মাইদালের কুঠি গ্রামে। তার বাবার নাম জগু আলম।

পুলিশ রবিবার ভোর ৪টায় কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে মিলনকে ভর্তি করে। বর্তমানে তার অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা পুলক কুমার সরকার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, মিলনের পাঁজরের ডান দিকে গুলি লেগেছে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-এর (BGB) লালমনিরহাট ১৫ ব্যাটেলিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তৌহিদুল আলম বলেন, এ ঘটনায় সকালে বিএসএফের সঙ্গে পতাকা বৈঠক হয়েছে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিএসএফএর ১৯২ ব্যাটালিয়নের কমান্ডার মি. রাওয়াড। বৈঠকে বিএসএফ জানায়, কাঁটাতারের বেড়ার কাছে মাদক চোরাচালানের সময় বাংলাদেশি ভেবে মিলনকে গুলি করা হয়। পরে আহত অবস্থায় সে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে।

মিলনের নানা মকবুল হোসেন জানান, দীর্ঘদিন ধরে তাঁর মেয়েজামাই এবং তিন নাতি ভারতে বসবাস করছে। তারা ভারতের নাগরিক। মিলন ভারতে গুলিবিদ্ধ হয়ে তাঁর বাড়িতে আসে। মিলনের অবস্থার অবনতি হলে রবিবার ভোরে চিকিৎসার জন্য তাকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

নাগেশ্বরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন কবির জানান, গুলিবিদ্ধ তরুণের নানার বাড়ি ভিতরবন্দ ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দোয়ালিপাড়া গ্রামে। সেখান থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: চলে গেলেন রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক

Continue Reading

গান-বাজনা

চলে গেলেন রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক

Published

on

ঋদি হক: ঢাকা

আবার দুঃসংবাদ! এ বারে চলে গেলেন প্রতিথযশা রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক। সকালবেলা বিছানা ছাড়ার পরেই টিভিতে নিউজ চ্যানেলের স্ক্রলে সংবাদ নজরে এল। প্রয়াত রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক। তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৯ বছর।

Loading videos...

বুড়িগঙ্গার দক্ষিণ তীরে কেরাণীগঞ্জ এলাকা, যেখানে মা-বাবা এবং চাচা দেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের অগ্রপথিক, বরেণ্য রবীন্দ্র গবেষক এবং ছায়ানটের প্রতিষ্ঠাতা ওয়াহিদুল হক স্থায়ী বসতি গড়েছেন। সেই কেরাণীগঞ্জেই শেষ ঘুমে গেলেন মিতা। মা-বাবার কবরের পাশেই তাঁকে সমাহিত করা হয়েছে।

পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে ‘ছায়ানট’-এর শিল্পীদের নিয়ে ৬০ দশকে ঢাকার রমনা বটমূলে ‘এসো হে বৈশাখ এসো’ অনুষ্ঠান শুরু করেছিলেন বরেণ্য রবীন্দ্রগবেষক, গায়ক, সংগঠক এবং সাংবাদিক ওয়াহিদুল হক। ‘ছায়ানট’-এর প্রতিষ্ঠাতাও তিনি। বাংলাদেশে রবীন্দ্রচর্চা এবং শুদ্ধ রবীন্দ্রসংগীতের প্রসারে আমৃত্য নিবেদিত ছিলেন ওয়াহিদুল হক। সেই ওয়াহিদুল হকের ভ্রাতুষ্পুত্রী মিতা হক। চাচার কাছেই সংগীতে হাতেখড়ি মিতার।  

রবিবার সকাল ৬টা ২০ মিনিটে প্রয়াত হন মিতা। কয়েক দিন আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে সর্বশেষ দিন চারেক আগে করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। কিডনির রোগে আক্রান্ত মিতা হকের নিয়মিত ডায়ালিসিস হত। তবে ‘ছায়ানট’-এ নিয়মিতই আসতেন। রবিবার ভোর রাতে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানেই চিচিৎসাধীন অবস্থায় প্রয়াত হন মিতা।

কথা অনুযায়ী বেলা ১১টা নাগাদ তাঁর মরদেহ নিয়ে আসা হয় ‘ছায়ানট’-এ। খবর পেয়ে এখানেই ছুটে আসেন তাঁর গুণমুগ্ধরা। তাঁরা ফুল আর অশ্রুতে শেষ বিদায় জানান মিতা হককে। ‘সুরতীর্থ’ নামের একটি সংগীতপ্রতিষ্ঠান ছিল তাঁর। সেখানে পরিচালক ও প্রশিক্ষক হিসেবে যুক্ত ছিলেন। তবে ‘ছায়ানট’ ছিল তাঁর হৃদস্পন্দন। এই সংগঠনটির ছায়াতেই নিজের বিকাশ ও বেড়ে ওঠা। এক পর্যায়ে ‘ছায়ানট’-এর রবীন্দ্রসংগীত বিভাগের প্রধান ছিলেন তিনি। দায়িত্ব পালন করেছেন রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের সহ-সভাপতি হিসেবে।

শিল্পীর জন্ম ১৯৬৩ সালে। প্রথমে চাচা ওয়াহিদুল হক এবং পরে ওস্তাদ মোহাম্মদ হোসেন খান ও সনজীদা খাতুনের কাছে গান শেখেন। ১৯৭৪ সালে তিনি বার্লিন আন্তর্জাতিক যুব ফেস্টিভালে যোগ দেন। ১৯৭৭ সাল থেকে বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে নিয়মিত সংগীত পরিবেশন করেছেন। তাঁর স্বামী অভিনেতা ও নির্দেশক খালেদ খান বেশ ক’ বছর আগে প্রয়াত হন। একমাত্র মেয়ে জয়িতাও রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী। তাঁর স্বামী অভিনেতা মুস্তাফিজ শাহিন।

১৯৯০ সালে ‘বিউটি কর্নার’ থেকে প্রকাশিত হয় মিতা হকের প্রথম রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবাম ‘আমার মন মানে না’। সংগীতায়োজনে ছিলেন সুজেয় শ্যাম। সব মিলিয়ে প্রায় ২০০টি রবীন্দ্রসংগীতে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। তাঁর একক অ্যালবামের সংখ্যা ২৪টি, যার ১৪টি ভারত থেকে ও ১০টি বাংলাদেশ প্রকাশ পায়। শিল্পী মিতা হক ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। সংগীতে অসামান্য অবদানের জন্য ২০২০ সালে একুশে পদক পান।

আরও পড়ুন: বরেণ্য সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার আর নেই

Continue Reading

বাংলাদেশ

বরেণ্য সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার আর নেই

Published

on

ঋদি হক: ঢাকা

বরেণ্য সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার (Hassan Shahriar) আর নেই। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ রাজধানীর ইমপালস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গিয়েছেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার সাবেক নির্বাহী সম্পাদক হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। তিনি কমনওয়েলথ জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনেরও (সিজেএ) দু’ দফায় সভাপতি ছিলেন।  

Loading videos...

পারিবারিক সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে হাসান শাহরিয়ারের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে প্রথমে ল্যাবএইড, আনোয়ার খান হাসপাতাল এবং সর্বশেষ রাজধানীর ইমপালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কোভিড ১৯-এর নানা  উপসর্গ ছিল তাঁর। তবে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সম্পাদক মইনুল আলম জানান, সপ্তাহ খানেক আগে করানো করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছিল। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুসে সংক্রমণ-সহ বিভিন্ন জটিল রোগে ভুগছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী-সহ বিশিষ্টজন ও সংগঠনের শোক

প্রবীণ সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস ইউং থেকে পাঠানো এক শোকবার্তায় বলা হয়, এ দেশের সাংবাদিকতায় হাসান শাহরিয়ারের ভূমিকা স্মরণীয় হয়ে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিদেশমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেন, সাংবাদিকতায় হাসান শাহরিয়ারের অবদান এ দেশের মানুষ চির দিন স্মরণ রাখবে।

‘ইন্ডিয়ান মিডিয়া করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ’-এর (ইমক্যাব) সদস্য হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সংগঠনের সভাপতি বাসুদেব ধর ও সাধারণ সম্পাদক মাছুম বিল্লাহ। সংগঠনের তরফে এক শোকবার্তায় মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়েছে। শোকবার্তায় বলা হয়, এ দেশে সুস্থ ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার বিকাশে যাঁরা অবদান রেখেছেন হাসান শাহরিয়ার তাঁদের অন্যতম। তাঁর মৃত্যুতে সাংবাদিকতা জগতের এক অপূরণীয় ক্ষতি হল।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে এক শোকবার্তায় হাসান শাহরিয়ার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে মরহুমের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়েছে। এ ছাড়াও তাঁর মৃত্যুতে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন গভীর শোক প্রকাশ করেছে।

সাংবাদিকতা শুরু ৬০-এর দশকে

হাসান শাহরিয়ার ১৯৪৪ সালের ২৫ এপ্রিল সুনামগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ৬০-এর দশকে দৈনিক ইত্তেফাক-এ সাংবাদিকতা শুরু করেন। এর পর পাকিস্তানের করাচিতে পড়াশোনা ও দৈনিক ডন পত্রিকায় কাজ করেন। সেখানে ইত্তেফাক-এরও প্রতিনিধি ছিলেন। সত্তরের দশকের শুরুতে ঢাকায় এসে দৈনিক ইত্তেফাক-এ কাজ শুরু করেন। ২০০৮ সালে নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে অবসর নেন।

হাসান শাহরিয়ার আন্তর্জাতিক সাময়িকী নিউজ উইক, আরব নিউজ, ডেকান হেরাল্ড-সহ বিভিন্ন পত্রিকায় বাংলাদেশের প্রতিনিধি ছিলেন। কমনওয়েলথ জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের (সিজেএ) আন্তর্জাতিক সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৩-৯৪ সালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ছিলেন। শনিবার বাদ আসর জাতীয় প্রেস ক্লাবে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এ ছাড়াও হাসান শাহরিয়ারের মৃত্যুতে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন গভীর শোক প্রকাশ করেছে।

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দেশ9 mins ago

Kumbh Mela 2021: করোনাবিধিকে শিকেয় তুলে এক লক্ষ মানুষের সমাগম, আজ কুম্ভের প্রথম সাহি স্নান হরিদ্বারে

দেশ47 mins ago

Coronavirus Second Wave: স্বস্তির খবর এল পঞ্জাব থেকে, নতুন সংক্রমণকে ছাড়াল সুস্থতা, কমল সক্রিয় রোগী

দেশ1 hour ago

Coronavirus Second Wave: মহারাষ্ট্র লকডাউনের পথে গেলেও সংক্রমণের দাপট কিছুটা থিতু হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে

ক্রিকেট10 hours ago

IPL 2021: নীতীশ-রাহুলের ব্যাটে ভর করে হায়দরাবাদকে হারাল কেকেআর

ভিডিও12 hours ago

Bengal Polls 2021: বিধাননগরে মুখোমুখি টক্কর সুজিত বসু-সব্যসাচী দত্তর, ময়দানে জোট প্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

বাংলাদেশ12 hours ago

পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে গুলিবিদ্ধ মিলন বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি

ধর্মকর্ম13 hours ago

অন্নপূর্ণাপুজো: উত্তর কলকাতার পালবাড়ি ও বালিগঞ্জের ঘোষবাড়িতে চলছে জোর প্রস্তুতি

রাজ্য13 hours ago

Bengal Corona Update: নমুনা পরীক্ষার সঙ্গেই তাল মিলিয়ে বাড়ল বাংলার দৈনিক করোনা সংক্রমণ

রাজ্য2 days ago

Bengal Polls Live: সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৭৫ শতাংশের বেশি

ক্রিকেট2 days ago

IPL 2021: বলে ভেলকি হর্শল পটেলের, ব্যাটে জ্বলে উঠলেন ডেভিলিয়ার্স, বেঙ্গালুরুর কষ্টার্জিত জয়

দেশ2 days ago

Corona Update: রেকর্ড তৈরি করে দেড় লক্ষের দিকে এগিয়ে গেল দৈনিক সংক্রমণ, তবুও কম মৃত্যুহারে কিছুটা স্বস্তি

বিদেশ2 days ago

Coronavirus Infection: কোনো বস্তু থেকে করোনায় সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা ১০ হাজারে মাত্র ১, জানাল মার্কিন সিডিসি

রাজ্য2 days ago

Bengal Polls 2021: বাহিনীর গুলিতে হত ৪, শীতলকুচি যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

রাজ্য1 day ago

Bengal Polls 2021: কোচবিহারে ৩ দিনের জন্য রাজনীতিবিদদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করল নির্বাচন কমিশন

রাজ্য2 days ago

বিজেপি ‘গোপন’ অডিয়ো টেপ নিয়ে হইচই করলেও প্রশান্ত কিশোর অনড় নিজের মন্তব্যেই

প্রবন্ধ3 days ago

Bengal Polls 2021: কোচবিহার জেলার ন’টি বিধানসভা কেন্দ্রে লড়াইয়ে কে কোথায়

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে