উত্তর-পূর্ব ভারতের সঙ্গে দ্রুত সড়ক-রেল সংযোগ এবং দু’ দেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্প্রসারণে উদ্যোগ

0

ঋদি হক: ঢাকা

কাজে যোগ দিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের নতুন হাই কমিশনার (Indian High Commissioner) বিক্রম দোরাইস্বামী (Vikram Doraiswami)। একের পর এক কর্মসূচিতে ব্যস্ত তিনি। সেই ব্যস্ততারই অঙ্গ ছিল বাংলাদেশের (Bangladesh) তথ্যমন্ত্রী (Information Minister) ড. হাসান মাহমুদ (Dr. Hasan Mahmud) ও বিদেশ সচিব (Foreign Secretary) মাসুদ বিন মোমেনের (Masud Bin Momen) সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ। মঙ্গলবার এই দু’টো গুরুত্বপূর্ণ কাজ সারলেন দোরাইস্বামী।

তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে নবনিযুক্ত হাই কমিশনার আশ্বাস দিয়েছেন বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে তিনি কাজ করবেন। আলোচনাকালে চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর ব্যবহার, দু’ দেশের মধ্যে রেল যোগাযোগের আরও প্রসার, গণমাধ্যমের পরিকাঠামোগত উন্নয়ন, চলচ্চিত্রের আমদানি-রফতানি, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে শ্যাম বেনেগালের বায়োপিক, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রভৃতি প্রসঙ্গে উঠে আসে।

একই দিনে বাংলাদেশের বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ভারতের হাইকমিশনার। সেই বৈঠকে দু’ দেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্প্রসারণের বিষয়টি আলোচিত হয়।

ব্যস্ত সময় পার করছেন দোরাইস্বামী        

ভারতের নবনিযুক্ত হাই কমিশনার তাঁর কর্মস্থলে যোগদানের পর থেকেই ব্যস্ত সময় পার করছেন। কাজের ক্ষেত্রে তাঁর আন্তরিকতার কোনো কমতি নেই। ৪ অক্টোবর তিনি দিল্লি থেকে আগরতলায় পৌঁছোন। পরদিন ৫ অক্টোবর সাব্রুম-সহ বেশ কয়েকটি স্থান ভ্রমণ করেন এবং বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরও জোরদার করার বিষয়ে ত্রিপুরায় মত বিনিময় করেন। ৬ অক্টোবর সড়কপথে আখাউড়া হয়ে  ঢাকায় পৌঁছোন।

৮ অক্টোবর অপরাহ্নে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে তাঁর পরিচয়পত্র পেশ করেন। সেখান থেকে সরাসরি পৌঁছে যান গুলশানে ‘ইন্ডিয়া হাউজ’-এ। এখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে মত বিনিময় করেন। দোরাইস্বামীকে সব সময় উৎফুল্ল মনে হয়েছে। বাংলাদেশে নবাগত এই কূটনীতিক বিরামহীন কাজের মানুষ।

প্রেস মিটের শুরুতেই বাংলায় বলেন, “আমি থোড়া থোড়া বাংলা বলতে পারি। এবং বুঝিও। খুব তাড়াতাড়ি বাংলাভাষা শিখে নেব, ইনসাল্লাহ।” এর পর তিনি বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত ধানমন্ডির জাদুঘরের কথা বলেন আবেগের সঙ্গে।

মঙ্গলবার এক দিনেই দু’টো গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি সম্পন্ন করেন তিনি। তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ এবং বিদেশসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ সেরে নেন।

তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা

তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠককালে ভারতের হাই কমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বলেছেন, দু’দেশের মধ্যে মৈত্রীর সেতু আরও সুদৃঢ় করাই তাঁর লক্ষ্য। বৈঠককালে চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর ব্যবহারের কথাও ওঠে আসে। দোরাইস্বামী বলেনন, বন্দর দু’টি ব্যবহার করে উভয় দেশই লাভবান হতে পারে। এই প্রসঙ্গেই তিনি জানান, দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর সঙ্গে সড়ক ও রেলপথে বাংলাদেশের দ্রুত সংযোগ চায় ভারত। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কুলাউড়া-শাহবাজপুর থেকে অসমের করিমগঞ্জের মৈশাষন রেলপথে যুক্ত হবে।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে এক ভারতীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। ২০১৭ সালের ১৫ নভেম্বর বাংলাদেশ রেলপথ মন্ত্রকের সঙ্গে ভারতীয় নির্মাণসংস্থা কালিন্দী রেল কনস্ট্রাকশনের চুক্তি হয়। প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৭৮ কোটি টাকা। তার মধ্যে ভারতের ঋণ হিসেবে পাওয়া যাবে ৫৫৬ কোটি টাকা এবং বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ১২২ কোটি টাকা জোগান দেওয়া হবে। দু’ বছরের মধ্যে ৫২.৫৪ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলপথের নির্মাণকাজ শেষ হবে। পাশাপাশি নির্মাণ করা হবে ৫৯টি ছোটো-বড়ো সেতু ও ছ’টি স্টেশন (জুড়ী, দক্ষিণভাগ, কাঁঠালতলী, বড়লেখা, মুড়াউল ও শাহবাজপুর)। ১৯১০ সালে চালু হওয়া কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশন ২০০২ সালে বিএনপি সরকারের সময় বন্ধ হয়ে যায়।

তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এসে বিক্রম দোরাইস্বামী আরও বলেছেন, চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর ব্যবহার করলে উভয় দেশ উপকৃত হবে। বিশেষ করে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো যাতে চট্টগ্রাম বন্দর সহজে ব্যবহার করতে পারে, সে বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

সাংস্কৃতিক সহযোগিতা

এ ছাড়া দু’ দেশের সাংবাদিকদের সফর ছাড়াও, বিশেষ করে নারী সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ আদান-প্রদানসহ গণমাধ্যম ক্ষেত্রে পরিকাঠামোগত উন্নয়ন এবং চলচ্চিত্রের আমদানি-রফতানি আলোচনা হয়েছে।

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের বহুমাত্রিকতার কথা উল্লেখ করে ড. হাসান মাহমুদ বলেন, “ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক অকৃত্রিম ও অতুলনীয়। এর সঙ্গে অন্য কোনো দেশের সম্পর্কের তুলনা চলে না। আমাদের দু’দেশের সম্পর্ক রক্তের অক্ষরে লেখা। কারণ আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সৈন্যরা রক্ত দিয়েছেন। এক কোটি মানুষকে ভারত আশ্রয় দিয়েছে। বাংলাদেশ যত দিন থাকবে, তত দিন এটি ইতিহাসের পাতায় লিপিবদ্ধ থাকবে।”

সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তথ্যসচিব কামরুন নাহার ও মন্ত্রীর দফতরের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রী বলেন, ভারতীয় চলচ্চিত্রকার শ্যাম বেনেগালের পরিচালনায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক চলচ্চিত্রটি মুজিববর্ষের মধ্যেই সমাপ্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশি পরিচালক ও ভারতীয় সহ-পরিচালকের তত্ত্বাবধানে মুক্তিযুদ্ধের ওপরে যৌথ ভাবে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ নিয়েও আলোচনা হয়েছে। ভারতের ত্রিপুরা ও মেঘালয়ে বিটিভি এবং বাংলাদেশের প্রাইভেট টেলিভিশন চ্যানেলগুলো দেখা গেলেও পশ্চিমবাংলা-সহ সমগ্র ভারতে দেখার ব্যবস্থা করা নিয়েও আলোচনা হয়েছে। 

বিষয় দু’ দেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণ

বাংলাদেশের বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে আলোচনার সময় ভারতের হাই কমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, বাংলাদেশ দু’ বছরে ভারতে ১০০ কোটি ডলারের পণ্য রফতানি করেছে। বাংলাদেশ-ভারতের বাণিজ্য আরও সম্প্রসারণ করার ব্যাপারে তিনি উদ্যোগী হবেন বলে আশ্বাস দেন হাই কমিশনার।

এই সাক্ষাতের সময়ই বিদেশ সচিবকে হাই কমিশনার জানান, বাংলাদেশে কয়েক ধরনের পেঁয়াজ রফতানির ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছে ভারত। আগামী বছরের মার্চ মাসের মধ্যে ২০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ বাংলাদেশে রফতানি করা হবে বলে তিনি জানান। এ ব্যাপারে যে ভারতের আন্তরিকতার কোনো ঘাটতি নেই, সে কথা জানিয়ে বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, বেশ কয়েকটি স্থলবন্দর বন্ধ থাকায় চেন্নাই থেকে জাহাজে করে পেঁয়াজ রফতানি করবে ভারত।  বাংলাদেশ-ভারত বাণিজ্য সমস্যা নিয়ে দুই দেশের কর্মকর্তা পর্যায়ে আলোচনায় বসার কথাও জানান ভারতীয় হাইকমিশনার।

অপর দিকে বাংলাদেশের বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ-ভারত যৌথ নদী কমিশনের (জেআরসি) বৈঠক চলতি বছরেই অনুষ্ঠিত হবে।  দুই দেশের মধ্যে এয়ার বাবল চুক্তির জন্য কাজ চলছে বলেও জানালেন তিনি। নবনিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামীর সঙ্গে বৈঠক শেষে এ সব কথা জানান বিদেশ সচিব।

মাসুদ বিন মোমেন জানান, বাংলাদেশ-ভারত যৌথ নদী কমিশনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে দুই দেশের জলসচিব পর্যায়ে বৈঠক হবে। তিনি আরও বলেন, “আমরা এয়ার বাবল চালুর খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছি। সিভিল অ্যাভিয়েশন এ বিষয়ে কাজ করছে।”

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

সীমান্তে একটি মৃত্যুও কাঙ্ক্ষিত নয়, বললেন নবনিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন