পাবনার রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রে বসল প্রথম চুল্লি

0
Rooppur nuclear power plant
রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র।

ঋদি হক: ঢাকা

পরমাণু শক্তির দেশ হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলছে বাংলাদেশ। শেখ হাসিনার হাত ধরে আলোকিত হচ্ছে। শান্তির জন্য পরমাণু শক্তি ব্যবহার করছে। রবিবার পাবনার রূপপুরে দেশের প্রথম পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রে বসল প্রথম চুল্লি। দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আরও একটি পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের স্থান খোঁজা হচ্ছে।

রূপপুরের এই পরমাণু চুল্লি নির্মিত হয়েছে রাশিয়ায়। ভিভিআর-১২০০ মডেলের এই রিঅ্যাক্টরে পরমাণু জ্বালানি পুড়িয়ে মূল শক্তি উৎপাদন হবে এবং ১২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হবে। কর্তৃপক্ষের আশা, যে ভাবে পরিকল্পনা করা হয়েছে তাতে রূপপুরের প্রথম ইউনিট ২০২৩ সালের মধ্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করতে পারবে।

রবিবার সকাল ১১টা। রূপপুর প্রান্তে উপস্থিত বাংলাদেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এবং রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পরমাণু শক্তি কর্পোরেশনের (রোসাটম) মহাপরিচালক অ্যালেক্সি লিখাচেভ। বিশাল প্যান্ডেল। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পুরো বাংলাদেশের চোখ তখন রূপপুরে। টিভিতে লাইভ অনুষ্ঠান চলছে।

কুপি-হারিকেনের বাংলাদেশ পরমাণু বিদ্যুৎ উৎপাদনের পথে

রূপপুর তখন হাসছে। অনেকে আবেগতাড়িত। কুপি-হারিকেনের বাংলাদেশ শেখ হাসিনার হাত ধরে মহাকাশ থেকে সমুদ্রতল জয় করে এগিয়ে চলেছে। রূপপুর জয়ের আনন্দধারার দিনটি যেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের দিন। বসতে চলেছে বহুল প্রতীক্ষিত পরমাণু চুল্লি অর্থাৎ নিউক্লিয়ার রিঅ্যাক্টর প্রেসার ভেসেল। বিজ্ঞানীরা যাকে পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের হৃৎপিণ্ড বলে থাকেন।

হাস্যোজ্জ্বল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথম চুল্লি বসানোর কাজের শুভ উদ্বোধন করে বলেন, বঙ্গবন্ধু এই রূপপুরকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছিলেন। বাংলাদেশ অ্যাটমিক অ্যানার্জি কমিশন গঠন-সহ পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “জাতির পিতাও অনেক উদ্যোগ নিয়েছিলেন। ’৭৫ সালে জাতির পিতাকে হত্যার পর এই উদ্যোগটাই থেমে যায়। যদি জাতির পিতা বেঁচে থাকতেন তা হলে এটা আমরা আরও অনেক আগে করতে পারতাম।”

শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, “পরমাণু শক্তি ব্যবহারের মানচিত্রে বাংলাদেশ স্থান করে নিয়েছে। পরমাণু শক্তি আমরা শান্তির জন্য ব্যবহার করছি। এখানে উৎপাদিত বিদ্যুৎ গ্রাম পর্যায়ে মানুষের কাছে যাবে। মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নতি হবে।”

রূপপুরের প্রথম ইউনিটে ২০২৩ সালে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরুর কথা রয়েছে। এই বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে প্রাথমিক ভাবে ১ লক্ষ ১৩ হাজার কোটি টাকারও বেশি খরচ ধরা হয়েছে।

একক বৃহত্তম পরিকাঠামো প্রকল্প

বাংলাদেশে একক প্রকল্প হিসেবে এটি সব চেয়ে বড়ো কোনো পরিকাঠামো প্রকল্প। যেখানে অতিমারির মধ্যেও প্রকল্প বাস্তবায়নে ২৫ হাজার শ্রমিক দিনরাত কাজ করেছেন। কাজ সম্পন্ন করার পর রূপপুর কেন্দ্রের দু’টো ইউনিট থেকে ২ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে। শেখ হাসিনা বলেন, “আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। অর্থাৎ আমরা পরমাণু শক্তির অংশ হিসেবে বাংলাদেশকে একটা স্থান করে দিতে পারলাম।”

রূপপুর কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটের জন্য রিঅ্যাক্টর প্রেসার ভেসেলটি রাশিয়া থেকে জলপথে ১৪ হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে গত বছরের অক্টোবরে বাংলাদেশে পৌঁছোয়। সেটি স্থাপনের জন্য এক বছর ধরে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো প্রস্তুত করা হয়। রিঅ্যাক্টর প্রেসার ভেসেল পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্রের সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ, যেখানে মূল জ্বালানি থাকে। এখান থেকেই বিদ্যুৎ সরবরাহ হয়।

বিদ্যুৎকেন্দ্র তৈরিতে সহযোগিতা দিচ্ছে রাশিয়ার পরমাণু শক্তি কর্পোরেশন তথা রোসাটম। তারাই প্রয়োজনীয় জ্বালানি সরবরাহ করবে এবং ইউরেনিয়াম জ্বালানি ব্যবহারের পর বর্জ্য ফেরত নিয়ে যাবে।

শেখ হাসিনা বলেন। “আমরা ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছি। এ সব জায়গায় শিল্পায়ন হবে। যত বেশি শিল্পায়ন হবে তত বেশি বিদ্যুতের চাহিদা বেড়ে যাবে। এবং সেটাকে মাথায় রেখেই বিদ্যুৎ উৎপাদন এবং সঞ্চালনেরর পরিকল্পনা আমরা নিয়েছি।”

আরও পড়তে পারেন

ভাসান চরে রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তায় বাংলাদেশ-রাষ্ট্রপুঞ্জ মউ স্বাক্ষর

সৌদির বিমানবন্দরে ড্রোন হামলায় ৩ বাংলাদেশি-সহ আহত ১০

ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রীর ৫০ বছর উপলক্ষ্যে রোকেয়া সুলতানার একক শিল্পকর্ম প্রদর্শনী

দেড় বছর পর আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য ট্যুরিস্ট ভিসা চালু হচ্ছে ভারতে

১৭ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা

বর্তমান সরকারই নির্বাচনকালীন সরকারের দায়িত্ব পালন করবে, বললেন বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী

দুর্গোৎসব বাংলাদেশে: মহালয়ায় দেশ জুড়ে নানা অনুষ্ঠান, দেবী দুর্গাকে আবাহনের প্রস্তুতি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন