মজুরি বাকি, খুলনার ৯টি পাটকলের উৎপাদন বন্ধ করে দিলেন শ্রমিকরা

সোমবার সকাল ছ'টার শিফটে কোনো শ্রমিকই আর কাজে যোগ দেননি। বকেয়া বেতনের দাবিতে তাঁরা পাটকলের গেটের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

0
খালিশপুর জুটমিলের সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন শ্রমিকরা। ছবি প্রথম আলো

ওয়েবডেস্ক: কোনো পাটকলের মজুরি বাকি আট মাস কারো আবার ১১ মাস। বকেয়া বেতনের দাবিতে খুলনা অঞ্চলের নয়টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের উৎপাদন বন্ধ করে দিলেন শ্রমিকরা।

সোমবার সকাল ছ’টার শিফটে কোনো শ্রমিকই আর কাজে যোগ দেননি। বকেয়া বেতনের দাবিতে তাঁরা পাটকলের গেটের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

বাংলাদেশ জুট মিল কর্পোরেশনের (বিজেএমসি) খুলনা অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক সাজ্জাদ হোসেন বলেন, বকেয়া বেতনের দাবিতে রবিবার দুপুর থেকেই কারখানা উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছেন শ্রমিকরা। প্রথমে স্টার জুটমিলে উৎপাদন বন্ধ করে দেন শ্রমিকরা। এর পর ধারাবাহিক ভাবে অন্যান্য জুট মিলেও কাজ বন্ধ হতে থাকে।

বিক্ষোভকারী শ্রমিকদের একাংশ খালিশপুরে বিআইডিসি রোডে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধও করে।

আরও পড়ুন ফণী নিয়ে মোদীর সঙ্গে বৈঠকে ‘না’ রাজ্যের

শ্রমিক সংগঠনগুলির অভিযোগ, পাটমন্ত্রক এবং বিজেএমসির সঙ্গে বৈঠকে ২৫ এপ্রিলের মধ্যে শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি শোধ করে দেওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু মাস পেরিয়ে গেলেও মজুরি দেওয়া হয়নি। বেতন না পেয়ে শ্রমিকরা তাঁদের পরিবার নিয়ে চরম দুরবস্থার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। বাধ্য হয়ে তাঁরা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এর আগে বকেয়া মজুরি-সহ নানা দাবি নিয়ে ২ এপ্রিল ৭২ ঘণ্টার ধর্মঘট পালন করে শ্রমিকরা। পরে ১৫ এপ্রিল থেকে টানা ৯৬ ঘণ্টার ধর্মঘট শুরু হয়। পরে শ্রমমন্ত্রী এবং বিজেএমসি চেয়ারম্যানের বৈঠকের আশ্বাসে ধর্মঘট তুলে নেন শ্রমিকরা।

খুলনার রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলে স্থায়ী শ্রমিকের সংখ্যা ১৩ হাজার ১৭০ জন এবং বদলি শ্রমিকের সংখ্যা ১৭ হাজার ৪১৩ জন।

সূত্র : প্রথম আলো ও নিউজ২৪বিডি

(দিনের সেরা খবরগুলি পড়তে ক্লিক করুন এখানে)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here