বাংলাদেশে আট দিন শিথিল লকডাউন, ঈদের পর ফের ১৪ দিনের কঠোর লকডাউন

0

ঋদি হক: ঢাকা

কোরবানির ঈদকে সমানে রেখে লকডাউন শিথিলের ঘোষণায় স্বস্তি ফিরে এসেছে সাধারণ মানুষের। ২১ জুলাই পালিত হবে ঈদ। সেই উপলক্ষ্যে ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। ঈদের পর ২৩ জুলাই থেকে যথারীতি ১৪ দিনের কঠোর লকডাউনের পথে হাঁটবে বাংলাদেশ।

ঈদ উপলক্ষ্যে পশুর হাট, দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ঢাকায় পশু নিয়ে আসা, স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে গ্রামের বাড়ি পৌঁছোনো ইত্যাদি বিষয় বিবেচনা করে সাত দিনের জন্য লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে।

ঢাকার বিভিন্ন স্থানে কোরবানির পশুর হাট বসানোর কাজ জোরকদমে চলছে। স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামের বাড়ি যাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন অগুনতি মানুষ। ঢাকায় কর্মরত এমন অনেকেই রয়েছেন, যাঁরা বছরের এই উৎসবটি ঘিরে গ্রামের বাড়িতে গিয়ে থাকেন।

Shyamsundar
গণপরিবহণে অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখার স্বাস্থ্যবিধি।

সোমবার বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এই তথ্য জানিয়ে বলেছে, এ সময় বন্ধ থাকবে সব ধরনের বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। ভার্চুয়ালি চলবে সরকারি অফিস। খোলা থাকবে সব ধরনের মার্কেট, দোকানপাট ও শপিং মল। কোরবানির ঈদে মানুষের চলাচল ও পশুর হাটে বেচাকেনার বিষয় বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। অর্ধেক আসন ফাঁকা রাখার স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহণ চলবে।

ঈদে লঞ্চ চলাচল করবে কি না সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক যে কমিটি রয়েছে, তারাই লঞ্চ চলাচলের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানাতে পারেন।

আগামী ১৭ জুলাই থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ট্রেন যোগে ঢাকায় গোরু আনা শুরু হবে। চলমান লকডাউন ১৪ জুলাই রাত ১২টা পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। যে ক’দিন লকডাউন শিথিল থাকবে, সে ক’দিন স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক আসন ফাঁকা রেখে চলবে সকল গণপরিবহন। ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপ সামাল দিয়ে যাত্রা নির্বিঘ্ন করতেই সরকারের তরফে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

আগামী ২১ জুলাই বাংলাদেশে উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। রবিবার দেশের আকাশে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই ঈদকে সামনে রেখে সাত দিনের জন্য লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্তে সাধারণ মানুষের মাঝে স্বস্তি দেখা দিয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনা-বন্দি ঢাকার ঐতিহাসিক রথযাত্রা হল না, ভক্তদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন