Connect with us

বাংলাদেশ

চলে গেলেন ভাষাসৈনিক ও শিল্পকলার অন্যতম নক্ষত্র মুর্তজা বশীর

শনিবার সকাল ৯টা ১০ মিনিটে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মুর্তজা বশীর।

Published

on

ঋদি হক: ঢাকা

ফুসফুস ও কিডনি জটিলতার পাশাপাশি তার হৃদরোগের জটিলতাও ছিল। এ সব জটিল ব্যাধির সঙ্গে যখন যুদ্ধ করছিলেন রঙ-তুলির এই শিল্পী, তখনই ৮৮ বছর বয়সি নান্দনিক চিত্রশিল্পীর অপেক্ষাকৃত দুর্বল দেহে সহজেই জায়গা করে নেয় করোনা। সব মিলিয়ে অনেক কাহিল করে ফেলে বাংলাদেশের শিল্পকলার অন্যতম নক্ষত্র মুর্তজা বশীরকে। এত কিছু জটিলতার কাছে শেষ পর্যন্ত হার মানল তাঁর শরীর। অবশেষে শনিবার সকাল ৯টা ১০ মিনিটে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মুর্তজা বশীর (Murtaja Baseer)। শনিবার অপরাহ্নে ঢাকার বনানী কবরস্থানে শিল্পীকে সমাহিত করার কথা জানালেন মেয়ে মুনীর বশীর।

বাংলার জ্ঞানতাপস ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর কনিষ্ঠ পুত্র মুর্তজা বশীরের জন্ম ১৯৩২ সালের ১৭ আগস্ট। জন্মবার্ষিকীর দু’দিন আগেই সব কিছু ছেড়ে চলে গেলেন বিনয়ী এই চিত্রশিল্পী। তিনি ছিলেন বহু গুণের অধিকারী। ভাষা-সহ বাঙালির প্রতিটি আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন মুর্তজা বশীর। ভারত-বাংলাদেশের প্রতিটি মানবিক আন্দোলনের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়। এ সব করতে গিয়ে কারাবাসও করতে হয়েছে।

মুর্তজা বশীরের শিক্ষাজীবন

মুর্তজা বশীরের শিক্ষাজীবন শুরু হয় ঢাকার নবকুমার ইনস্টিটিউশনে। এর পর বগুড়ার করোনেশন ইনস্টিটিউশন। তার পরে ঢাকা গভর্নমেন্ট ইনস্টিটিউট অব আর্টস (বর্তমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ) ও কলকাতা আশুতোষ মিউজিয়ামে। ইতালির ফ্লোরেন্সে আকাদিমিয়া দ্য বেল্লি আর্টিতে চিত্রকলা ও ফ্রেস্কো বিষয়ে ও পরে প্যারিসের ইকোলে ন্যাশিওনাল সুপিরিয়র দ্য বোজার্ট এবং আকাদেমি গোয়েৎসে-তে মোজাইক ও ছাপচিত্র বিষয়ে অধ্যয়ন করেন মুর্তজা বশীর।

দুই জ্ঞানতাপস – মুর্তজা বশীর ও আনিসুজ্জামান।

১৯৭৮ সালে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আমন্ত্রণে এক মাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ৮টি রাজ্যের বিভিন্ন জাদুঘর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রদর্শন করেন তিনি। পরে আইসিসিআর-এর (ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশনস) ফেলোশিপে তিনি বাংলার শিল্পঐতিহ্যের উপর গবেষণার জন্য ভারতের বিভিন্ন জাদুঘর প্রদর্শন করেন। পরে মন্দির-টেরাকোটাশিল্প বিষয়েও তিনি ভারতে গিয়ে গবেষণা করেন।

কর্মজীবন

একাধারে অনেক পরিচয় বশীরের। তিনি চিত্রশিল্পী, তিনি কবি ও কাহিনিকার, তিনি গবেষক, মুদ্রা বিশেষজ্ঞ, আবার চলচ্চিত্র নির্মাতাও।

১৯৫৫ সালে ঢাকার নবাবপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ড্রইং শিক্ষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন মুর্তজা বশীর। ১৯৭৩ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে সহকারী অধ্যাপক পদে যোগ দেন। ১৯৯৮ সালে অধ্যাপক হিসেবে অবসরগ্রহণ করেন। বাহান্নর ভাষা আন্দোলন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ও নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে একেবারে সামনের সারিতে ছিলেন প্রতিবাদমুখর বশীর। তার আগে ১৯৫০ সালে কমিউনিস্ট পার্টির ডাকে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের ময়মনসিংহের হাজং-এ, ভারতের তেলেঙ্গনায় ও পশ্চিমবঙ্গে দক্ষিণ ২৪ পরগণার কাকদ্বীপে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। কাকদ্বীপে প্রচারাভিযান চলা অবস্থায় গ্রেফতার হন মুর্তজা বশীর। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঁচ মাস জেল খাটেন তিনি।

১৯৫২ সালে কলকাতা থেকে প্রকাশিত সুভাষ মুখোপাধ্যায় সম্পাদিত ‘পরিচয়’ পত্রিকায় ভাষা আন্দোলনের ওপর ‘পারবে না’ শিরোনামে তাঁর কবিতা ছাপা হয়। কলকাতা থেকে প্রকাশিত একুশের স্মরণিকায় ‘ওরা প্রাণ দিল’ কবিতাটি পুনর্মুদ্রিত হয়।

ভাষা, স্বাধীনতা ও অন্যান্য আন্দোলন

১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দোলনে তিনি সক্রিয় ভাবে যোগ দেন। ভাষা আন্দোলনের শহিদ আবুল বরকতকে রক্তাক্ত অবস্থায় অন্যদের সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যান তিনি। ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের ছাদে কালো পতাকা উত্তোলনকারীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন মুর্তজা বশির। ২১ ফেব্রুয়ারির ঘটনার ওপর ‘রক্তাক্ত ২১শে’ শিরোনামে ১৯৫২ সালে তিনি যে লিনোকাট চিত্রটি আঁকেন, সেটি ১৯৫৩ সালে হাসান হাফিজুর রহমান সম্পাদিত ‘একুশে ফেব্রুয়ারি’ শীর্ষক সংকলনে মুদ্রিত হয়। এশিয়াটিক সোসাইটির মতে, মুর্তজা বশিরের ‘রক্তাক্ত ২১’কে ভাষা আন্দোলনের ওপর আঁকা প্রথম ছবি হিসেবে গণ্য করা হয়।

১৯৭১ সালে ১৬ মার্চ শহিদ মিনার থেকে বাহাদুর শাহ পার্ক পর্যন্ত বাংলাদেশের চারু ও কারুশিল্পী পরিষদের উদ্যোগে যে ‘স্বা-ধী-ন-তা’ মিছিল সংগঠিত করা হয়, সেই মিছিলে নেতৃত্বদানকারীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন মুর্তজা বশীর। ১৯৮২ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি হিসেবে স্বৈরাচারী শাসনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ডাকা ধর্মঘটে নেতৃত্ব দেন তিনি।

অন্যান্য ক্ষেত্রে অবদান

তিনি ১৯৬৩ সালে উর্দু চলচ্চিত্র ‘কারোয়াঁ’র কাহিনি ও চিত্রনাট্য রচনা করেন। ১৯৬৪ সালে হুমায়ূন কবীর রচিত ‘নদী ও নারীর’ চিত্রনাট্যকার, শিল্প নির্দেশক ও প্রধান সহকারী পরিচালক ছিলেন। ১৯৬৫ সালে উর্দু চলচ্চিত্র ‘ক্যায়সে কাহু’র শিল্প নির্দেশক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ভারতের বেনারস বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘জার্নাল অব দ্য নিউমিসম্যাটিক সোসাইটি অব ইন্ডিয়া’য় প্রাক মুঘল যুগের মুদ্রার ওপর লেখা তাঁর বেশ কয়েকটি গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়। মুর্তজা বশীর বাংলা একাডেমি ও এশিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশের আজীবন সদস্য ছিলেন। এ ছাড়াও তিনি জাপানের ফুকুওকা এশিয়ান কালচারাল প্রাইজ কমিটির নমিনেটর, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় জাদুঘরের বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের কলা ও মানবিক গবেষণা মূল্যায়ন কমিটি ও কমনওয়েলথ স্কলারশিপ নির্বাচন কমিটির সদস্য ছিলেন।


নিজের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে ড. আনিসুজ্জামান ও অন্য অতিথিদের সঙ্গে মুর্তজা বশীর

বশীর সম্পর্কে আনিসুজ্জামান

২০১৭ সালে মুর্তজা বশীরের ৮৫তম জন্মদিনে এশিয়াটিক সোসাইটিতে ‘মুর্তজা বশীর: মানুষ ও শিল্পী’ শিরোনামে এক বক্তৃতায় তখনকার জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেছিলেন, “আমার মনে হয়, আমাদের দেশের অনেক শিল্পীর মতো তাঁর মধ্যেও একটা দোলাচল আছে। নিজের ছবিতে তিনি কী ফুটিয়ে তুলবেন-স্থানকালের বিশিষ্টতা না আন্তর্জাতিক শিল্পধারার আধুনিক উদ্ভাবনের সংলগ্নতা।  তিনি দেশীয় রীতির দিকে ঝুঁকেছেন। তবে এখানেই স্থিত থাকেননি। শিল্পী মাত্রেরই মনোজগতের রূপ ও রং বদলায়, বশীরের ক্ষেত্রেও তা ঘটেছে।”

পুরস্কার

চিত্রকলায় অবদানের জন্য ২০১৯ সালে স্বাধীনতা পদক, ১৯৮০ সালে একুশে পদক, ১৯৭৫ সালে শিল্পকলা একাডেমি পদক পেয়েছেন মুর্তজা বশীর।

মুর্তজা বশীর ১৯৬২ সালে আমিনা বশীরকে বিয়ে করেন। তাঁর দুই মেয়ে মুনীরা বশীর ও মুনিজা বশীর ও এক ছেলে মেহরাজ বশীর যামী।

দেশ

পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ঢুকছে বাংলাদেশে, অর্ধেক নষ্ট হওয়ার আশঙ্কায় ব্যবসায়ীরা

মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ৬ দিন পরে ঘোজাডাঙায় এসেছে এবং সেখানে ৬ দিন ধরে অপেক্ষায় থেকেছে। ফলে অর্ধেক পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে।

Published

on

পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক।

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা: ১২ দিন পর ভারত থেকে পেঁয়াজভর্তি ট্রাক প্রবেশ করতে শুরু করেছে বাংলাদেশে। ত্রিপল দিয়ে ঢেকে রাখার কারণে বস্তাবোঝাই পেঁয়াজের অর্ধেকটাই নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা।

প্রচণ্ড গরমের মধ্যে ভারতের মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে সাতক্ষীরা সীমান্তে আসতে সময় লাগে ৬ দিন। তার পর হঠাৎ রফতানি বন্ধের নির্দেশনায় অপেক্ষা করতে হয়েছে আরও ৬ দিন। অর্থাৎ মোট ১২ দিন ধরে ট্রাকে বস্তাবোঝাই হয়ে রয়েছে পেঁয়াজ।

সাতক্ষীরার পেঁয়াজ আমদানিকারক মোস্তাফিজুর রহমান নাফিন জানালেন, ঘোজাডাঙায় পেঁয়াজবোঝাই তিনশতাধিক ট্রাক ৬ দিন যাবত অপেক্ষায় রয়েছে। মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ৬ দিন পরে ঘোজাডাঙায় এসেছে এবং সেখানে ৬ দিন ধরে অপেক্ষায় থেকেছে। ফলে অর্ধেক পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে।

শনিবার বিকাল নাগাদ সাতক্ষীরার ভোমরা, সোনামসজিদ ও হিলি দিয়ে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করতে শুরু করেছে। কিন্তু ব্যবসায়ীদের বিপুল অঙ্কের লোকসান গুণতে হবে। তাঁরা জানান, বিভিন্ন বন্দরে শ’ শ’ ট্রাক আটকে আছে।

এর আগে ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রকের পাঠানো এক চিঠিতে পেঁয়াজ রফতানির বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। চিঠির কথা জানিয়ে সোনামসজিদ স্থলবন্দরের পেঁয়াজ  আমাদানিকারক হারুনুর রশিদ জানান, আগের খোলা ঋণপত্রের বিপরীতে গত ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত টেন্ডার হওয়া পেঁয়াজই প্রবেশের অনুমতি পাবে।

এ সময় পর্যন্ত কী পরিমাণ পেঁয়াজের টেন্ডার হয়েছে নিশ্চিত ভাবে তা জানা যায়নি। সীমান্তের অপর প্রান্তে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে অন্তত পেঁয়াজভরতি দুশো ট্রাক। গরমের কারণে ট্রাকের পেঁয়াজ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ তাঁদেরও।

প্রসঙ্গত, অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে ১৪ সেপ্টেম্বর হঠাৎ পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় ভারত সরকার। এর জেরে বাংলাদেশের অসাধু ব্যবসায়ীরা রাতারাতি পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ২০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে  অস্থির হয়ে উঠে দেশের বাজার। আর ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায় কেজিপ্রতি ২০ টাকা পর্যন্ত। প্রতিকেজি বিক্রি হয় ৫৫ থেকে ৬০ টাকায়। অনেক আড়তদার আবার বিক্রিও বন্ধ করে দেন।

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

চার দিনের সম্মেলনে ১৪টি সিদ্ধান্ত, সীমান্ত-হত্যা শূন্যে নামাতে একমত বিজিবি-বিএসএফ

Continue Reading

দেশ

চার দিনের সম্মেলনে ১৪টি সিদ্ধান্ত, সীমান্ত-হত্যা শূন্যে নামাতে একমত বিজিবি-বিএসএফ

পারস্পরিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অটুট রাখতে এবং নিজেদের মধ্যে আস্থা বাড়াতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণে সম্মত হয়েছে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষা বাহিনী।

Published

on

BSF-BGB Meet
ঢাকায় বিজিবি ও বিএসএফ-এর বৈঠক।

ঋদি হক: ঢাকা

ঢাকায় চার দিনের সীমান্ত-সম্মেলনে ১৪টি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সীমান্তে হত্যা শূন্যে নামানো, যৌথ টহল, চোরাচালান ও মানবপাচার প্রতিরোধ ইত্যাদি।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি, BJB) ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ, BSF) মহাপরিচালক পর্যায়ের ৫০তম সীমান্ত সম্মেলনে নেওয়া এই সব গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম ও বিএসএফ মহাপরিচালক রাকেশ আস্থানা।

বরাবরের মতো এ বারের সম্মেলনেও সীমান্ত-হত্যার বিষয়টি ছিল আলোচনার প্রধান বিষয়। সাংবাদিক বৈঠকে উভয় বাহিনীর প্রধান সীমান্ত-হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ বলে জানান। সীমান্ত সংশ্লিষ্ট নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। পারস্পরিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অটুট রাখতে এবং নিজেদের মধ্যে আস্থা বাড়াতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণে সম্মত হয়েছে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষা বাহিনী। জানা গেছে, নির্ধারিত আলোচনার বাইরেও অন্য বিষয়েও উন্মুক্ত আলোচনা হয়েছে। দু’ পক্ষই এ বারের সম্মেলনকে সফল বলে আখ্যায়িত করেছেন।

ভারতীয় হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, প্রাণঘাতী নয়, এমন অস্ত্রই কেবল ব্যবহার করা হবে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে। সকল নিরস্ত্র, নিরপরাধ এবং মানবপাচারের শিকার ব্যক্তিকে সংশ্লিষ্ট বাহিনীর সদস্যদের হাতে হস্তান্তর করা হবে। মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জাতীয়তা নির্ধারণে একটি স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং পদ্ধতি (এসওপি) তৈরির সিদ্ধান্তও হয়েছে। তাৎক্ষণিক গোয়েন্দা তথ্য বিনিময়ের জন্য উভয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী নোডাল কর্মকর্তা নির্বাচন করবে। সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে সীমান্তে পাচারকারীদের বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান চালু করতেও রাজি হয়েছে উভয় বাহিনী।

সীমান্তে চোরাচালান সিন্ডিকেটগুলি যে নতুন পদ্ধতি গ্রহণ করছে তার প্রতিক্রিয়া হিসেবে চোরাচালানপ্রবণ এলাকাগুলো চিহ্নিত করা এবং পাচারকারীদের সিন্ডিকেটের তালিকা বিষয়ে তাৎক্ষণিক গোয়েন্দা তথ্য বিনিময় করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

করোনাকালীন সময়ে সীমান্তে উভয় বাহিনীর সমন্বিত টহল বন্ধ ছিল। দুই বাহিনীর মধ্যে পারস্পরিক আস্থা তৈরি করতে এবং সীমান্তে অপরাধ কমাতে ফের সমন্বিত টহল চালু করা হবে। করোনার প্রভাব কমে আসার পর উভয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর ব্যবস্থা এবং প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের সিদ্ধান্তও হয়েছে। 

উভয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী গবাদি পশু পাচারকারীদের সহিংস হামলার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। ভারতের সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে কোডিন জাতীয় কাশির সিরাপ চোরাচালানের বিরুদ্ধে বিএসএফের নিয়মতান্ত্রিক প্রচারের প্রশংসা করেছে বিজিবি। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের নীতির পুনরাবৃত্তি করে, সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা তথ্য প্রদানের অনুরোধ করেছে এবং বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলির (যদি থাকে) বিরুদ্ধে যৌথ অভিযান পরিচালনা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বিজিবির তরফে।

যৌথ নদী কমিশনের অনুমোদন অনুযায়ী বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী অঞ্চলে নদী তীরের সমস্ত সুরক্ষা কাজ শেষ করার বিষয়ে একমত হওয়া গেছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে বিজিবি এয়ার উইংয়ের দু’টি হেলিকপ্টারের অধিকতর ও ট্রেনিং অপারেশনাল ফ্লাইটের বিষয়ে বিএসএফ মহাপরিচালককে অবহিত করেন বিজিবি মহাপরিচালক। যে কোনো ধরনের বিভ্রান্তি বা ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে তাঁকে তাঁর বাহিনীর প্রান্তিক পর্যায় পর্যন্ত অবহিত করার অনুরোধ জানান।

বিজিবি মহাপরিচালক সাফিনুল ইসলামের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল সম্মেলনে অংশ নেন। বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে বিজিবির অতিরিক্ত মহাপরিচালকরা ও বিজিবি সদর দফতরের সংশ্লিষ্ট স্টাফ অফিসারগণ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র ও বিদেশ  মন্ত্রক, যৌথ নদী কমিশন এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা প্রতিনিধিত্ব করেন। বিএসএফ মহাপরিচালক রাকেশ আস্থানার নেতৃত্বে ৬ সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধিদলে ছিলেন বিএসএফ সদর দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং স্বরাষ্ট্র ও বিদেশ মন্ত্রকের কর্মকর্তারা। সম্মেলন শেষে শনিবার আগরতলার পথে ঢাকা ত্যাগ করেন বিএসএফ প্রতিনিধিদল।

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

১৪ অক্টোবর থেকে ইলিশ প্রজনন ক্ষেত্রে ইলিশ-সহ সব মাছ ধরা ২২ দিন নিষিদ্ধ

Continue Reading

দেশ

আগের এলসির ছাড়, ভারত থেকে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক শনিবার ঢুকছে বাংলাদেশে

১৪ সেপ্টেম্বর রফতানি বন্ধের সিদ্ধান্তের আগে এলসির বিপরীতে টেন্ডার হওয়া পেঁয়াজ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে ভারত সরকার।

Published

on

আটকে থাকা ট্রাক।

ঋদি হক: ঢাকা

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বিভিন্ন স্থলবন্দরে আটকে থাকা পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ছেড়ে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে ভারত সরকার। ফলে শনিবার থেকেই এই সব পেঁয়াজ দিনাজপুরের হিলি-সহ দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে প্রবেশ করবে বাংলাদেশে।   

ভারতের (India) বাজারে পেঁয়াজ-সংকট, তাই বাংলাদেশে (Bangladesh) পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ। ব্যাপারটা পাঁচ দিন গড়াল। কিন্তু রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারির আগেই পেঁয়াজবোঝাই কয়েকশো ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশের জন্য বিভিন্ন স্থলবন্দরের কাছাকাছি পৌঁছে যায়। এবং পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়ে যাওয়ায় বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। এই সব ভেবেই অবশেষে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ছেড়ে দেওয়ার অনুমতি দেয় ভারত।

বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, হঠাৎ করে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করার সিদ্ধান্তে অনুতপ্ত ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। ড. মোমেন বলেন, “আমরা চিঠি দিয়েছি। শুনেছি যে ভারতের বিদেশমন্ত্রক এ বিষয়টি নিয়ে অনুতপ্ত। কারণ তারা বিষয়টি জানত না।”

বিদেশমন্ত্রী আরও বলেন, “আমরাও বিষয়টি জানতাম না। পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, এই বিষয়টি আগেভাগে জানতে পারলে ব্যবস্থা নিতে পারতাম। আচমকাই পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের বার্তা পাই। ভারতের বিদেশমন্ত্রকের কাছে জানতে চাই কেন হঠাৎ করে এমন হল? তখন ওরা বলেছে তারাও বিষয়টি জানত না।”

এ দিকে হিলির আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুনুর রশীদ হারুন সংবাদমাধ্যমকে জানান, “অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে গত সোমবার থেকে ভারত সরকার পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয়। এর ফলে আমাদের ২৫০টি ট্রাক পেঁয়াজ নিয়ে দেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ভারতের অভ্যন্তরে বিভিন্ন সড়কে কয়েক দিন ধরে আটকা পড়ে যায়। একই সঙ্গে ১০ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির জন্য এলসি দেওয়া ছিল। এগুলোর কার্যক্রম বন্ধ রেখেছিল তারা। মঙ্গলবার ভারতীয় ব্যবসায়ীরা আমাদের জানিয়েছিলেন ১৪ তারিখের পূর্বে এলসির বিপরীতে টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া পেঁয়াজ রফতানির অনুমতি দিতে পারে ভারত সরকার। সে অনুযায়ী বাংলাদেশে পেঁয়াজ প্রবেশের কথা ছিল। কিন্তু তখন অনুমতি মেলেনি। ফলে গত পাঁচ দিন ধরে ভারত রফতানি বন্ধ রাখায় ৯ থেকে ১০ দিন আগে লোড করা পেঁয়াজগুলো ট্রাকে ত্রিপল বাঁধা অবস্থায় রয়েছে। অতিরিক্ত গরম ও বৃষ্টিতে অনেক ট্রাকের পেঁয়াজে পচন ধরতে শুরু করেছে।”

এ অবস্থায় ভারতীয় ব্যবসায়ীদের চাপের মুখে শুক্রবার দিল্লির বাণিজ্য মন্ত্রক একটি নোটিশ জারি করে। তাতে বলা হয়, ১৪ সেপ্টেম্বর রফতানি বন্ধের সিদ্ধান্তের আগে এলসির বিপরীতে টেন্ডার হওয়া পেঁয়াজ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে ভারত সরকার। শনিবার থেকে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক প্রবেশ করতে শুরু করবে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

দুর্গোৎসব বাংলাদেশে: সাংবাদিক বৈঠক ও মানববন্ধন করে ৩ দিন ছুটির দাবি

Continue Reading
Advertisement
আইপিএল5 hours ago

সুপার ওভারে পঞ্জাবকে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে নিল দিল্লি

Md. Shami
আইপিএল7 hours ago

পঞ্জাবকে ১৫৮ রানের টার্গেট দিল দিল্লি

শিল্প-বাণিজ্য7 hours ago

জিএসটি ক্ষতিপূরণ: ২১টি রাজ্য বেছে নিল প্রথম বিকল্প, দ্বিতীয়টি পছন্দ নয় কারও

রাজ্য8 hours ago

রাজ্যে সুস্থতার হার ৮৭ শতাংশের উপর, তেমন কোনো হেরফের নেই দৈনিক সংক্রমণে

দেশ10 hours ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

corona
দেশ10 hours ago

৫টি রাজ্যেই মোট সক্রিয় কোভিডরোগীর ৬০ শতাংশ!

রাজ্য11 hours ago

বঙ্গোপসাগরে তৈরি নিম্নচাপের জেরে বৃষ্টি, হলুদ সর্তকতা জারি করল আবহাওয়া দফতর

দেশ12 hours ago

৬ বিধায়ক, ৩ সাংসদ এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি-সহ আর যে সব ‘ভিভিআইপি’ করোনার শিকার

দেশ19 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৯২৬০৫, সুস্থ ৯৪৬১২

শিল্প-বাণিজ্য3 days ago

এসবিআই এটিএমে টাকা তোলার নিয়ম বদলে গেল! দেখে নিন ওটিপি-ভিত্তিক পদ্ধতির খুঁটিনাটি বিষয়

কলকাতা3 days ago

কয়েকটি স্টেশনে ই-পাসের সংখ্যা বাড়াচ্ছে কলকাতা মেট্রো

Shreyas Iyer
ক্রিকেট2 days ago

আইপিএলের অন্যতম সেরা বোলিং লাইনআপ কি দিল্লি ক্যাপিটাল্‌সের?

দেশ10 hours ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল

MS Dhoni
ক্রিকেট3 days ago

চেন্নাই সুপারকিংসের আদর্শ লাইনআপে কত নম্বরে ব্যাট করতে পারেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি?

ishan porel mohammad shami
ক্রিকেট2 days ago

কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের হয়ে নতুন বলে বাংলার দুই পেসার?

শরীরস্বাস্থ্য3 days ago

কোভিড-১৯: স্কুল খোলার আগে নিজের সন্তানকে এই ৫টি তথ্য অবশ্যই জানাবেন

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা3 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা4 weeks ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

কেনাকাটা2 months ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

নজরে