ঋদি হক: ঢাকা

ঢাকার মন্দিরে মহাধুমধামে চলছে রথযাত্রা উৎসবের আয়োজন। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে শুক্রবার বিকেল তিনটে নাগাদ রথযাত্রা উৎসবের শোভাযাত্রা শুরু হবে। ২০১৯ সালেই রাজপথে শেষ রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তার পর করোনা অতিমারির কারণে দু’ বছর রথযাত্রা উৎসব বন্ধ থাকে।

বৃহস্পতিবার ঢাকার স্বামীবাগ ইসকন মন্দিরে প্রবেশ করতেই দেখা গেল ভক্তদের ব্যস্ততা। শুক্রবার রথযাত্রা। এ বারে আয়োজনে ভিন্ন মাত্রা যোগ হয়েছে। বাংলাদেশে ইসকনের সাধারণ সম্পাদক শ্রীপাদ চারুচন্দ্র দাস ব্রহ্মচারীপ্রভু জানালেন, দু’ বছর রথযাত্রা বন্ধ থাকার কারণে ভক্তদের মন খারাপ ছিল। এ বারে আমরা ধুমধামের সঙ্গে রথযাত্রা করতে পারব। দূরদূরান্ত থেকে ভক্তরাও এসে শামিল হবেন।

দূর থেকেই দেখা গেল দশতলা ইসকন ভবনের কাজ জোরকদমে এগিয়ে চলছে। নীচের তলায় রাখা রথে রঙের কাজে শেষ আঁচড় দিচ্ছেন দু’ জন মিস্ত্রি। তাঁরাও খুবই আনন্দিত। জানালেন, দু’ বছর পর রথযাত্রা হচ্ছে।

রথযাত্রায় ইসকনের প্রতিষ্ঠাতা স্বামী প্রভুপাদের বিগ্রহ। ফাইল ছবি।

শ্রীপাদ চারুচন্দ্র দাস ব্রহ্মচারীপ্রভু আরও বলেন, উন্মুক্ত পথে রথযাত্রা দু’ বছর হয়নি। ভেতরেই করেছেন তাঁরা। এ বারে মহাধুমধামে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে তাঁদের সকল আয়োজন সম্পূর্ণ হয়েছে। রথযাত্রায় এ বছর বিপুল মানুষের সমাগম ঘটবে। 

ঢাকার কেন্দ্রীয় স্বামীবাগ ইসকন মন্দির থেকে বিকাল তিনটে নাগাদ রথযাত্রা শুরু হবে। ঢাকার বিভিন্ন রাজপথ ঘুরে ৬ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে পলাশিতে অবস্থিত জাতীয় মন্দির ঢাকেশ্বরীতে শেষ হবে। এটি হচ্ছে প্রতি বছরের রুটিন।

ইসকনের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ ইসকনের প্রবর্তক ভগবান শ্রীশ্রীজগন্নাথদেব মানুষের কল্যাণ কামনায় নেমে আসেন। পুরীর পরই সর্ববৃহৎ এই রথযাত্রা হয় ঢাকায়। মূলত ঢাকার রথযাত্রা ঐতিহাসিক। দু’ বছর পর ঢাকার রাজপথে রথযাত্রার আয়োজন করতে পেরে প্রভুর কাছে কৃতজ্ঞ প্রকাশ করেন তাঁরা।

রথযাত্রার শোভাযাত্রায়। ফাইল ছবি।

রথযাত্রা উপলক্ষ্যে মন্দিরপ্রাঙ্গণ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার কাজে ব্যস্ত সময় পার করেন  ব্রহ্মচারীরা। সদর দরজা থেকে ব্যারিকেড দিয়ে পথ তৈরি করা হয়েছে। প্রার্থনার বিশাল জায়গায় চারি দিকে রশি টেনে নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করা হয়েছে। দৈহিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রভুর প্রার্থনায় ভক্তরা যাতে যোগ দিতে পারেন, সেই ব্যবস্থা করা হয়েছে।

রথযাত্রার পথে প্রভুর কৃপালাভের উদ্দেশ্যে ভক্তরা লুটিয়ে পড়ে। ঢাকার রথযাত্রায় চলন্ত রথ থেকে ভক্তদের মধ্যে প্রসাদ বিতরণ বহু পুরোনো রেওয়াজ। এক কথায় ঢাকার রথযাত্রা নান্দনিক। সর্ব ধর্মের মানুষের এক মিলনমেলায় পরিণত হয় ঢাকার ঐতিহাসিক রথযাত্রা।

আরও পড়তে পারেন

৫ বছরে সাংসদদের ট্রেনযাত্রার বিল ৬২ কোটি টাকা, দীর্ঘদিন ছাড়ের সুবিধা থেকে বঞ্চিত প্রবীণ নাগরিকেরা

ফড়ণবীস নন, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন শিন্ডে

তিন বছর পর জনসমাগম, রথযাত্রা উপলক্ষ্যে চূড়ান্ত প্রস্তুতি পুরীতে

চাকরির নিয়োগপত্র পেলেন ববিতা সরকার, মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতার স্কুলেই নিয়োগ

স্কুল শিক্ষকরা করতে পারবেন না প্রাইভেট টিউশন, বন্ধ কোচিংয়ে পড়ানোও! কড়া নির্দেশিকা রাজ্যের

‘মমতায় পুনর্জন্ম মা সারদার’, নির্মলের বক্তব্য খণ্ডন করে বিবৃতি বেলুড় মঠের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন