Connect with us

দেশ

নাব্যতাসংকটে ভারত-বাংলাদেশ জলপথ, বন্ধের মুখে নৌবাণিজ্য

যে পয়েন্টগুলো নাব্যতাসংকটে ভুগছে, অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে তাতে ড্রেজিং চলচ্ছে।

Published

on

নাব্যতাসংকটে আটকে পড়া কার্গো থেকে অন্য কার্গোয় পাথর খালাস করা হচ্ছে।

ঋদি হক (রৌমারি কুড়িগ্রাম থেকে ফিরে)

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ১০টি জলপথ রয়েছে। তার একটি হল ব্রহ্মপুত্র নদে বাংলাদেশের চিলমারী থেকে অসমের ধুবড়ি। কলকাতা থেকে ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলে পণ্যবাহী জাহাজ যাতায়তের পথও এটি।

Loading videos...

ভারতের অসমের সঙ্গে যে দু’টো গুরুত্বপুর্ণ জলপথ রয়েছে তার একটি হল বাংলাদেশের সিরাজগঞ্জ থেকে দইখাওয়া পর্যন্ত অর্থাৎ অসমের ধুবড়ি সীমান্তের আগে পর্যন্ত ১৭৫ কিলোমিটার দীর্ঘ জলপথ। এই অংশেই রয়েছে চিলমারী। অপরটি হল, আশুগঞ্জ থেকে জকিগঞ্জ পর্যন্ত ২৯৫ কিলোমিটার দীর্ঘ জলপথ।

এই দুই জলপথ খননে ভারত সরকার ৮০ শতাংশ অর্থের জোগান দিচ্ছে। বাকি ২০ শতাংশ বাংলাদেশের। ৮০ শতাংশ অর্থব্যয়ের কারণ হল, এই জলপথ দু’টো ভারত পণ্যপরিবহনে ব্যবহার করে থাকে। পাশাপাশি বাংলাদেশও ব্যবহার করে আসছে। এর ফলে রাজস্ব যাচ্ছে সরকারের কোষাগারে। এই দু’টি জলপথই ধুঁকছে নাব্যতাহীনতায়। অথচ দু’টি জলপথই বিপুল সম্ভাবনাময়। এই জলপথ খননে ভারত সরকারের ৮০ শতাংশ খরচ বহন করার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থা (বিআইডব্লিউটিএ, BIWTA)। আন্তর্জাতিক জলপথ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে সংস্থাটি। 

সরেজমিনে বলদমারা নৌঘাটে

কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারি উপজেলার বলদমারা নৌঘাট। শৈত্যপ্রবাহের সঙ্গে ঘন কুয়াশার আস্তরণ। সামনের মানুষটিকেও সঠিক ভাবে ঠাহর করা যায় না। এ অবস্থায় ইঞ্জিনচালিত নৌকা যোগে ব্রহ্মপুত্রের বুক চিরে প্রায় ঘণ্টা দেড়েক চলার পর ধুবড়ি সীমান্তের কাছাকাছি পৌঁছোনো গেল। সেখানে দেখা গেল ভারত ও বাংলাদেশের পতাকাবাহী কার্গো থেকে অপর একটি কার্গোয় পাথর খালাস করা হচ্ছে।

ব্যবসায়ী সোহেল রানার চোখে জল। একরাশ হতাশায় কাটছে তাঁর জীবন। লগ্নি করে ব্যাবসা শুরু করেছিলেন। অসম থেকে পাথর এনে তা সরবরাহ করেন সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পে। নাব্যতাসংকটে পাথরবাহী ৫টি কার্গো আটকে পড়ায় ব্যাবসা এখন বন্ধের পথে।

ব্রহ্মপুত্র নদে আটকে পড়া কার্গোয় দাঁড়িয়ে ধরা গলায় সোহেল রানা বললেন, গত ৮ ডিসেম্বর ভারত থেকে পাথর নিয়ে ধুবড়ি সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশ প্রান্তে এসে আটকা পড়ে যায় ৫টি কার্গো। সরকারের নদী-শাসন উন্নয়নের জন্য পাথর আমদানি করেন তিনি। আটকে পড়া কার্গো উদ্ধারে বিআইডব্লিউটিএ-র কাছে আর্জি জানান ব্রাদার্স ইন্টারন্যাশনাল ও ধর ইন্টারন্যাশনালের ব্যবসায়ী সোহেল রানা।

এই প্রেক্ষিতে সংস্থাটির চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক তাৎক্ষণিক বৈঠক করে পাথরবোঝাই কার্গোগুলো উদ্ধারের নির্দেশ দেন। কিন্তু তার পরও কেটে যায় প্রায় দু’ মাস। দীর্ঘ দিন আটকা থাকার পরও কোনো সহায়তা না পেয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে পত্র দেওয়া হয়।

নিজেদের প্রচেষ্টায় উদ্ধার

দীর্ঘ অপেক্ষা এবং বিপুল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতির পরেও বিআইডব্লিউটিএ-র তরফে কোনো প্রকারের সহায়তা না পেয়ে নিজেদের প্রচেষ্টায় বিকল্প পন্থায় দু’টো কার্গো তাঁরা উদ্ধার করেন বলে জানান রানা। বাকিগুলো উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান।

ব্যবসায়ী সোহেল রানা জানালেন, সরকারের উন্নয়ন কাজের জন্য ৫টি কার্গো করে ভারত থেকে পাথর এনে তিনি সরবরাহ করে থাকেন। কিন্তু জলপথটির প্রয়োজনীয় নাব্যতা না থাকায় তাদের জাহাজ আটকে যায়। অথচ এই জলপথটি খননের জন্য ভারত ৮০ ভাগ টাকা দিচ্ছে। তার পরেও সঠিক ভাবে খননকাজ হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন সোহেল রানা।

বিআইডব্লিটিএ-র জবাব  

বিআইডব্লিটিএ-র ড্রেজিং বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর রাকিবুল ইসলাম তালুকদার ‘খবর অনলাইন’কে জানিয়েছেন, যমুনা এবং ব্রহ্মপুত্রের বিচিত্র চরিত্র। লাগাতার খনন করেও চ্যানেল ঠিক রাখা সম্ভব হয় না। ব্রহ্মপুত্র ও যমুনার চ্যানেল পরিবর্তনশীল। এ কারণেই নাব্যতা নিয়ে সংকট। চিলমারী-ধুবড়ি জলপথে যে কার্গো আটকে গেয়েছিল তা উদ্ধার করা হয়েছে। যে পয়েন্টগুলো নাব্যতাসংকটে ভুগছে, অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে তাতে ড্রেজিং চলচ্ছে।

তিনি জানান, ভারতের ‘ধরিত্রী’ নামক একটি প্রতিষ্ঠান খননের দায়িত্বে রয়েছে।  তারাই তদারকি করে থাকে। তবে মাঝে মধ্যে বিআইডব্লিউটিএ-ও করে থাকে।

বর্ষার আগে আশা দেখছেন না ব্যবসায়ীরা

বাংলাদেশের জলপথ ব্যবহার করে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোর জন্য পণ্যপরিবহনে আগ্রহ প্রকাশ করে আসছিল ভারত। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৬ সালের জুনে ট্রান্সশিপমেন্টের আওতায় আশুগঞ্জ নৌবন্দর ব্যবহার করে প্রথম পণ্যপরিবহন শুরু হয়। এর আগেও মানবিক কারণে বিনা মাশুলে খাদ্য ও অন্যান্য পণ্যপরিবহনের সুযোগ  দেয় বাংলাদেশ। পরবর্তী পর্যায়ে ভারত-বাংলাদেশ জলপথ ব্যবহারে আন্তর্জাতিক নৌ-প্রোটোকলের আওতা বাড়তে থাকে, বর্তমানে যার মধ্যে রয়েছে ১০টি জলপথ। কিন্তু নাব্যতাসংকটের মুখে নৌবাণিজ্যে স্থবিরতা নেমে এসেছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, সামনের বর্ষার আগে অসমের সঙ্গে বাণিজ্য সম্ভব হবে না। বিআইডব্লিউটিএ সূত্রের খবর, সিরাজগঞ্জ-ধুবড়ি জলপথটি বারো মাস সচল রাখতে ভারত সরকারের ৮০ শতাংশ এবং বাংলাদেশের ২০ শতাংশ অর্থ ব্যয় করে খননের কাজ চলেছে। এর পরেও নাব্যতাহীনতায় দু’দেশের বাণিজ্য মুখ থুবড়ে পড়েছে।

মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে

২০১৮ সালের ১২ নভেম্বর বাংলাদেশ সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রীপরিষদের বৈঠকে ওই দুই জলপথ খননে ৮০ শতাংশ খরচ ভারত দেবে বলে জানানো হয়। পরবর্তী কালে নৌ-চলাচল সহজ করতে ৪৭০ কিলোমিটার জলপথ খননকাজে হাত লাগায় বাংলাদেশ ও ভারত সরকার। কিন্তু সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আন্তর্জাতিক জলপথ খননের কাজ হচ্ছে না বলে অভিযোগ ব্যবসায়ীদের।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ২০২০ সালের ৯ মার্চ তাঁর কার্যালয়ে মন্ত্রীসভার বৈঠকে সংশোধনী খসড়ায় অনুমোদন দেওয়া হয়। সে দিনের বৈঠক শেষে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম দুই দেশের মধ্যে নৌবাণিজ্য আরও গতিশীল করতে নতুন কয়েকটি ‘পোর্ট অব কল’ ঘোষণা করা ছাড়াও নতুন প্রোটোকল রুট সংযোজনের কথা জানান।

উল্লেখ্য, দু’ দেশের নৌবাণিজ্য গতিশীল ও কার্যকর করতে নয়াদিল্লি ও ঢাকার মধ্যে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে দু’দেশের সম্মতিক্রমে দ্বিতীয় সংশোধনীটি তৈরি করা হয়। প্রস্তাবিত সংশোধনী অনুযায়ী উভয় দেশের সম্মতিক্রমে ভারতের বদরপুর, সোনামুরা ও খোলাঘাট, ময়া ও জগিঘোপা এবং বাংলাদেশের ঘোড়াশাল, দাউদকান্দি, সুলতানগঞ্জ, আরিচা ও বাহাদুরাবাদকে প্রোটোকলের রুটে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশে করোনা-টিকা প্রয়োগ কার্যক্রমে যুক্ত হচ্ছেন রেড ক্রিসেন্টের ১৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবক

দেশ

Coronavirus Second Wave: স্বস্তির খবর এল পঞ্জাব থেকে, নতুন সংক্রমণকে ছাড়াল সুস্থতা, কমল সক্রিয় রোগী

পঞ্জাবে সংক্রমণ চূড়ায় পৌঁছে যাওয়ার ইঙ্গিত।

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিশেষজ্ঞরা বলেছিলেন করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ সবার আগে চূড়ায় পৌঁছোবে পঞ্জাবে, আর সেটা হবে এপ্রিলের মাঝামাঝি। বিশেষজ্ঞদের সেই দাবি মিলে যাবে কি না, সেটা তো সময়ই বলবে কিন্তু গত ২৪ ঘণ্টায় পঞ্জাবে এমন কিছু ব্যাপার হয়েছে যা কিছুটা হলেও প্রশাসনকে স্বস্তি দিচ্ছে।

এই রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যাকে ছাপিয়ে গিয়েছে সুস্থতার সংখ্যা। এর ফলে সামান্য হলেও কমেছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা। পাশাপাশি, দেশের বেশিরভাগ রাজ্যে সংক্রমণের হার যখন দশ শতাংশের কাছাকাছি, সেই দিক থেকেও পঞ্জাব অনেকটাই স্বস্তি দিচ্ছে।

Loading videos...

গত ২৪ ঘণ্টায় পঞ্জাবে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৩৯ জন। কিন্তু সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ১২১ জন। দেশে বড়ো রাজ্যগুলির মধ্যে একমাত্র পঞ্জাবেই গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতা ছাড়িয়ে গেল দৈনিক সংক্রমণকে। তবে এর মধ্যে রাজ্যে দৈনিক মৃত্যু প্রশাসনকে চিন্তায় রাখছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে যা দৈনিক সংক্রমণের বিচারে ১.৯৪ শতাংশ। গোটা দেশে যেখানে দৈনিক সংক্রমণের বিচারে মৃত্যুহার কোথাও কোথাও ০.৫ শতাংশেরও কম, সেখানে পঞ্জাবের এই তথ্য রীতিমতো চিন্তার। এই মৃত্যুর সংখ্যা এবং সুস্থতার সংখ্যা বেশি হওয়ার কারণে গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা বেশ কিছুটা কমে ২৭ হাজারের ঘরে নেমে এসেছে।

গত কয়েক দিন ধরেই পঞ্জাবে দৈনিক সংক্রমণ ৩ হাজারের আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে। বেশিরভাগ রাজ্যে যেখানে সংক্রমণ ৪ হাজার, ৫ হাজার ছাড়িয়ে যাচ্ছে, সেখানে পঞ্জাবের পরিস্থিতি কিছুটা স্বস্তিদায়ক। ফলে পঞ্জাব সংক্রমণ দ্বিতীয় চূড়ার কাছাকাছি এসে গিয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। যদিও এই ব্যাপারে নিশ্চিত হতে আরও কিছুদিন দৈনিক সংক্রমণের ওপরে নজর রাখতে হবে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

Coronavirus Second Wave: মহারাষ্ট্র লকডাউনের পথে গেলেও সংক্রমণের দাপট কিছুটা থিতু হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে

Continue Reading

দেশ

Coronavirus Second Wave: মহারাষ্ট্র লকডাউনের পথে গেলেও সংক্রমণের দাপট কিছুটা থিতু হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে

লকডাউন হলে ধসে পড়বে অর্থনীতি।

Published

on

শনিবার আর রবিবার উইকএন্ড লকডাইন হয়েছে মহারাষ্ট্রে। ছবি: এএনআই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সম্ভবত সম্পূর্ণ লকডাউনই ঘোষিত হতে চলেছে মহারাষ্ট্রে। এমনই ইঙ্গিত দিয়ে দিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে। তবে সেই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত বুধবার ১৪ এপ্রিলের পর নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এরই মধ্যে একটা বিষয় সামনে আসছে। সেটা হল সংক্রমণ উত্তরোত্তর বাড়লেও তার দাপট কিছুটা থিতু হওয়ার ইঙ্গিতই দিচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৩ হাজার ২৯৪ জন। এখনও পর্যন্ত এটাই মহারাষ্ট্রের সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ। কিন্তু এত মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন বিপুল পরিমাণে টেস্টের বিপরীতে। গত ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে মোট টেস্ট হয়েছিল ২ লক্ষ ৬৩ হাজার ১৩৭টি। অর্থাৎ নতুমা পরীক্ষার বিচারে রাজ্যে সংক্রমণের হার ছিল ২৪.০৫ শতাংশ।

Loading videos...

এই সংক্রমণের হারটাই কিছুটা আশার আলো দেখাতে শুরু করেছে। দিন দশেক রাজ্যে মহারাষ্ট্রে সংক্রমণের হার বেড়ে ২৮ শতাংশ ছাড়িয়ে গিয়েছিল। কিন্তু গত কয়েকদিন হল সেটি ২৩-২৪ শতাংশের আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে। এমনকি মার্চের শেষে বেশ কয়েক দিন ধরে সংক্রমণের হার যে ২৫ শতাংশের ওপরে ছিল, সেটাও এখন সামান্য হলেও কমেছে।

বিশেষজ্ঞরা বার বার টেস্ট বাড়ানোর কথা বলছেন। টেস্ট বাড়লে সংক্রমণের হার কমতে বাধ্য। সাধারণত এই সংক্রমণের হারকে পাঁচ শতাংশের নীচে নিয়ে এলে বলা যায় যে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে এসেছে। মহারাষ্ট্রের ক্ষেত্রে সেটা এখনই সম্ভব না হলেও সংক্রমণের হার একটু একটু কমে কমবে তেমনটা আশা করাই যায়।

মহারাষ্ট্রে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মূলত যে জায়গাগুলিতে শুরু হয়েছিল, সেই অমরাবতী, আকোলা এবং ইয়াবৎমলেও পরিস্থিতি কিন্তু নিয়ন্ত্রণের মধ্যে এসে গিয়েছে। সব থেকে তাৎপর্যের বিষয় হল গত বছর প্রথম ঢেউয়ের সময় মহারাষ্ট্রে সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ ছিল ২৫ হাজার, সে দিন কিন্তু টেস্ট হয়েছিল ৯৮ হাজার। অর্থাৎ সে দিনও সংক্রমণের হার ছিল ২৪-২৫ শতাংশ।

কিন্তু তবুও লকডাউনের পথেই হাঁটতে চাইছে মহারাষ্ট্র। তবে লকডাউন ঘোষিত হলে অর্থনীতিতে তার বিপুল প্রভাব পড়বেই। একই মানুষ সাধারণ মানুষের মানসিক স্বাস্থ্যেও ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে। সব মিলিয়ে এখন সাবধানে পা ফেলতে হবে মহারাষ্ট্র সরকারকে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

Bengal Corona Update: নমুনা পরীক্ষার সঙ্গেই তাল মিলিয়ে বাড়ল বাংলার দৈনিক করোনা সংক্রমণ

Continue Reading

দেশ

উদ্বেগ বাড়াচ্ছে করোনা! অ্যান্টি-ভাইরাল ওষুধ রেমডেসিভির নিয়ে বড়োসড়ো সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের

ইনজেকশন রেমডেসিভির রফতানি বন্ধের পাশাপাশি আরও বেশ কিছু পদক্ষেপ নিল কেন্দ্র।

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: অ্যান্টি-ভাইরাল ড্রাগ রেমডেসিভির (Remdesivir) রফতানি নিষিদ্ধ করল ভারত সরকার। করোনার তাৎপর্যপূর্ণ সংক্রমণ বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনায় রেখেই রবিবার কোভিডরোগীর চিকিৎসায় ব্যবহৃত এই ওষুধের রফতানি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

প্রতিদিন যে হারে কোভিড-১৯ ( Covid-19) আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড গড়ে চলেছে, তা যথেষ্ট উদ্বেগের বলেই ধারণা করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Loading videos...

কেন্দ্র একটি বিবৃতিতে বলেছে, “পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া অবধি ভারত সরকার ইনজেকশন রেমডেসিভির এবং রেমডেসিভির অ্যাক্টিভ ফার্মাসিউটিক্যাল উপাদান (এপিআই) রফতানি নিষিদ্ধ করেছে।”

সাতটি ভারতীয় সংস্থা মেসার্স গিলেড সায়েন্সের সঙ্গে স্বেচ্ছাভিত্তিক লাইসেন্স চুক্তির মাধ্যমে ইনজেকশন রেমডেসিভির তৈরি করছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রকল্পে প্রতিমাসে প্রায় ৩৮.৮০ লক্ষ ইউনিট ইনজেকশন রেমডেসিভির তৈরি করার ক্ষমতা রয়েছে গিলেড সায়েন্সেসের।

দেশের আরও বেশি মানুষ যাতে রেমডেসিভির পেতে পারেন, তা নিশ্চিত করার জন্য এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সরকার রেমডেসিভির উৎপাদনকারীদের উদ্দেশে বলেছে যে, তাদের মজুতদার এবং বিতরণকারীর বিশদ বিবরণ যেন নিজেদের ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয়।

একই সঙ্গে ড্রাগ ইন্সপেক্টর এবং অন্যান্য অফিসারদের স্টক যাচাই করতে বলা হয়েছে। যে কোনো ধরনের ত্রুটি পরীক্ষা করার পাশাপাশি বেআইনি মজুত ও কালোবাজারি বন্ধ করতেও বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিতিন গড়করী রবিবার মহারাষ্ট্রে ওষুধের ঘাটতি বিবেচনায় নাগপুরে ১০,০০০ ইনজেকশন দেওয়ার ব্যবস্থা করার জন্য সান ফার্মার প্রধানের সঙ্গে আলোচনা করেন। গত ৯ এপ্রিল মধ্যপ্রদেশে ওষুধের জন্য দোকানের বাইরে লম্বা লাইন দেখা যায়। দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকেও ওষুধ নাম পেয়ে অনেকেই বিক্ষোভ দেখান। রাস্তা অবরোধ করে প্রতিবাদ জানান ক্রেতারা।

জটিল রোগে আক্রান্ত বয়স্করা করোনা সংক্রমিত হলে তাঁদের রেমডেসিভির দেওয়া হয়। ন্যাশনাল ক্লিনিক্যাল ম্যানেজমেন্ট প্রটোকল ইতিমধ্যেই কোভিড-১৯-এর চিকিৎসায় রেমডেসিভিরকে তালিকাভুক্ত করেছে।

আরও পড়তে পারেন: Covid-19 Vaccine: অক্টোবরের মধ্যে আরও ৫টি কোভিড ভ্যাকসিন পাচ্ছে ভারত!

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দেশ31 mins ago

Coronavirus Second Wave: স্বস্তির খবর এল পঞ্জাব থেকে, নতুন সংক্রমণকে ছাড়াল সুস্থতা, কমল সক্রিয় রোগী

দেশ55 mins ago

Coronavirus Second Wave: মহারাষ্ট্র লকডাউনের পথে গেলেও সংক্রমণের দাপট কিছুটা থিতু হওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে

ক্রিকেট10 hours ago

IPL 2021: নীতীশ-রাহুলের ব্যাটে ভর করে হায়দরাবাদকে হারাল কেকেআর

ভিডিও12 hours ago

Bengal Polls 2021: বিধাননগরে মুখোমুখি টক্কর সুজিত বসু-সব্যসাচী দত্তর, ময়দানে জোট প্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

বাংলাদেশ12 hours ago

পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে গুলিবিদ্ধ মিলন বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি

ধর্মকর্ম12 hours ago

অন্নপূর্ণাপুজো: উত্তর কলকাতার পালবাড়ি ও বালিগঞ্জের ঘোষবাড়িতে চলছে জোর প্রস্তুতি

রাজ্য13 hours ago

Bengal Corona Update: নমুনা পরীক্ষার সঙ্গেই তাল মিলিয়ে বাড়ল বাংলার দৈনিক করোনা সংক্রমণ

বিনোদন13 hours ago

ভার্চুয়ালি সাধ খেলেন ‘মম টু বি’ শ্রেয়া ঘোষাল, দেখুন মিষ্টি কিছু মুহূর্ত

রাজ্য2 days ago

Bengal Polls Live: সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৭৫ শতাংশের বেশি

ক্রিকেট2 days ago

IPL 2021: বলে ভেলকি হর্শল পটেলের, ব্যাটে জ্বলে উঠলেন ডেভিলিয়ার্স, বেঙ্গালুরুর কষ্টার্জিত জয়

দেশ2 days ago

Corona Update: রেকর্ড তৈরি করে দেড় লক্ষের দিকে এগিয়ে গেল দৈনিক সংক্রমণ, তবুও কম মৃত্যুহারে কিছুটা স্বস্তি

বিদেশ2 days ago

Coronavirus Infection: কোনো বস্তু থেকে করোনায় সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা ১০ হাজারে মাত্র ১, জানাল মার্কিন সিডিসি

রাজ্য2 days ago

Bengal Polls 2021: বাহিনীর গুলিতে হত ৪, শীতলকুচি যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

রাজ্য1 day ago

Bengal Polls 2021: কোচবিহারে ৩ দিনের জন্য রাজনীতিবিদদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করল নির্বাচন কমিশন

রাজ্য2 days ago

বিজেপি ‘গোপন’ অডিয়ো টেপ নিয়ে হইচই করলেও প্রশান্ত কিশোর অনড় নিজের মন্তব্যেই

প্রবন্ধ3 days ago

Bengal Polls 2021: কোচবিহার জেলার ন’টি বিধানসভা কেন্দ্রে লড়াইয়ে কে কোথায়

ভোটকাহন

কেনাকাটা

কেনাকাটা3 weeks ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা2 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা3 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা3 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা3 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা3 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে