নারায়ণগঞ্জ : বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে ২৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিল নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালত। বাকি ৯ জনকে ৭ থেকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের সরকারি নিরাপত্তারক্ষী বাহিনী র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‍্যাব)-এর একদল আধিকারিককে এই খুনের মামলায় দোষী সাব্যস্ত করল আদালত। সোমবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক সৈয়দ এনায়েত হোসেন এই রায় দেন। মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন নূর হোসেন, র‍্যাবের তিন কর্মকর্তা লেফটন্যান্ট কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, লেফটন্যান্ট কমান্ডার এম এম রানা ও মেজর আরিফ হোসেনও। সূত্রের খবর, এই ২৬ জনের মধ্যে ১৭ জনই বাংলাদেশের র‍্যাব-এর সদস্য। আদালত সূত্রের খবর মৃত্যুর সাজা প্রাপ্ত ২৬ জনের মধ্যে ৩ জন পলাতক। মোট অভিযুক্তের সংখ্যা ৩৫।

২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ শহরের কাছে খান সাহেব ওসমান আলি জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কাছ থেকে ২ নম্বর ওয়ার্ডের তৎকালীন কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম, আইনজীবী চন্দন সরকার, মনিরুজ্জমান স্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন, গাড়িচালক জাহাঙ্গির আলম ও মোহম্মদ ইব্রাহিমকে নিয়ে মোট সাত জনকে অপহরণ করা হয়। অপহরণের তিনদিন পর শীতলক্ষ্যা নদীতে ছয় জনের লাশ ভেসে ওঠে। পরের দিন পাওয়া যায় আরও একটি লাশ। এই ঘটনার পর কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম-সহ অন্য অনেকেই মামলা করেন।

রায় ঘোষণার এক দিন আগে, বাংলাদেশের আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, “দেশের মানুষ এই চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান। যাঁদের কাজ জনগণের জানমাল রক্ষা করা, তাঁরাই যদি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডে লিপ্ত হন, তা ক্ষমার অযোগ্য”।  

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here