ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণকাণ্ডে আসামির যাবজ্জীবন

0

ঋদি হক: ঢাকা

ভরা আদালতে ধর্ষকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ঘোষণা করলেন বিচারক। একই সঙ্গে তার ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক বেগম কামরুন্নাহার তাঁর রায় ঘোষণা করেন।

Loading videos...

এই রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি আফরোজা ফারহানা আহম্মেদ অরেঞ্জ ‘খবর অনলাইন’কে বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণকাণ্ডে একমাত্র আসামি মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশে রাষ্ট্রপক্ষ সন্তুষ্ট। তিনি আরও বলেন, মাত্র ১৩টি কর্মদিবসের মধ্যে মামলাটির বিচারের কার্যক্রম শেষ হল। ঘন ঘন তারিখ  ফেলে ২৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ২০ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এটি একটি রেকর্ড। বিপুল আলোচিত এই মামলার বিচারকার্য দ্রুত সম্পন্ন করতে সকলের সহযোগিতা পাওয়া গেছে।

তবে মজনুর আইনজীবী (সরকার থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত) রবিউল ইসলাম বলেন, “রায়ে আমরা ন্যায়বিচার পাইনি। রায়ের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে যাব।” বর্তমান হাসিনা সরকার ধর্ষণকাণ্ডে সর্বোচ্চ শাস্তি হিসাবে মৃত্যুদণ্ডের বিধান এনেছেন। আইনটি পাশ হওয়ার দু’ দিনের মাথায় টাঙ্গাইলে ৫ ধর্ষককে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।

ঘটনার বিবরণে প্রকাশ, চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাসে করে ফেরার পথে সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ রাজধানীর কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে নামলে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি ওই ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে সড়কের পেছনে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করে। নির্যাতনের এক পর্যায়ে জ্ঞান হারান তিনি।

রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফিরে নিজেকে নির্জন স্থানে  দেখতে পান। পরে সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে যান তিনি। রাত ১২টার দিকে তাকে হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করেন সহপাঠীরা। নির্যাতনের শিকার ছাত্রীটির ডাক্তারি পরীক্ষায় শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ক্ষতচিহ্ন পাওয়া যায়।

পর দিন সকালে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন ছাত্রীর বাবা। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি উত্তর)। ৮ জানুয়ারি মজনুকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ৯ জানুয়ারি সাত দিনের পুলিশ হেফাজতে রেখে মজনুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ১৬ জানুয়ারি ধর্ষণের দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেয় অভিযুক্ত।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্র বন্দর উত্তরপূর্ব ভারতের কাছে আশীর্বাদ, সুবিধা পাবে পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা-হলদিয়াও

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.