India-Bangladesh Relation: নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফরে তিনটি সমঝোতা-স্মারক সই হতে পারে

0

ঋদি হক: ঢাকা

বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং বাংলাদেশ-ভারত কূটনীতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উপলক্ষ্যে আয়োজিত বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী (Indian PM) নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। ২৬ মার্চ দু’ দিনের সফরে ঢাকায় পা রাখতে যাচ্ছেন মোদী। এ দিন ঢাকা-শিলিগুড়ি যাত্রীবাহী ট্রেনের শুভযাত্রারও সূচনা করবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী (Bengladesh PM) শেখ হাসিনা (Sheikh Hasina) ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফরে তিনটি সমঝোতা-স্মারক সই হওয়ার কথা রয়েছে। তিস্তা চুক্তি নিয়ে বাংলাদেশ এখনও আশাবাদী। বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী (Bangladesh Foreign Minister) ড. এ কে এম আবদুল মোমেন (Dr. A K M Abdul Momen) এ সব তথ্য জানান।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মধ্যে যে সব বিষয় আলোচনা হবে, সেগুলো মোটামুটি ঠিক হয়ে গিয়েছে। এগুলো যাতে বলবৎ থাকে এবং প্রয়োগে যাতে অসুবিধা না হয়, সে সব হয়তো ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরতে পারেন শেখ হাসিনা।

নরেন্দ্র মোদীর কর্মসূচি

কর্মসূচি অনুযায়ী সাতক্ষীরা যশোরেশ্বরী মন্দির পরিদর্শন এবং সেখান থেকে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যাবেন নরেন্দ্র মোদী।

২৭ মার্চ দুই প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় একান্ত বৈঠক বসবেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী। বৈঠকে দুই দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা হবে। সোমবার ঢাকার ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ সব তথ্য জানিয়েছেন ড. মোমেন।

করোনা নিয়ে সতর্কতা

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের (Sheikh Mujibur Rahman) জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে ১৭ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী জমজমাট অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে বাংলাদেশ সরকার। অনুষ্ঠান হবে পুরাতন বিমানবন্দর তথা জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে।

অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন ভারত, শ্রীলঙ্কা, মলদ্বীপ, ভুটান ও নেপালের রাষ্ট্রপ্রধান-সহ তাঁদের সফরসঙ্গীরা। আমন্ত্রিত অতিথিদের তদারকিতে যাঁরা থাকবেন তাঁদের কেউই যাতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত না হন সে জন্য সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হবে। এ কারণে দেশি-বিদেশি ভিভিআইপি, ভিআইপি অতিথি-সহ এই কাজে জড়িত প্রায় ২৫ হাজার মানুষের কোভিড-১৯ পরীক্ষা করার ব্যবস্থা থাকছে।

বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান ও তাদের সফরসঙ্গীরা যে আবাসিক হোটেলে অবস্থান করবেন, সেখান থেকে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। তা ছাড়া বিমানবন্দরে সিভিল অ্যাভিয়েশন, এয়ারলাইনস, কাস্টমস, ইমিগ্রেশন থেকে শুরু করে হোটেল, প্যারেড গ্রাউন্ড, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, দেশি-বিদেশি সাংস্কৃতিক কর্মী, ডাক্তার, নার্সদের নমুনা পরীক্ষা হবে। এমনকি সাভার স্মৃতিসৌধ, টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিস্থল ইত্যাদি যে সব স্থানে বিদেশি অতিথিরা যাবেন সেখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরও আগাম নমুনা পরীক্ষা করা হবে।

এ বিষয়ে এক বৈঠক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মুহিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে জড়িত দায়িত্বপ্রাপ্তদের বৈঠকে ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আগে কে, কোথায় কোন ল্যাবরেটরিতে করোনা নমুনা পরীক্ষা করবেন, কম-বেশি কত জনের করোনা পরীক্ষা করা যাবে ইত্যাদি নিয়ে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন