নয়াদিল্লি : বীরভূমে হনুমান জয়ন্তীর মিছিলে পুলিশের লাঠি চালনাকে কেন্দ্র করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে খুনের ফতোয়া জারি করলেন উত্তরপ্রদেশের এক বিজেপি যুবনেতা। আলিগড়ের ওই যুব নেতার নাম যোগেশ ভার্সনি। তিনি সংবাদসংস্থা এএনআই-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘যে মমতা বানার্জির মাথা কেটে এনে দিতে পারবে তাকে আমি ১১ লক্ষ টাকা দেব।’ এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে এক তৃণমূল কর্মী কালীঘাট থানায় এফআইআর দায়ের করেছেন।

যুব নেতার এই মন্তব্যের পরই ঝড় উঠছে দেশ জুড়ে। এই ইস্যুতে সংসদের উভয়কক্ষে তৃণমূল সাংসদরা রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন। যোগেশের দল বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বও তাঁর এই মন্তব্যের বিরোধিতা করেছে। সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চন বলেন, ‘‘আপনারা গোরক্ষায় ব্যস্ত, এ দিকে নারীদের প্রতি নৃশংস আচরণ অব্যাহত।’’ তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘‘যে এই ধরনের প্ররোচনামূলক মন্তব্য করছে তার বিরুদ্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’’  বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এই মন্তব্যের নিন্দা করলেও রাজ্য সরকারের সমালোচনা করতে ছাড়েননি। তিনি বলেন,‘‘মমতাজির তোষণের রাজনীতি নিয়ে ক্ষোভ আছে, কিন্তু তা বলে হিংসাকে সমর্থন করা যায় না।’’

অরুণ জেটলির সঙ্গে ‌যোগেশ (‌যোগেশের ফেসবুক পেজ থেকে নেওয়া ছবি)

তাঁর মন্তব্যকে ঘিরে বিতর্ক শুরু হতেই, ফেসবুকে যোগেশ জানিয়েছেন, এই মন্তব্য তাঁর নিজের, দলের প্ররোচনায় তিনি এই মন্তব্য করেননি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here