বৈদ্যুতিক গাড়ি নিয়ে সদিচ্ছা দেখিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ১৩টি রাজ্য, সংসদে জানাল কেন্দ্র

0
বৈদ্যুতিক বাস। প্রতীকী ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: বৈদ্যুতিক গাড়ি (EV) নীতির অনুমোদন অথবা বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে দেশের ১৩টি রাজ্যে। সোমবার সংসদের বাদল অধিবেশনে একটি লিখিত জবাবে এ কথা জানালেন কেন্দ্রের ভারী শিল্পমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী কিসান পাল গুর্জর।

অটোমোটিভ রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া (ARAI)-র তথ্য উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্নাটক, পশ্চিমবঙ্গের মতো ১৩টি রাজ্য সাধারণ মানুষকে বৈদ্যুতিক গাড়ি কেনায় উৎসাহিত করতে কার্যকরী অনুমোদন অথবা বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। বৈদ্যুতিক গাড়ির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল ব্যাটারি। অনুমান করা হয়, ব্যাটারির দাম এ ধরনের গাড়ির মূল্যের প্রায় ৩০-৪০ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, সাধারণ মানুষকে উৎসাহ জোগাতে যে ১৩টি ইতিমধ্যেই বৈদ্যুতিক গাড়ি সংক্রান্ত নীতি অনুমোদন অথবা বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে, সেগুলি হল অন্ধ্রপ্রদেশ, দিল্লি, কর্নাটক, কেরল, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, তেলঙ্গানা, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, মেঘালয়, গুজরাত এবং পশ্চিমবঙ্গ।

অন্য একটি প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘ন্যাশনাল ইলেকট্রিক মোবিলিটি মিশন প্ল্যান (NEMMP) ২০২০’, একটি জাতীয় মিশনের দলিল, যা বৈদ্যুতিক যানবাহনের দ্রুত চাহিদা তৈরি এবং এ ধরনের গাড়ির উৎপাদনের জন্য রোডম্যাপ তৈরি করে।

তাঁর কথায়, “এই পরিকল্পনাটি জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা বৃদ্ধি, সাশ্রয়ী মূল্যের এবং পরিবেশবান্ধব পরিবহণ সরবরাহ এবং ভারতীয় মোটরগাড়ি শিল্পকে বিশ্বজনীন উৎপাদনে নেতৃত্ব অর্জন করতে সক্ষম করার জন্য এই পরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছিল”।

প্রসঙ্গত, বৈদ্যুতিক বাস (Electric Bus) চলাচলে গোটা বিশ্বকেই পথ দেখাচ্ছে কলকাতা। ফ্রান্সের দি ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি বা আইইএ-র গ্লোবাল ইলেকট্রিক ভেহিক্যাল আউটলুকের (জিভো) একটি রিপোর্টে গত ২০২০ সালের জুন মাসেই তা প্রকাশ পেয়েছে।

খবর অনলাইন-এর অন্যান্য প্রতিবেদন পড়তে পারেন এখানে: khaboronline.com

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন