বেচে দেওয়ার আগে কর্মীদের স্বেচ্ছাবসর প্রক্রিয়া শুরু রাষ্ট্রায়ত্ত ভারত পেট্রোলিয়ামে

0

ওয়েবডেস্ক: বেসরকারিকরণের লক্ষ্যে সংস্থার কর্মীদের জন্য স্বেচ্ছাবসর (VRS) পক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ভারত পেট্রোলিয়াম লিমিটেড কর্পোরেশন (BPCL)। দেশের তৃতীয় বৃহত্তম জ্বালানি তেল পরিশোধনকারী এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম খুচরো জ্বালানি বিক্রেতা সংস্থাটিকে বেচে দেওয়ার সিদ্ধান্ত আগেই নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

বিপিসিএল একটি অভ্যন্তরীণ বিজ্ঞপ্তিতে নিজের কর্মীদের জানিয়েছে, “বিভিন্ন ব্যক্তিগত কারণে যে কর্মীরা সংস্থার চাকরি ছেড়ে দিতে চান, তাঁদের কথা বিবেচনা করেই কর্পোরেশন একটি স্বেচ্ছাবসর প্রকল্প চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ, যে কর্মীরা আগামী দিনে নিজের পদে কাজ করতে চাইছেন না, তাঁরা এই প্রকল্পে স্বেচ্ছাবসরের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন”।

প্রকল্পের খুঁটিনাটি

গত ২৩ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে আবেদন দাখিলের প্রক্রিয়া, যা চলবে আগামী ১৩ আগস্ট পর্যন্ত। এই প্রকল্পটির নাম দেওয়া হয়েছে, ভারত পেট্রোলিমায় ভলান্টারি রিটায়ারমেন্ট স্কিম-২০২০ অথবা বিপিভিআরএস-২০২০ (BPVRS-2020)।

এ ব্যাপারে সংস্থার এক ঊর্ধ্বতন আধিকারিক সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের কাছে বলেন, বেসরকারি পরিচালনমণ্ডলীর হাতে চলে যাওয়ার পর যে সমস্ত কর্মীরা আর সংস্থায় চাকরি করতে আগ্রহী নন, তাঁরা স্বেচ্ছাবসরের আবেদন জানাতে পারেন।

তাঁর কথায়, “কিছু কর্মী অবং আধিকারিক মনে করছেন, বেসরকারি হাতে চলে যাওয়ার পর সংস্থায় নিজের ভূমিকা, পদ এবং কর্মস্থলের পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। স্বাভাবিক ভাবেই তাঁদের জন্য এই প্রকল্পের অব্যাহতি নেওয়ার সুবিধা রয়েছে”।

জানা গিয়েছে, বিপিসিএলের ৫২.৯৮ শতাংশ অংশীদারিত্ব বিক্রি করে দিচ্ছে সরকার। এই সংস্থায় বর্তমানে কর্মীর সংখ্যা প্রায় ২০ হাজারের মতো। সংশ্লিষ্ট আধিকারিকরা ধারণা করছেন, এর মধ্যে ৫-১০ শতাংশ কর্মী স্বেচ্ছাবসর নিতে পারেন।

কারা স্বেচ্ছাবসরের জন্য আবেদন করতে পারবেন?

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ৪৫ বছরের ঊর্ধ্বে সমস্ত কর্মীই স্বেচ্ছাবসরের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন।

তবে যাঁরা স্পোর্টস কোটায় চাকরি পেয়েছেন ও বর্তমানে সক্রিয় রয়েছেন, তাঁরা এবং এগজিকিউটিভ পর্যায়ের আধিকারিকরা এর বাইরেই থাকবেন।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন