বাজেটের আগে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ মাল্টিপ্লেক্স কর্তৃপক্ষের, সঙ্গে সানি দেওল

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: কেন্দ্রীয় অর্থ ও কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রী নির্মলা সীতারমনের (Nirmala Sitharaman) সঙ্গে শুক্রবার সাক্ষাৎ করলেন দেশের শীর্ষ মাল্টিপ্লেক্স চেনের প্রতিনিধিরা।

কোভিড-১৯ মহামারি কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিয়েছে বিনোদন ব্যবসাকে। সারা দেশ জুড়ে কয়েক হাজার প্রেক্ষাগৃহ স্থায়ী ভাবে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল বেশ কয়েক মাসের জন্যে। এখন ধীরে ধীরে সেগুলি খুলতে শুরু করলেও করোনা ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে লড়াই চলছে। এরই মধ্যে কেপিএমজির একটি সাম্প্রতিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, ভারতে ফিল্ম ব্যবসা আগের বছরের তুলনায় ২০২১ অর্থবর্ষে ৬৭ শতাংশ সংকুচিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রতিনিধি দলে সানি দেওল

পিভিআর লিমিটেডের ( PVR Ltd) জয়েন্ট ম্যানেজিং ডিরেক্টর সঞ্জীবকুমার বিজলির নেতৃত্বে এবং পিভিআর পিকচার্সের চিফ এগজিকিউটিভ কমল জ্ঞানচন্দনি-সহ অভিনেতা ও বিজেপির সাংসদ সানি দেওল (Sunny Deol) এ দিন সাক্ষাৎ করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে। এমন পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের সহযোগিতায় কী করা প্রয়োজন, সে সব নিয়েই বিস্তারিত মত তুলে ধরেন প্রতিনিধিরা।

কর্তৃপক্ষের প্রস্তাব

সীতারমনের সঙ্গে সাক্ষাতের পাশাপাশি প্রতিনিধি দল দেখা করে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী প্রকাশ জাভাড়েকরের সঙ্গেও। মাল্টিপ্লেক্স কর্তৃপক্ষের তরফে এক আধিকারিক বলেন, “আমাদের প্রথম অনুরোধটি ছিল, দর্শকদের জন্য ৫০ শতাংশ আসনের সীমাবদ্ধতা শিথিল করা। তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেছেন, তিনি এই অনুরোধ বিবেচনা করবেন। তবে এখনই কথা দিতে পারছেন না”।

উল্লেখ্য, আগামী ২৯ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে সংসদের বাজেট অধিবেশন। ১ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১টায় বাজেট পেশ করবেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কোভিড-১৯ মহামারিতে বিধ্বস্ত চলচ্চিত্র-সহ বিনোদন জগতের কাছে এ বারের কেন্দ্রীয় বাজেট বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে চলেছে।

প্রেক্ষাগৃহের মালিকদের স্বস্তি দিতে বেশ কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হতে পারে বলে ধারণা করছে সংশ্লিষ্ট মহল। এমনিতে টিকিটের দামের উপর এসজিএসটি (SGST) মকুব, পুরনো প্রেক্ষাগৃহগুলি রক্ষায় জমির উপর ভরতুকি ছাড়াও একাধিক সরকারি প্রকল্প নিয়েও দাবি উঠেছে।

ফুড ডেলিভারিতে জিএসটি

ইতিমধ্যেই খাদ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে পণ্য ও পরিষেবা কর (GST) হ্রাসের দাবি তুলেছে রেস্তোঁরা ও ফুড ডেলিভারি (food delivery) সংস্থাগুলি। বর্তমানে এই করের হার ১৮ শতাংশ। তারা দাবি করেছে, এখন ৩০০ কোটি টাকার জোগান দিতে সেই করের হার পাঁচ শতাংশে নামিয়ে আনতে হবে।

লকডাউনের পর পুনরায় ব্যবসা চালু হওয়ার পরেও সব কিছু এখনও স্বাভাবিক হয়নি। বিস্তারিত পড়ুন এখানে ক্লিক করে: বাজেট ২০২১: ফুড ডেলিভারিতে জিএসটি কমানোর দাবি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন