মুম্বই: অভ্যন্তরীণ এবং ভূ-রাজনৈতিক কারণে অর্থনৈতিক মন্দার মুখোমুখি চিন। বিশেষজ্ঞদের মতে, এহেন পরিস্থিতিতে বিনিয়োগ আকর্ষণ করে একটি বিকল্প সোর্সিং হাব হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার সুযোগ রয়েছে ভারতের সামনে। তবে, এর জন্য দেশের উৎপাদন ক্ষেত্রকে আরও শক্তিশালী করতে তুলতে হবে।

সম্প্রতি বিভিন্ন সেক্টরে দুর্বলতা ধরা পড়ছে চিনে। শিল্প উৎপাদন এবং খুচরো বিক্রয় ক্ষেত্রের এই পরিসংখ্যান যথেষ্ট হতাশ করেছে। পাশাপাশি, করোনা সংক্রমণের কারণে ঘন ঘন লকডাউন-সহ বিভিন্ন কারণে চিনের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি সাড়ে তিন শতাংশের কাছাকাছি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ ছাড়াও তাইওয়ান নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চিনের ক্রমবর্ধমান উত্তেজনা ভূ-রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতায় পরিণত হতে পারে। যা বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির উৎপাদন এবং সরবরাহে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। এ ধরনের ঘটনাই ভারতের জন্য ইতিবাচক হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

উল্লেখ্য, গত জুনের পর চিনের আর্থিক বৃদ্ধির পূর্বাভাস আবারও কমিয়ে দিয়েছে আন্তর্জাতিক রেটিং সংস্থা মুডি’জ। সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, চিনের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হার সাড়ে ৩ শতাংশ হতে পারে বলে অনুমান। যা আগের পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল সাড়ে ৪ শতাংশ। চিনের এই মন্দা বিশ্ববাজারে ভারতের অংশীদারিত্ব বাড়ানোর সুযোগ করে দেবে বলেই অনুমান। এর ফলে সরকারের পিএলআই প্রকল্পে পণ্য রফতানি বাড়াতে সাহায্য করতে পারে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, চিনের উপর নির্ভরতা কমানোর চিন্তাভাবনা নিয়ে এগোচ্ছে বেশ কিছু দেশ। ক’দিন ধরেই ভারতীয় শেয়ার বাজারেও তার স্পষ্ট প্রভাব ধরা পড়ে। চিনের দুর্বল অর্থনৈতিক তথ্যকে সামনে রেখে ভারতীয় শেয়ার বাজারে এক ধাক্কায় বেড়েছে বিদেশি বিনিয়োগ।

আরও পড়তে পারেন:

কয়েক সেকেন্ডের টর্নেডোয় তছনছ সন্দেশখালি, ধূলিসাৎ কয়েকশো বাড়ি

প্যারাসিটামলের জন্য হাজার কোটি টাকা বিনামূল্যে দেওয়ার অভিযোগ অতিরঞ্জিত, দাবি সংস্থার

মা-বাবার চেয়ে কম মদ্যপান করছে তরুণ প্রজন্ম, অর্থনীতি চাঙ্গা করতে জাপানি কৌশল

বিলকিস বানো মামলা: দোষীদের মুক্তি দেওয়া ১০ সদস্যের কমিটির ৫ জনই বিজেপি-র!

কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে ‘ন্যায় ও শান্তিপূর্ণ’ সমাধান চায় পাকিস্তান, দাবি প্রধানমন্ত্রী শরীফের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন