খবর অনলাইন ডেস্ক: কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ এবং জাতীয় সড়ক মন্ত্রক (MoRTH) সম্প্রতি ১৯৮৯ সালের কেন্দ্রীয় মোটর ভেহিকল অ্যাক্টে বেশ কিছু পরিবর্তনের একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, তথ্যপ্রযুক্তি পরিষেবা এবং বৈদ্যুতিন পর্যবেক্ষণের ব্যবহার ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে আরও কার্যকর প্রয়োগ ঘটবে। একই সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি চালকদের হয়রানি লাঘব করে সাধরণ নাগরিককে সহায়তা করবে।

কাগজপত্রের হার্ডকপি যাচাইয়ের দরকার নেই

বৈদ্যুতিন পদ্ধতিতে পাওয়া বৈধ নথিগুলির হার্ডকপি চাওয়া হবে না। লাইসেন্স কর্তৃপক্ষ বিচারে অযোগ্য বা বাতিল হওয়া ড্রাইভিং লাইসেন্সের বিবরণ পোর্টালে রেকর্ড করা হবে এবং পর্যায়ক্রমিক ভাবে সেই তথ্য আপডেট করা হবে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যদি বৈদ্যুতিন উপায়েই নথিপত্রগুলির বৈধতা যাচাই করা যায়, তবে এই জাতীয় হার্ডকপি দেখানোর জন্য চাপ দেওয়া যাবে না। পরিস্থিতি যদি এমন হয় যে, কোনো ক্ষেত্রে এই জাতীয় কোনো নথি বাজেয়াপ্ত করার মতোও কোনো অপরাধ সংঘঠিত হয়েছে, সে ক্ষেত্রেও একই নিয়ম।

লাইসেন্স কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অযোগ্য বা বাতিল হওয়া ড্রাইভিং লাইসেন্সের বিশদ বিবরণ পর্যায়ক্রমিক ভাবে পোর্টালে রেকর্ড করা হবে। সরকার জানিয়েছে ,সমস্ত রেকর্ড বৈদ্যুতিন ভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে এবং এ ভাবেই চালকের আচরণ পর্যবেক্ষণ করা হবে।

কোথায় এবং কোন ট্রাফিক পুলিশ অথবা অন্য আধিকারিক নথি পরীক্ষা করেছেন কি না, তার তথ্যও পাওয়া যাবে পোর্টালে। কোন সময়ে পরীক্ষা করা হচ্ছে, তারও বিশদ উল্লেখ থাকবে। ফলে একই গাড়ির কাগজ বার বার পরীক্ষা করার দরকার পড়বে না।

ডিজি-লকার বা এম-পরিবহণের মতো কেন্দ্রীয় সরকারের অনলাইন পোর্টালে চালকরা তাঁদের যানবাহনের নথিগুলি তুলে রাখতে পারেন।

সে ক্ষেত্রে ড্রাইভিং লাইসেন্স, গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, ইন্সুরেন্স অথবা পলিউশন সার্টিফিকেটের মতো নথিগুলি আর চালকের সঙ্গে রাখতে হবে না।

গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার

নতুন আইনে বলা হয়েছে, চালকের মনোযোগ নষ্ট করতে পারে, এমন ভাবে মোবাইল ফোন বা অন্য কোনো হ্যান্ডসেট ব্যবহার করা যাবে না।

পথ চেনার জন্য চালক হ্যান্ডসেটে ম্যাপ অথবা আনুষঙ্গিক বিষয় দেখতে পারেন। তবে সেটাও নিরাপদ পদ্ধতি অনুসরম করে।

কবে থেকে কার্যকর?

১৯৮৯ সালের মোটর ভেহিকল অ্যাক্টের এই সংশোধনী আগামী ১ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে কেন্দ্র।

আরও পড়তে পারেন: পুরনো গাড়িতেও ফাসট্যাগ বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব কেন্দ্রের, কার্যকরী বিমার ক্ষেত্রেও

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন