‘উৎসবে বাজি পোড়ানো বন্ধ রাখতে বলার তারা কে’, ফের বিজ্ঞাপন তুলে নিতে হল তনিষ্ককে

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এক মাসও যায়নি, সোশ্যাল মিডিয়ায় বিরূপ প্রতিক্রিয়ার জেরে আবার বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিতে হল তনিষ্ককে (Tanishq)। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দেওয়া হয়েছে, একটি বিজ্ঞাপনকে কেন্দ্র করে এই অভিযোগ ওঠায় মাসখানেক আগে টাটা গোষ্ঠীর (Tata Group) এই জুয়েলারি ব্র্যান্ডকে (Jewellery brand) একটি বিজ্ঞাপন তুলে নিতে হয়েছিল। দেওয়ালির একটি বিজ্ঞাপনকে কেন্দ্র করে আবার সেই ঘটনা ঘটল। এ বারও সেই একই অভিযোগ, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত।

দেওয়ালির ওই বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেছিলেন নীনা গুপ্ত, নিমরত কৌর, সায়নী গুপ্ত এবং আলায়া এফ (আলায়া ফার্নিচারওয়ালা)।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই বিজ্ঞাপনটি প্রকাশ করা হয় গত বৃহস্পতিবার। বিজ্ঞাপন দেখা যাচ্ছে, সায়নী গুপ্ত বলছেন, “দীর্ঘদিন পর মায়ের সঙ্গে দেখা হবে, তবে অবশ্যই বাজি ফাটাব না। আমি মনে করি না, এ বার কারও বাজি জ্বালানো উচিত, তবে প্রচুর প্রদীপ তো জ্বালানোই যায়।”

এই কথাতেই ক্ষুব্ধ হয়েছে হিন্দুত্ববাদীরা। তার প্রতিফলন ঘটেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাদের বক্তব্য, তনিষ্ক কে যে তারা উৎসবে বাজি ফাটাতে বারণ করবে।

“কী করে আমাদের উৎসব পালন করব, সে ব্যাপারে কেউ হিন্দুদের পরামর্শ দেবে কেন? নিজেদের পণ্য কী ভাবে বেচবে, কোম্পানিগুলো সে ব্যাপারে নজর দিক। বাজি ফাটানো থেকে বিরত থাকার ব্যাপারে আমাদের জ্ঞান দেওয়ার দরকার নেই” – টুইট করে এই মন্তব্য করেছেন বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক সি টি রবি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এ বছর করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে দেশের বেশ কিছু রাজ্য এবং উচ্চ আদালত দেওয়ালিতে বাজি ফাটানো নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। গ্রিন ট্রাইবুনালও আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত গোটা দেশে আতশবাজি বিক্রি ও ফাটানো নিষিদ্ধ করে দিয়েছে।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, তনিষ্ক-এর ৫০ সেকেন্ডের ওই বিজ্ঞাপন টুইটার ও ইউটিউব থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। কোম্পানির ইনস্টাগ্রাম পেজে ওই বিজ্ঞাপন অবশ্য এখনও আছে। এই বিষয়ে কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোনো মন্তব্য করতে চায়নি।

খবরঅনলাইনে আরও পড়ুন

স্কলারশিপের টাকা নেই, ল্যাপটপ নেই, হোস্টেল নেই, হতাশায় আত্মহত্যা মেধাবী ছাত্রীর, প্রতিবাদ দিল্লিতে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন