Connect with us

শিল্প-বাণিজ্য

করোনা আবহে ভারত থেকে উধাও ১.২১ লক্ষ কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগ

Rupee and Dollar

ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস মহামারির জেরে তৈরি হওয়া অর্থনৈতিক মন্দার আশঙ্কায় এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলি থেকে প্রায় ২.২১ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগ প্রত্যাহার করেছে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা। একটি রিপোর্টে প্রকাশ, মধ্যে গত মাস দুয়েকের মধ্যে ভারত থেকেই তুলে নেওয়া হয়েছে প্রায় ১.২১ লক্ষ কোটি টাকা।

কোভিড-১৯-এর প্রভাবে বিশ্বঅর্থনীতিতে জোরালো ধাক্কা লেগেছে। এমন পরিস্থিতিতে কংগ্রেসনাল রিসার্চ সেন্টারের একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, “বিদেশি বিনিয়োগকারীরা এশিয়ায় অর্থনৈতিক মন্দার বৃদ্ধি আশঙ্কা করে প্রায় ২.২১ লক্ষ কোটি টাকা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এর মধ্যে ভারত থেকে প্রায় ১.২১ লক্ষ কোটি তুলে নিয়েছেন”।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ফলস্বরূপ বিশ্বের প্রায় সমস্ত বৃহৎ অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছে। তবে চিন, ভারত এবং ইন্দোনেশিয়ার মতো তিনটি দেশে এর প্রভাব সে ভাবে না পড়ার পক্ষেই সওয়াল করেছেন অর্থনীতিবিদরা। চলতি ২০২০ সালের অর্থনৈতিক বৃদ্ধিতে মহামারির প্রভাব পড়লেও তুলনামূলক ভাবে ইতিবাচক ইঙ্গিত রয়েছে বলে তাঁরা ধারণা করছেন।

আরও পড়ুন: কয়লা ব্লক নিলামে অনুমোদন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, কোল ইন্ডিয়ার একচেটিয়ার অবসান

সিআরএস দাবি করেছে, আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক তহবিল (আইএমএফ) নিজের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে বলেছে, সংক্রমণ প্রতিরোধে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং উৎপাদনে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। স্বাভাবিক ভাবে বেহাল অর্থনীতির হাল ফেরানোর কৌশলও দুর্বলতর হচ্ছে।

শিল্প-বাণিজ্য

বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম, দেখে নিন কোথায় কত?

আন্তর্জাতিক বাজারের ওঠানামার সঙ্গেই দেশের জ্বালানি তেল বিপণনকারী সংস্থাগুলি প্রতি মাসের ১ তারিখে সংশোধিত দাম প্রকাশ করে।

ওয়েবডেস্ক: টানা তিন মাস কমার পর ১ জুন থেকে ফের বাড়ল ভরতুকিহীন এলপিজি সিলিন্ডারের (LPG cylinder) দাম।

সোমবার ইন্ডিয়ান অয়েল (Indian Oil) কর্তৃপক্ষ একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, “চলতি জুন মাসের জন্য আন্তর্জাতিক বাজারে এলপিজির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবদ্ধির ফলে দেশে খুচরো বিক্রয় মূল্য ১১.৫০-৩৭ পর্যন্ত টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে”। তবে দেশের বিভিন্ন শহরে মূল্যবৃদ্ধির পরিমাণ ভিন্ন।

ভরতুকিহীন ১৪.২ কেজির সিলিন্ডারের দাম কোথায় কত বাড়ল?

শহর১ জুন থেকে দামবাড়ল
দিল্লি৫৯৩ টাকা১১.৫০ টাকা
কলকাতা৬১৬ টাকা৩১.৫০ টাকা
মুম্বই৫৯০.৫০ টাকা১১.৫০ টাকা
চেন্নাই৬০৬.৫০ টাকা৩৭ টাকা

অর্থাৎ, কলকাতায় গত মে মাসে যেখানে ১৪.২ কেজির ভরতুকিহীন সিলিন্ডারের দাম ছিল ৫৮৪.৫০ টাকা, এখন তা হল ৬১৬ টাকা।

একই সঙ্গে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, “এই বৃদ্ধি প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার (PMUY) সুবিধাভোগীদের উপর প্রভাব ফেলবে না”।

কারণ তাঁরা প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনার (PMGKY) আওতায় ৩০ জুন পর্যন্ত বিনামূল্যে একটি সিলিন্ডারের অধিকারী।

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক বাজারের ওঠানামার সঙ্গেই দেশের জ্বালানি তেল বিপণনকারী সংস্থাগুলি প্রতি মাসের ১ তারিখে সংশোধিত দাম প্রকাশ করে।

Continue Reading

শিল্প-বাণিজ্য

এ বার ঘরের দরজায় পৌঁছোবে পেট্রোল-সিএনজি, নতুন পরিকল্পনা কেন্দ্রের

ওয়েবডেস্ক: গ্রাহকদের আরও বেশি সুবিধা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রে পেট্রোল এবং সিএনজির হোম ডেলিভারির পরিকল্পনা নিয়েছে। এই পরিকল্পনা নিয়ে কেন্দ্র যে দ্রুত এগোচ্ছে, সে বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান (Dharmendra Pradhan)।

বছর দুয়েক আগেই ইন্ডিয়ান অয়েল ভ্রাম্যমান কেন্দ্রের মাধ্যমে ডিজেল বিক্রির উদ্যোগ শুরু করে। গত শুক্রবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ইঙ্গিত দেন, প্রথমে ডিজেলের (Diesel) হোম ডেলিভার শুরু করার পর পেট্রোল (Petrol) এবং সিএনজি (CNG)-র ক্ষেত্রেও একই রকমের পরিকল্পনা রয়েছে। করোনাভাইরাস লকডাউনে বিভিন্ন বিধিনিষেধের কারণে গাড়ি/বাইক মালিকরা পাম্পে গিয়ে জ্বালানি তেল কিনতে পারছেন না। ফলে তাঁদের সহায়তা দিতেই এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা হবে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মন্ত্রী বলেন, সরকার ডিজেলের মতোই পেট্রোল এবং সিএনজি-তে হোম ডেলিভারি পরিষেবা সম্প্রসারণ করতে আগ্রহী। ভবিষ্যতে সাধারণ মানুষ ঘরে বসেই পেট্রোল এবং সিএনজি কিনতে পারবেন।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, সরকার জ্বালানির খুচরো বিক্রির জন্য একটি নতুন মডেল তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে। একই জায়গায় যাতে পেট্রোল, ডিজেল, সিএনজি, এলএনজি এবং এলপিজি পাওয়া যায়, সে বিষয়েই পরিকল্পনা চলছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ইন্ডিয়ান অয়েল (Indian Oil) গত ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে থেকে ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কেন্দ্রে ডিজেলের খুচরো বিক্রি শুরু করেছে। কিন্তু পেট্রোল অথবা সিএনজির এ ধরনের খুচরো বিক্রিতে ঝুঁকি অনেকটাই বেশি। ফলে নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের ভিত্তিতেই এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা হবে।

Continue Reading

গাড়ি ও বাইক

গাড়ির ওয়্যারেন্টি এবং সার্ভিসের সময়সীমা বাড়াল মারুতি সুজুকি

Maruti

ওয়েবডেস্ক: দেশের বৃহত্তম গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থা মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া (Maruti Suzuki India) ওয়্যারেন্টি এবং সার্ভিস সময়সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করল। শনিবার সংস্থা জানায়, এই দু’টি ক্ষেত্রে সময়সীমা এক মাস বাড়ানো হয়েছে।

একটি বিবৃতিতে মারুতি বলে, বর্তমান পরিস্থিতির দিকে তাকিয়েই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গ্রাহককে স্বস্তি দিতে গাড়ির ওয়্যারেন্টি (Warranty) এবং সার্ভিসের সময়সীমা (Service timeline) আরও এক মাস বাড়িয়ে জুন মাসের শেষ পর্যন্ত করা হয়েছে। অর্থাৎ, যে সমস্ত গাড়ির উপর ওয়্যারেন্টি এবং সার্ভিসের সময়সীমা মে মাসে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে, সেগুলি পরের মাসের শেষ দিন পর্যন্ত বৈধ থাকবে।

বলা হয়েছে, লকডাউনের (Lockdown) কারণে যে সমস্ত ক্রেতা নিজেদের গাড়ির উল্লেখিত পরিষেবাগুলি গ্রহণ করতে পারেননি, তাঁদের জন্য সুযোগ বাড়ানো হয়েছে।

আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের সঙ্গে মারুতির জোট

লকডাউনে সংকটে পড়া খুচরো ক্রেতার জন্য একাধিক সুযোগ দিয়ে আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের (ICICI Bank) সঙ্গে জোট বাঁধল মারুতি সুজুকি।

মূলত ঋণ নিয়ে গাড়ি কেনার ক্ষেত্রে একাধিক সুযোগের কথা ঘোষণা করেছে মারুতি। ক্রেতার জন্য কিস্তি অর্থাৎ ইএমআইয়ের (EMI) ক্ষেত্রে নিয়ম বহুবিধ ভাবে নমনীয় করার কথা জানানো হয়েছে।

গাড়ি ঋণের (Car Loan) ক্ষেত্রে ক্রেতার জন্য তিন ধরনের ইএমআইয়ের কথা জানানো হয়েছে। ফ্লেক্সি ইএমআই, বেলুন ইএমআই এবং স্টেপ আপ ইএমআই প্রকল্প চালু করা হচ্ছে।

Continue Reading

ট্রেন্ড্রিং