কোভিড-১৯ মহামারী: রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে পুঁজি জোগাতে পারে কেন্দ্র

SBI
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস (Coronavirus) মহামারীর জেরে লকডাউনের কারণে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে দেশের ব্যাঙ্কিং ক্ষেত্রে। এমন পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির প্রতি উদারহস্ত হতে পারে কেন্দ্র।

একাধিক সরকারি আধিকারিক এবং বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে মূলধন জোগানোর পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্র। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে এক দিকে অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হার হ্রাস পাওয়া. অন্য দিকে ব্যাঙ্কগুলির অনাদায়ী ঋণের পরিমাণ বেড়ে যেতে পারে বলেই আশঙ্কা করছে সরকার।

সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে আর্থিক সহায়তা দিতে কমপক্ষে ২০-২৫ হাজার কোটি টাকার পুঁজির জোগান দেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। তবে পরিস্থিতি তেমন হলে এই পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলেই জানিয়েছে তারা।

“অনুৎপাদক সম্পদের (NPA) পরিমাণ একটি সমস্যা হিসাবে থেকে যেতে পারে এবং রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে মূলধন জোগানোর প্রয়োজন হতে পারে” বলে মন্তব্য করেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সরকারি আধিকারিক। পরিকল্পনাটি জনসমক্ষে না আসার কারণে সূত্রগুলি এ বিষয়ে বিশদ তথ্য প্রকাশ করতে চায়নি। একই ভাবে অর্থ মন্ত্রকের একজন মুখপাত্র এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি।

গত ফেব্রুয়ারিতে চলতি আর্থিক বছরের বাজেট অধিবেশনে ব্যাঙ্কগুলির জন্য কোনো তহবিল অথবা পুঁজি ঘোষণা করেনি কেন্দ্র। পরিবর্তে, ব্যাঙ্কগুলিকে তহবিলের জন্য ক্যাপিট্যাল মার্কেটের দিকে দৃষ্টি ফেরাতে বলেছে।

আরও পড়ুন: কোভিড-১৯ মহামারীর জেরে ‘দ্বৈত সংকট’-এ বিশ্ব, সতর্ক করলেন আইএমএফ প্রধান

তবে বর্তমান পরিস্থিতির মোকাবিলায় ব্যাঙ্কগুলির প্রতি আর্থিক সহায়তার বহর আরও বাড়তে পারে বলেই রয়টার্সের ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে সম্পদের ঝুঁকি বাড়লে ব্যাঙ্কগুলির লাভের প্রত্যাশা এবং অভ্যন্তরীণ মূলধন উৎপাদন অনেকটাই কমে যাবে। সেই জায়গায় মূলধনগত সরকারি সহায়তাই ব্যাঙ্কগুলিকে দিশা দেখাতে পারে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.