খবর অনলাইন ডেস্ক: সরকারি কর্মীদের লিভ ট্রাভেল কনসেসন বা এলটিসি ক্যাশ ভাউচার এবং বিশেষ উৎসবকালীন অগ্রিম প্রকল্পের (special festival advance schemes) ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)।

আসন্ন উৎসবের মরশুমের আগে ক্রেতার ব্যয় ক্ষমতা বাড়িয়ে বাজারে চাহিদা তৈরির লক্ষ্য নিয়েই এই ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানান কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। সরকারের আশা, এলটিসি ভাউচার প্রকল্প বাজারে ২৮ হাজার কোটি টাকার চাহিদা তৈরি করবে।

Loading videos...

কোভিড-১৯ মহামারির (Covid-19 pandemic) জেরে দেশের অর্থনৈতিক সমস্যা নিয়ে ভাষণ দেওয়ার সময় এই ঘোষণাগুলি করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রীর এমন একটি সময় এই ঘোষণা করলেন, যখন আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে চলতি আর্থিক বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকে জিডিপি ২৩.৯ শতাংশ পড়ে যাবে। তবে সম্প্রতি রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস আশাপ্রকাশ করেছেন, মুদ্রাস্ফীতিও ২০২০-২১-এর চতুর্থ ত্রৈমাসিকে কমে গিয়ে লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে চলে আসতে পারে। তাঁর মতে, চলতি আর্থিক বছরে জিডিপি ৯.৫ শতাংশ পড়তে পারে।

জানা গিয়েছে, এলটিসি নগদ ভাউচার (LTC cash voucher) স্কিমের আওতায় সরকারি কর্মচারীরা নগদ টাকা নেওয়ার পরিবর্তে বিকল্প পথ বেছে নিতে পারেন। সীতারমন ঘোষণা করেন, বিকল্প হিসেবে ১২ শতাংশ অথবা তার বেশি জিএসটি-যুক্ত পণ্য কিনতে পারবেন কর্মীরা। শুধুমাত্র জিএসটি-নিবন্ধিত আউটলেট থেকেই ডিজিটাল মোডে এই পণ্যগুলি কেনা যাবে।

প্রসঙ্গত, এলটিসি বিধি অনুসারে অধিকার প্রাপ্ত কর্মচারীদের ছুটি এবং টিকিটের মূল্য ফেরত দেওয়া হয় তাঁদের নিজের শহর এবং অন্যান্য জায়গায় ভ্রমণ করার জন্য। প্রতি চার বছর অন্তর এই নগদ মেটানো হয়।

আরও পড়তে পারেন: কেন্দ্র অনুমতি দিলেও ১৫ অক্টোবর থেকে স্কুল ‘আনলক’ করতে আগ্রহী নন অধিকাংশ রাজ্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.