নয়াদিল্লি: এ বার ক্রেডিট, ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে অনলাইনে পেমেন্ট করা অনেক বেশি নিরাপদ হতে চলেছে। ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে নতুন এই নিয়ম কার্যকর হবে।

নতুন এই নিয়মে আপনার কার্ডের বিবরণ আর আমাজন, ফ্লিপকার্টের মতো মার্চেন্ট সাইটে সংরক্ষণ করা হবে না। ফলে ডেটা চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ও থাকবে না। মার্চেন্ট এবং ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলি সাধারণত নিজের গ্রাহকদের কার্ডের বিস্তারিত বিবরণ সংরক্ষণ করতে বলে, যাতে কেনাকাটার জন্য পেমেন্ট দ্রুত করা যায়। কিন্তু এতে ডেটা চুরি হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। তবে পেমেন্ট করার সময় ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কার্ডের টোকেনাইজেশনের প্রযুক্তি অবলম্বন করে তা এড়ানো যেতে পারে।

টোকেনাইজেশন কী?

কার্ড ব্যবহারকারীর তথ্যের নিরাপত্তা বাড়ানোর অঙ্গ হিসেবে টোকেন ব্যবস্থার সুযোগ বিস্তৃত করেছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক (RBI)। এই ব্যবস্থায় কার্ড ইস্যুকারীকে টোকেন পরিষেবা (TSP) দেওয়ার অনুমতিও দেওয়া হয়েছে। টোকেন সিস্টেমের অধীনে, কার্ডের মাধ্যমে লেনদেনের সুবিধায় একটি বিশেষ বিকল্প কোড তৈরি করা হয়। একেই বলা হয় টোকেন। এই পদ্ধতিতে লেনদেনের জন্য কার্ডের বিবরণ দেওয়ার প্রয়োজন হয় না।

টোকেনাইজেশন হল কার্ডের বিবরণকে বিকল্প কোড দিয়ে প্রতিস্থাপন করার প্রক্রিয়া। প্রতিটি কার্ডে একটি করে ইউনিক ক্যারেক্টার কম্বিনেশন থাকবে। যা কার্ড পেমেন্টের ক্ষেত্রেও কোনও ডিটেলস জানাবে না। অর্থাৎ নতুন প্রযুক্তির ওই কার্ড দিয়ে পেমেন্ট করলে ব্য়ক্তিগত কোনো তথ্য় প্রকাশ পাবে না। এই সিস্টেমটি পয়েন্ট অফ সেল (PoS) টার্মিনাল এবং কিউআর কোডের মাধ্যমে পেমেন্ট করতেও ব্যবহৃত হয়।

ব্যবসায়ীরা এর আগে ক্রেতার কার্ডের বিবরণ সংরক্ষণ করতেন। এ ব্যাপারে আরবিআই-এর নির্দেশে বলা হয়েছে, কার্ড-অন-ফাইল (CoF) লেনদেনের টোকেনাইজেশন পদ্ধতির প্রসারের জন্য আগামী ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ক্রেতার কার্ডের বিবরণ আর সংরক্ষণ করা যাবে না।

‘কার্ড-অন-ফাইল’-এর মানে হল কার্ড সম্পর্কিত তথ্য থাকবে পেমেন্ট গেটওয়ে এবং ব্যবসায়ীদের কাছে। এর উপর ভিত্তি করেই তাঁরা ভবিষ্যতের লেনদেন করতে পারবেন।

আরবিআই একটি বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, “১ জানুয়ারি, ২০২২ থেকে, কার্ড প্রদানকারী এবং কার্ড নেটওয়ার্ক ব্যতীত কার্ড লেনদেন বা পেমেন্ট চেনে কোনো কার্ডের ডেটা সংরক্ষণ করতে হবে না। আগে থেকে সংরক্ষিত এই ধরনের যে কোনো তথ্য মুছে ফেলা হবে”।

আপনি কী ভাবে আপনার কার্ড টোকেনাইজ করবেন?

কার্ড ইস্য়ুকারী সংস্থা অনুরোধের ভিত্তিতে যে কোনো কার্ডকে টোকেনাইজ করাতে পারেন। তাঁদের বলা হয় টিএসপি। আরবিআই-এর তরফে জানানো হয়েছে, টিএসপি-রা টোকেনাইজ এবং ডি-টোকেনাইজ করতে পারবে।

এ ক্ষেত্রে আপনার কাছে যদি কার্ড থাকে এবং আপনি টোকেনাইজ করতে চান, তা হলে সংস্থআর অ্যাপে অনুরোধ জানাতে পারবেন টোকেন রিকোয়েস্টারের কাছে। টোকেন রিকোয়েস্টার কার্ড নেটওয়ার্কের কাছে রিকোয়েস্ট ফরওয়ার্ড করবে। এর পর কার্ড ইস্যুকারীর সম্মতিতে কার্ড, টোকেন রিকোয়েস্টার এবং ডিভাইসের সমন্বয়ে একটি টোকেন ইস্যু করবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের মতে, এই সিদ্ধান্তের ফলে কার্ডের বিবরণ নিরাপদ থাকবে এবং কার্ডের মাধ্যমে লেনদেনের সুবিধা আগের মতোই থাকবে। উল্লেখ্য, গত মাসে মোবাইল ফোন এবং ট্যাবলেট ছাড়াও ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, হাত ঘড়ি, ব্যান্ড এবং ইন্টারনেট অব থিংস (IOT) ভিত্তিক পণ্য ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত করেছে আরবিআই।

উল্লেখযোগ্য আরও কিছু খবর পড়তে পারেন  

তেজ কিছুটা কমলেও বৃষ্টি চলছেই, এখনও জলবন্দি অধিকাংশ কলকাতা

সংক্রমণ নেমে এল ২৬ হাজারের ঘরে, কেরলে বাইরে সাড়ে ১০ হাজার

‘দলকে শক্তিশালী করাই লক্ষ্য’, বিজেপির রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই বললেন সুকান্ত মজুমদার

উরিতে জঙ্গি অনুপ্রবেশের চেষ্টা, আটকাতে তৎপর ভারত ভারতীয় সেনা

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন