পোস্ট অফিসের মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা কী ভাবে পাবেন?

0

ওয়েবডেস্ক: ১৫ অক্টোবর থেকে ভারতীয় ডাক বিভাগ পোস্ট অফিসের সেভিং ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট গ্রাহকদের জন্য চালু করেছে মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা।

মোবাইল ব্যাঙ্কিং সুবিধার জন্য কী ভাবে আবেদন করবেন?

১. পোস্ট অফিসের সেভিংস অ্যাকাউন্টধারীরা কোনও সিবিএস-যুক্ত প্রধান / উপ পোস্ট অফিসে আবেদন করতে পারবেন। অর্থাৎ শাখা অফিসগুলিতে এই সুবিধার জন্য আবেদন করতে পারবেন না। সেভিংস অ্যাকাউন্টধারীকে পোস্ট অফিসের ফর্মটি যথাযথভাবে পূরণ করে (পোস্ট অফিসের সেভিংস ব্যাঙ্ক বা পিওএসবি, এটিএম কার্ড / ইন্টারনেট / মোবাইল / এসএমএস ব্যাঙ্কিং পরিষেবার আবেদনপত্র) জমা দিতে হবে।

২. উল্লিখিত অ্যাকাউন্টধারীদের কেওয়াইসি জমা করতে হবে। যদি আপনার কেওয়াইসি জমা না দেওয়া থাকে, তবে এই আবেদনপত্র জমা দেওয়ার সময় ওই কেওয়াইসি প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ করতে হবে।

৩. ফর্মটি শুধুমাত্র একটি সিবিএস পোস্ট অফিসে জমা দেওয়া যাবে, যেখানে সেভিংস ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

৪. মোবাইল ব্যাঙ্কিং সুবিধা গ্রহণের সময় মনে রাখবেন, প্রতিটি গ্রাহকের জন্য মোবাইল নম্বরটি অনন্য হওয়া উচিত এবং একই মোবাইল নম্বর অন্য কোনও সিআইএফ বা গ্রাহক আইডির জন্য ব্যবহার করা যাবে না।

৫. একবার কোনো অফিসে ফর্ম জমা দেওয়ার পরে আপনার মোবাইল ব্যাঙ্কিং সুবিধা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চালু হয়ে যাবে। আপনি গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘ইন্ডিয়া পোস্ট মোবাইল ব্যাঙ্কিং’ অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারেন।

৬. নিজের সিআইএফ আইডি হবে ব্যবহারকারীর আইডি এবং ইতিমধ্যে ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং সুবিধার জন্য সেট করা পাসওয়ার্ডটি দিয়েই মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পাওয়া যাবে।

৭. ভবিষ্যতে যদি আপনি নিজের মোবাইল ব্যাঙ্কিং সুবিধাটি বন্ধ করতে চান তবে আপনার পোস্ট অফিসের শাখায় গিয়ে এটি করা যেতে পারে। পরিষেবা বন্ধের আবেদন জমা করলে মোবাইল ব্যাঙ্কিং সুবিধা ২৪ ঘণ্টা পরে বন্ধ হয়ে যাবে।

[ আরও পড়ুন: মোবাইল ব্যাঙ্কিং সুবিধা পাওয়ার যোগ্যতাগুলি কী? ]

মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কিত যে কোনও অভিযোগের জন্য, কোনও গ্রাহক হয় টোল ফ্রি নম্বর ১৮০০-৪২৫-২৪৪০-তে কল করতে পারেন বা [email protected]এ একটি ইমেল পাঠাতে পারেন। গ্রাহক যদি কোনও সিবিএস পোস্ট অফিসে অভিযোগ করেন, তার পরেও অভিযোগটি উপরের ইমেল আইডিতে ফরোয়ার্ড করা যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here