ব্যক্তিগত ঋণ কোথায় পাবেন? দরকারি কিছু তথ্য দেখে নিন এখানে

0

জরুরি আর্থিক প্রয়োজনে নিঃসন্দেহে অন্যতম বিকল্প ব্যক্তিগত ঋণ বা পার্সোনাল লোন। গৃহঋণ বা গাড়ি ঋণের মতো এই ব্যক্তিগত ঋণ মোটেই ‘নিরাপদ’ নয়। এ ধরনের অনিরাপদ ঋণের (unsecured loan) জন্য আপনাকে কোনো জামানত বন্ধক (collateral) রাখতে হবে না।

1. কী কারণে এই ঋণ

জরুরিকালীন যে কোনো আর্থিক প্রয়োজনে ব্যক্তিগত ঋণ নেওয়া যেতে পারে। নিজের প্রয়োজন মতো যে কোনো কাজে এই ঋণ ব্যবহার করা যেতে পারে। যেমন, বিয়ের খরচ, বিদেশ ভ্রমণ বা অন্য যে কোন পরিস্থিতির জন্য এই ঋণ উপযোগী।

2. বিভিন্ন ধরনের স্কিম

প্রায় সব ব্যাঙ্কই ঋণের পরিমাণ, মেয়াদ, অতীতের ক্রেডিট স্কোর, ঋণের প্রকৃতি ইত্যাদি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন স্কিম অফার করে।

3. ঘরে বসে ঋণ

আগে পার্সোনাল লোনের আবেদনের সঙ্গে প্রচুর কাগজপত্রের দরকার হতো। এখন ঘরে বসে নেটব্যাঙ্কিং, ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইট বা এটিএম-এর মাধ্যমে ব্যক্তিগত ঋণ পাওয়ার সুবিধা রয়েছে।

4. কোথায় বেশি সুযোগ

সরকারি ব্যাঙ্কে ব্যক্তিগত ঋণ অনুমোদনের বিধান রয়েছে। তবে বেসরকারি ব্যাঙ্কের তুলনায় সেখানে পার্সোনাল লোন গ্রাহকের সংখ্যা অনেক কম। গোষ্ঠী ঋণ-সহ বেশ কিছু বিকল্প থাকলেও সেই সুবিধা সবার জন্য নয়।

5. সুদের হার

বেসরকারি ব্যাঙ্ক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যক্তিগত ঋণ পাওয়া অনেক সহজ। কিন্তু সেখানে সুদের হার অনেক বেশি। তাদের গড় সুদের হার ১৪-১৮ শতাংশ পর্যন্ত। তবে এই ধরনের পার্সোনাল লোনে প্রসেসিং ফি খুবই অল্প।

6. অনলাইনে ব্যক্তিগত ঋণ

এখন অনলাইনে ব্যক্তিগত ঋণ বাজারের উত্থান ঘটেছে। সেখানে এই ঋণ সহজেই পাওয়া যায়। কোনো ঝামেলা ছাড়াই অ্যাকাউন্টে ঋণের টাকা চলে আসে। তবে নেওয়ার সময় শর্তাবলি ভালো করে যাচাই করে না নিলে পরবর্তীতে জটিলতা বাড়তে পারে।

7. লোন অ্যাপ

কম সুদে ব্যক্তিগত ঋণ পাওয়ার বড়োসড়ো জাল বিস্তার করেছে ফোনের অ্যাপ। প্ল্যাটফর্মগুলি যাচাই করে নেওয়ার মতোও পথ সীমাবদ্ধ। এমনও দেখা গিয়েছে, ঋণের জন্য অ্যাপ ডাউনলোড করে সর্বস্বান্ত হতে হয়েছে গ্রাহককে।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল