ভোডাফোন ভারত ছাড়লে গ্রাহকদের কী হবে, জল্পনা তুঙ্গে

0
Vodafone Idea
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় টেলিকম ইন্ডাস্ট্রিতে এখন গুঞ্জনের কেন্দ্রবিন্দু ভোডাফোন। কয়েক দিন আগেই একটি সংবাদ সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, এ দেশের অন্যতম বৃহত্তম টেলিকম সংস্থা ভোডাফোন লোকসানের শিকার হয়ে ভারতের বাজার ছেড়ে দিতে পারে। তবে সত্যিই ভোডাফোন ভারতে ব্যবসা বন্ধ করে দিতে চলেছে কি না, সে বিষয়ে সংস্থা কোনো স্পষ্ট বার্তা দেয়নি। তবুও ভোডাফোন ভারত ছেড়ে চলে যাওয়ার পর এর গ্রাহকদের কী হবে, তা নিয়েই চলছে জোরালো জল্পনা।

যদি ভোডাফোন ভারত ছেড়ে চলে যায়, তা হলে সংস্থার গ্রাহকদের কি অন্য কোনো সংস্থায় স্থানান্তরিত করা হবে, না কি এত দিন যাঁরা সংস্থার পরিষেবাগুলি পেয়ে আসছেন, তাঁদের সম্পূর্ণ ভাবে নতুন পথ ধরতে হবে? এমনই সব প্রশ্ন ঘুরে বেড়াচ্ছে ইতিউতি। এ ক্ষেত্রে ভোডাফোনের সঙ্গে আইডিয়া যুক্ত থাকায়, প্রশ্নগুলি একেবারেই অমূলক নয় বলেও দাবি করা হচ্ছে।

যদিও ভোডাফোনের ভারত ছেড়ে চলে যাওয়ার ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত সংস্থার কাছ থেকে তেমন কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। কিন্তু সংবাদ সংস্থা আইএএনএস যখন জানায়, “প্যাক আপ এবং এখন যে কোনো দিন ভারত ছাড়তে প্রস্তুত ভোডাফোন”, তখন গ্রাহক মনে একটা আশঙ্কা তো ছড়ায়-ই!

চলতি বছরের শেষ ত্রৈমাসিকে ভোডাফোনের লোকসান হয়েছে ব্যাপক। সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, ভোডাফোন ইন্ডিয়ার সঙ্গে আদিত্য বিড়লা গ্রুপের আইডিয়া সেলুলরের সংযুক্তিকরণের ফলে প্রথম ত্রৈমাসিকে ৪,০৬৭.০১ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে, গত জুন ত্রৈমাসিকে। যা গত বছর ছিল ২,৭৫৭.৬০ কোটি টাকা। এক দিকে বিশাল পরিমাণ চলমান লোকসান অন্য দিকে বাজারের মূলধন হ্রাস ভোডাফোন আইডিয়ার ব্যালান্স শিটকে নেতিবাচক ভাবে প্রভাবিত করছে। যা সংস্থার তহবিল সংগ্রহের একাধিক সুযোগকে বাধাগ্রস্ত করছে। তার উপর সংস্থাটি প্রতি মাসে কয়েক লক্ষ গ্রাহককে হারাচ্ছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

অন্য দিকে ভোডাফোন এবং আইডিয়া সেলুলার জুড়ে যাওয়ার পরে সংস্থার শেয়ার বাজারের মূল্য ধারাবাহিকভাবে হ্রাস পেয়েছে। এরই মধ্যে ওয়াকিবহাল মহলের মত, ভোডাফোন আইডিয়ায় আর্থিক চাপ আরও খারাপ হতে পারে। কারণ সুপ্রিম কোর্টের তরফে প্রায় ২৮,৩০৯ কোটি টাকা পরিশোধের জন্য ভোডাফোনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: মাসে ‘৩৫’ বাধ্যতামূলক নয়! মাত্র ২০ টাকার প্ল্যান নিয়ে এল ভোডাভোন ]

তবে ভারতে ব্যবসা বন্ধ করা নিয়ে ভোডাফোন এখনও কোনো স্পষ্ট বার্তা না দিয়ে অর্থনীতির বিশ্লেষকরা বলছেন, পরিস্থিতি এমনই বর্তমান অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে তহবিল বিস্তৃত করা ছাড়া তেমন কোনো দরজা খোলা নেই সংস্থার সামনে। স্বাভাবিক ভাবেই আগামী দিনে ভোডাফোন সেই প্রক্রিয়ায় কতটা সফল হয়, সেটাই দেখার!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.