ফাসট্যাগ নেই? ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে গুনতে হবে দ্বিগুণ টোল চার্জ

0

নয়াদিল্লি: ১৫-১৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যরাত থেকেই ফাসট্যাগ (FASTag) নিয়ে নতুন নিয়ম কার্যকর করছে কেন্দ্রীয় সরকার। রবিবার পরিবহণমন্ত্রক জানিয়েছেন, জাতীয় সড়কের প্রতিটা টোল প্লাজাতেই নতুন নিয়ম কার্যকর হতে চলেছে।

১ জানুয়ারি নয়, ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে বাধ্যতামূলক করা হবে ফাসট্যাগ। করোনার আবহে গাড়ির মালিকদের কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়ে জানিয়েছিল কেন্দ্র। অর্থাৎ, গাড়িতে ফাসট্যাগ রেজিস্ট্রেশন করাতে আরও প্রায় দেড় মাস সময়সীমা বাড়ানো হয়েছিল। সেই সময়সীমা শেষ হওয়ার আগে পর্যন্ত যাঁরা গাড়িতে ফাসট্যাগ লাগাবেন না, তাঁদের দ্বিগুণ টোল চার্জ লাগবে।

Loading videos...

মন্ত্রকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে জাতীয় সড়কে ফি প্লাজার সমস্ত লেনকে ‘ফাসট্যাগ লেন’ হিসাবে ঘোষণা করা হবে”।

একই সঙ্গে ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, “২০০৮-এর জাতীয় সড়ক ফি রুলস অনুযায়ী, যদি কোনো গাড়িতে ফাসট্যাগ লাগানো না থাকে অথবা ফাসট্যাগটি বৈধ না হয়, তা হলে টোল প্লাজা দিয়ে যাওয়ার সময় সেটির কাছ থেকে দ্বিগুণ ফি নেওয়া হবে”।

কী ভাবে পাওয়া যায় ফাসট্যাগ

টোল প্লাজাগুলিতে সংস্থার প্রতিনিধিরাও উপস্থিত থাকবেন। তাঁরা ফাসট্যাগ লাগানোর প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করেন।

এ ছাড়া বিভিন্ন ব্যাঙ্কের তরফেও শিবির করে ফাসট্যাগ বিতরণ করা হচ্ছে। ব্যাঙ্কের শাখা এবং নিজস্ব ওয়েবসাইট থেকেও এই ফাসট্যাগ সংগ্রহ করা সম্ভব। এইচডিএফসি (HDFC), আইসিআইসিআই (ICICI), অ্যাক্সিস (Axis), এসবিআই (SBI), ব্যাঙ্ক অব বরোদা (Bank of Baroda), সিটি ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক (City Union Bank)-সহ অন্যান্য ব্যাঙ্ক থেকে এই সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।

ফাসট্যাগ সম্পর্কে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

একটি ফাসট্যাগের মেয়াদ পাঁচ বছর। কেনার সময় এককালীন খরচ ২০০ টাকা। এর পর প্রয়োজন মতো এটা রিচার্জ করা যায়। প্রতিটি চার চাকার গাড়ির জন্য ফাসট্যাগ বাধ্যতামূলক।

গাড়ির সামনের দিকে কাচে ফাসট্যাগ স্টিকারটি লাগাতে হয়। সাধারণত, গাড়ির ভিতর থেকে উইন্ডশিল্ডের উপরের দিকে মাঝখানে স্টিকারটি আটকাতে হয় (রিয়ার-ভিউ মিরর-এর ঠিক পিছনে)।

আরও পড়তে পারেন: ১০০ টাকার রিচার্জে পান ১২ জিবি ডেটা এবং ৯০ দিনের ফ্রি কলিং! জিও, এয়ারটেল, ভি এবং বিএসএনএলের সস্তার কিছু প্ল্যান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.