বিটকয়েন কেনা থাকলে সতর্ক হোন! জানুন সংসদে কী বললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী

0

বিটকয়েনকে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা ভাবছে না কেন্দ্র, সংসদে জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

নয়াদিল্লি: বিটকয়েনকে (Bitcoin) দেশে বৈধ মুদ্রা হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়ার কোনো প্রস্তাব নেই সরকারের। সংসদে বিটকয়েন সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে সোমবার এমনটাই জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)।

সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ন্ত্রণের জন্য ‘দ্য ক্রিপ্টোকারেন্সি অ্যান্ড রেগুলেশন অব অফিশিয়াল ডিজিটাল কারেন্সি বিল, ২০২১’ (The Cryptocurrency and Regulation of Official Digital Currency Bill 2021) পাশ করাতে চায় নরেন্দ্র মোদী সরকার। লোকসভায় একটি লিখিত জবাবে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী এ দিন বলেন, “সরকার বিটকয়েন লেনদেনের ডেটা সংগ্রহ করে না”।

বিটকয়েনকে দেশে মুদ্রা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার কোনো প্রস্তাব সরকারের কাছে আছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে সীতারমন বলেন, “না স্যার”।

নিষিদ্ধ নয়, নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগী কেন্দ্র

ব্লকচেনের অন্তর্গত ডিজিটাল মুদ্রা ক্রিপ্টোকারেন্সি। সাম্প্রতিক কালে হইহই করে ভারতের বাজারে ঢুকে পড়েছে এই ডিজিটাল মুদ্রা। কোনো রকম সরকারি বিধিনিষেধ না থাকায় বিজ্ঞাপনে আকাশছোঁয়া মুনাফার ঘনঘটা। বিশেষজ্ঞরা বার বার সতর্ক করছেন, এর ফাঁদে পা দিয়ে সর্বস্বান্ত হতে পারেন মানুষ। লোকসভার ওয়েবসাইট অনুযায়ী, ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ন্ত্রণের বিলটি কিছু ব্যতিক্রম বাদ দিয়ে ভারতে বাকি সমস্ত প্রাইভেট ক্রিপ্টোকারেন্সি নিষিদ্ধ করার জন্য আনা হবে। বর্তমানে, ক্রিপ্টোকারেন্সির উপর দেশে কোনো নিয়ন্ত্রণ বা নিষেধাজ্ঞা নেই।

গত কয়েক বছর ধরে ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে একটি গরম-ঠান্ডা মনোভাব নিয়ে চলেছে কেন্দ্র। ২০১৮ সালে, ক্রিপ্টো লেনদেন নিষিদ্ধ করেছিল ভারত। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট ২০২০ সালের মার্চ মাসে সেই নিষেধাজ্ঞাটি বাতিল করে দেয়।

সম্প্রতি জানা যায়, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার (RBI) মাধ্যমে জারি করা অফিসিয়াল ডিজিটাল মুদ্রার জন্য একটি কাঠামো তৈরি করতে চাইছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই প্রাইভেট ক্রিপ্টোকারেন্সি সম্পর্কে “গুরুতর উদ্বেগ” প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে ডিসেম্বরের মধ্যে নিজস্ব ডিজিট্যাল মুদ্রা চালু করার প্রস্তুতিও চলছে জোরকদমে।

সবচেয়ে বেশি ক্রিপ্টো মালিক ভারতে!

সাম্প্রতিক একটি রিপোর্ট বলছে, দুনিয়ার মধ্যে সব থেকে বেশি ক্রিপ্টো মালিক রয়েছেন এ দেশেই। BrokerChooser-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, সারা বিশ্বের মধ্যে ভারতে সবচেয়ে বেশি ক্রিপ্টো মালিক রয়েছেন। দেশে ক্রিপ্টো মালিকদের সংখ্যা ১০.০৭ কোটি, যা বিশ্বে সর্বোচ্চ। এই তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সেখানে ক্রিপ্টো মালিকের সংখ্যা ১.৭৪ কোটি। এর পরেই রয়েছে রাশিয়া (১.৭৪ কোটি) এবং চতুর্থ স্থানে নাইজেরিয়া (১.৩০ কোটি)।

অন্য দিকে, জনসংখ্যার নিরিখে ভারতের মোট জনসংখ্যার ৭.৩০ শতাংশ এখন ক্রিপ্টো মালিক। জনসংখ্যার ভিত্তিতে ভারতের অবস্থান পঞ্চম স্থানে। ইউক্রেনের ১২.৭৩ শতাংশ মানুষ ক্রিপ্টোয় বিনিয়োগ করেন। তার পরে রয়েছে যথাক্রমে রাশিয়া (১১.৯১ শতাংশ), কেনিয়া (৮.৫২ শতাংশ) এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (৮.৩১ শতাংশ)।

কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে চিন

ক্রিপ্টোকারেন্সি মাইনিংয়ে (Cryptocurrency Mining) বিনিয়োগ আটকাতে বড়োসড়ো পদক্ষেপ নিয়েছে চিন। যে সব ক্ষেত্রগুলিতে বিনিয়োগ নিষিদ্ধ বা অবৈধ, সেগুলোর একটা খসড়া তালিকা প্রকাশ করেছে গত অক্টোবরে। ওই খসড়া তালিকায় রয়েছে ক্রিপ্টোকারেন্সি মাইনিং-ও।

চলতি বছরের শুরুর দিকেই ক্রিপ্টোকারেন্সি ট্রেডিং এবং মাইনিং নিষিদ্ধ করে চিনের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। সে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক গত মাসে “অবৈধ” ক্রিপ্টোকারেন্সি লেনদেন নির্মূল করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। চিনের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক পিপলস ব্যাঙ্ক অব চায়না (PBOC) একটি নোটিশে বলেছে, বিটকয়েন, ইথেরিয়াম এবং অন্যান্য ডিজিট্যাল মুদ্রা আর্থিক ব্যবস্থাকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। এগুলো অর্থপাচার এবং অন্যান্য অপরাধের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে।

পিবিসি জানিয়েছে, ভার্চুয়াল মুদ্রার কোনো আইনি স্বীকৃতি নেই। বিটকয়েন এবং অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সি যেমন ইথেরিয়াম এবং টিথারে কর্তৃপক্ষেক কোনো অনুমোদন নেই। তাই তাদের কোনো আইনি অধিকারও নেই। সমস্ত অবৈধ আর্থিক কার্যকলাপ কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ এবং আইন অনুযায়ী বন্ধ করা হবে বলেও কঠোর ভাবে জানিয়ে দিয়েছে পিবিসি।

আরও পড়তে পারেন

বাদল অধিবেশনের শেষ দিনে ‘দুর্ব্যবহার,’ গোটা শীতকালীন অধিবেশন থেকে সাসপেন্ড ১২ বিরোধী সাংসদ

কলকাতা পুরভোট ২০২১: প্রার্থীতালিকা প্রকাশ করল বিজেপি

আলোচনা ছাড়াই ধ্বনিভোটে লোকসভায় পাশ হয়ে গেল কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল

ওমিক্রন নিয়ে কার্যত কোনো তথ্যই নেই হু-এর কাছে, তবুও আগ বাড়িয়ে আতংক!

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতের চারটি অঞ্চলে মিলল না কোনো কোভিড-আক্রান্তের হদিশ, কুড়িটি অঞ্চলে নেই কোনো মৃত্যু

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন