মাসে ১০ হাজার টাকার পেনশন প্রকল্পে শেষ সুযোগ

0
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: বছর দুয়েক আগে প্রবীণ নাগরিকদের পেনশনের মতো অবসরকালীন আর্থিক সুরক্ষা দিতে নতুন একটি প্রকল্প ‘প্রধানমন্ত্রী বয়োঃবন্দনা যোজনা’ শুরু করে কেন্দ্র। ওই পলিসিটি আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত পাওয়া যাবে।

এই তাৎক্ষণিক বার্ষিকী এলআইসি পেনশন স্কিম অবসর গ্রহণের পরে প্রবীণ নাগরিকদের একটি স্থির আয় প্রদান করতে পারে। ৬০ বছরের বেশি বয়সের নাগরিকরা এই প্রকল্পটিতে বিনিয়োগ করতে পারেন, যা ১০ বছরের জন্য ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত গ্যারান্টিযুক্ত মাসিক আয় দেয়। এ ছাড়াও এটি পেনশনারের মনোনীত (নমিনি)-কে এই প্রকল্পের ক্রয়মূল্য ফেরতের আকারে একটি ‘ডেথ বেনিফিট’ সরবরাহ করে।

বর্তমানে, সরকার এই স্কিমটি ব্যবহারের জন্য শেষ তারিখ হিসাবে ৩১ মার্চ, ২০২০ নির্ধারণ করেছে। সুতরাং, আপনি যদি প্রবীণ নাগরিক হন এবং আপনার অ্যাকাউন্টে একক পরিমাণ অর্থ থাকে তবে আপনি এই তাৎক্ষণিক বার্ষিকী প্রকল্পটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কেনার বিষয়ে বিবেচনা করতে পারেন।

এক নজরে যোগ্যতাবলি:

১. বয়স ন্যূনতম ৬০ বছর।

২. সর্বাধিক বয়সের কোনো সীমা নেই।

৩. পলিসির মেয়াদ: ১০ বছর।

৪. ন্যূনতম পেনশন: মাসে ১ হাজার টাকা।

৫. সর্বোচ্চ পেনশন: মাসে ১০ হাজার টাকা।

কী ভাবে কোথায় পাওয়া যাবে প্রকল্প?

আপনি লাইফ ইন্সুরেন্স কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া (এলআইসি) থেকে এই প্রকল্প কিনতে পারেন। অফলাইন এবং অনলাইন, দুই ভাবেই কেনা যাবে। অফলাইনে কিনতে হলে কাছের কোনো এলআইসি শাখায় যোগাযোগ করতে হবে। অন্য দিকে অনলাইনে কিনতে হলে www.licindia.in ওয়েবসাইটে-এ যেতে হবে।

পেনশন প্রদানের পদ্ধতি

এলআইসির ওয়েবসাইট থেকে

মাসিক, ত্রৈমাসিক, অর্ধবার্ষিক এবং বার্ষিক ভিত্তিতে পেনশন দেওয়া হয়। এনইএফটি বা আধার পরিচালিত পেমেন্ট পদ্ধতিতে পেনশন দেওয়া হয়।

অন্যান্য সুবিধা

১. ম্যাচিউরিটি বেনিফিট: পেনশনার যদি পলিসির মেয়াদ ১০ বছরের শেষ অবধি জীবিত থাকেন, তবে চূড়ান্ত পেনশনের কিস্তির সঙ্গে সঙ্গে বার্ষিকীর ক্রয় মূল্য পলিসিধারকে প্রদান করা হবে।

২. ডেথ বেনিফিট: যদি পলিসির ১০ বছরের মধ্যে পেনশনারের মৃত্যু হয় তা হলে তাঁর মনোনীতকে পলিসি ক্রয়ের টাকা ফেরত দেওয়া হবে।

৩.ঋণের সুযোগ: পলিসির মেয়াদ তিন বছর হলে পলিসিধারক ঋণ নিতে পারেন।বার্ষিকী ক্রয় মূল্যের ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ হিসাবে নেওয়া যাবে।

আরও বিশদ তথ্য জানতে এলআইসি-র সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.