আরবিআই রেপো রেট বাড়াতেই দোটানায় শেয়ার বাজার, তবে দিনের শেষে কাটল উৎকণ্ঠা

তিন মাসে তিন বার রেপো রেট বাড়াল আরবিআই। যা নিয়ে শেয়ার বাজারে দেখা দেয় সংশয়। তবে দিনের শেষে সামান্য হলেও খুশির হাওয়া বয়ে আনল এই সিদ্ধান্ত।

0
Stock Market

কলকাতা: শুক্রবার বৈঠক শেষে মূল সুদের হার বা রেপো রেট ০.৫০ শতাংশ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের (RBI) মুদ্রানীতি কমিটি (MPC)। এর ফলে নতুন রেপো রেট বেড়ে হচ্ছে ৫.৪০ শতাংশ। যা নিয়ে শেয়ার বাজারে দেখা দেয় সংশয়। তবে দিনের শেষে সামান্য হলেও খুশির হাওয়া বয়ে আনল এই সিদ্ধান্ত।

করোনা পরবর্তী সময়ে গত তিন মাসে এই নিয়ে তিনবার বাড়ানো হল রেপো রেট। ফলে আপাত সংশয়ে থাকা শেয়ার বাজারের বিনিয়োগকারীরা পিছু হঠার প্রবণতাও দেখান সাময়িক ভাবে। কিন্তু পরক্ষণেই বদলে যায় ছবি।

৪০৫ পয়েন্টের ওঠা-নামা সেনসেক্সে

শুক্রবার সপ্তাহের শেষ কেনাবেচার দিনে ভারতীয় শেয়ার বাজারের অন্যতম সূচক যাত্রা শুরু করে ৫৮ হাজার ৪২১ পয়েন্টে। যা আগের দিন বন্ধ হয়েছিল ৫৮ হাজার ২৯৮-এ। কিন্তু আরবিআই-এর সিদ্ধান্ত নিয়ে দোটানা দেখা দিতেই ৫৮ হাজার ২৪৪ পয়েন্টের আচমকা খাদে নেমে যায় সূচক। পরক্ষণেই উত্তরণ। আগের দিনের থেকে ৮৯ পয়েন্ট উপরে উঠে ৫৮ হাজার ৩৮৭-তে থিতু হয় সেনসেক্স। যা আগামী সোমবারের জন্য ইতিবাচক ইঙ্গিত দিয়ে রাখল বলেই ধারণা বিশ্লেষকদের।

সামগ্রিক ভাবে, এস অ্যান্ড পি বিএসই সেনসেক্স সারা দিনে ৪০৫ পয়েন্টের ওঠানামায় দুলেছে। অন্য দিকে নিফটি ১৬ পয়েন্ট বা ০.০৯ শতাংশ বেড়ে ১৭,৩৯৭ স্তরে বন্ধ হয়েছে।

সবচেয়ে বেশি লোকসানের মুখে

এ দিন ১ হাজার ৮০৭টি সংস্থার স্টকে লাভ হলেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১ হাজার ৪৬৬টি। ১৪৪টি একই জায়গায় দাঁড়িয়ে। সবচেয়ে বেশি লোকসানের মুখ দেখেছে আল্ট্রাটেক সিমেন্ট, আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক এবং ভারতী এয়ারটেল শীর্ষ লাভকারী এবং মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা, রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ এবং মারুতি সুজুকিকে।

সেক্টরগুলির মধ্যে, পাওয়ার, মিডিয়া এবং অটো সূচকের প্রতিটিই হ্রাস পেয়েছে। তবে লোকসানের বহর হয়তো আরও প্রসারিত হতে পারত। কিন্তু এ দিন মিশ্র সংকেতের মধ্যে প্রায় অপরিবর্তিত ভাবে শেষ হয়েছে কেনাবেচা।

কেন এই দোদুল্যমানতা?

এ দিন আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাস রেপো রেট বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেন। এর আগে রেপো রেট ছিল ৪.৯০ শতাংশ। এ বার তা একধাক্কায় ৫০ বেসিস পয়েট বেড়েছে। রেপো রেট বৃদ্ধি ফলে পাবলিক ও প্রাইভেট ব্যাঙ্কগুলিতে লোনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। ফলে বাড়ি, গাড়ি সব ঋণেই সুদের পরিমাণ বাড়বে অনেকটাই। বাড়বে ইএমআইও। ফলে ফের মধ্যবিত্তের ওপর বাড়তি খরচও বাড়বে অনেকটাই।

মুদ্রানীতি কমিটির সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরই দুলতে শুরু করে শেয়ার বাজার। দেখা দেয় অস্থিরতা। এমনিতে সামনে কোনো বড়ো ইভেন্ট নেই। মূলত বিশ্ববাজারের পরিস্থিতির দিকে তাকিয়ে ঘরোয়া বাজার। সঙ্গে রয়েছে সংশোধনের প্রবণতা। বিশ্লেষকদের মতে, সমস্ত সেক্টরের শেয়ার কেনাবেচায় অস্থিরতা রয়েছে। ফলে স্টক নির্বাচনের ক্ষেত্রে তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নিয়ে ঝুঁকির মুখে না পড়াই ভালো।

আরও পড়তে পারেন:

টাকা উদ্ধারের তদন্তে সিবিআই? ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়কের আবেদন গৃহীত হল ডিভিশন বেঞ্চে

পরবর্তী প্রধান বিচারপতি হচ্ছেন উদয় উমেশ ললিত! জানুন তাঁর দেওয়া ৩টি তাৎপর্যপূর্ণ রায়

তাইল্যান্ডের নাইটক্লাবে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নাচতে নাচতেই ঝলসে মৃত ১৩

এনআইএর হাতে গ্রেফতার দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গী ছোটা সাকিলের আত্মীয়

সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে বদলি হলেন তামিলনাড়ুর পাঁচ পুলিশকর্মী

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন