“ফিরে পেয়ে খুব আনন্দ হচ্ছে”, এয়ার ইন্ডিয়া হাতে নেওয়ার পর টাটা গোষ্ঠীর প্রতিক্রিয়া

0
Tata Sons chairman meets PM
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাৎ টাটা সনস্‌-এর চেয়ারম্যানের। ছবি PMOIndia Twitter থেকে নেওয়া।

নয়াদিল্লি: বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে এয়ার ইন্ডিয়ার দায়িত্ব নিল টাটা গোষ্ঠী।

দায়িত্ব নেওয়ার পর টাটা সনস্‌-এর চেয়ারম্যান এন চন্দ্রশেখরন বলেছেন, “টাটা গোষ্ঠীতে এয়ার ইন্ডিয়াকে ফিরে পাওয়ায় আমরা খুবই আনন্দিত। আমরা একে বিশ্ব মানের বিমান সংস্থা হিসাবে গড়ে তুলতে বদ্ধপরিকর। সরকারি ভাবে হস্তান্তরের আগে চন্দ্রশেখরন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করেন।

এই দায়িত্বভার হস্তান্তর প্রসঙ্গে বিলগ্নিকরণ ও সরকারি সম্পদ পরিচালন বিভাগের (ডিপার্টমেন্ট অব ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড পাবলিক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট, ডিআইপিএএম, DIPAM) সচিব তুহিন কান্তি পাণ্ডে বলেন, “পরিচালন নিয়ন্ত্রণ-সহ এয়ার ইন্ডিয়ার ১০০ শতাংশ শেয়ার মেসার্স ট্যালেস প্রাইভেট লিমিটেডকে হস্তান্তর করার সঙ্গে সঙ্গে এয়ার ইন্ডিয়ার কৌশলগত বিলগ্নিকরণ প্রক্রিয়া আজ সমাপ্ত হল। স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারের নেতৃত্বাধীন নতুন বোর্ড এয়ার ইন্ডিয়ার দায়িত্ব নিল।”

এয়ার ইন্ডিয়ার বিলগ্নিকরণ নিলামে ১৮,০০০ কোটি টাকার সর্বোচ্চ দর হেঁকেছিল টাটা গোষ্ঠী। গত অক্টোবরেই টাটা গোষ্ঠীর হোল্ডিং কোম্পানির অধীনস্থ সংস্থা ট্যালেস প্রাইভেট লিমিটেডকে কেন্দ্রীয় সরকার এয়ার ইন্ডিয়া বিক্রি করে দেয়।

এর পর টাটা গোষ্ঠীকে একটি ইচ্ছাপত্র (লেটার অব ইন্টেন্ট, LoI) সরকার। তাতে বিমান সংস্থার ১০০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করার ইচ্ছা প্রকাশ করা হয় সরকারের তরফে। এর পরে কেন্দ্র শেয়ার ক্রয় চুক্তিতে (শেয়ার পারচেজ এগ্রিমেন্ট, এসপিএ, SPA) সই করে।

চুক্তি অনুযায়ী টাটা গোষ্ঠীর হাতে এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেস এবং এয়ার ইন্ডিয়ার হ্যান্ডলিং এজেন্ট এয়ার ইন্ডিয়া স্যাটস-এর (Air India SATS) ৫০ শতাংশ শেয়ার তুলে দেওয়া হবে।

এই হস্তান্তর কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য  

এয়ার ইন্ডিয়ার ১০০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করার জন্য সরকার নির্ধারিত দর ছিল ১২,৯০৬ কোটি টাকা। স্পাইস জেটের কর্ণধার অজয় সিং-এর নেতৃত্বাধীন একটি কনসোর্টিয়াম ১৫,১০০ কোটি টাকা দর দিয়েছিল নিলামে। টাটার দর একেও ছাপিয়ে যায়।

২০০৩-০৪ সালের পর এই প্রথম কোনো সরকারি সংস্থার বেসরকারিকরণ হল। আর এয়ার ইন্ডিয়াকে ধরে টাটা গোষ্ঠীর হাতে তিনটি বিমান সংস্থা এল। এয়ার এশিয়া ইন্ডিয়া এবং সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স লিমিটেডের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে গঠিত ভিস্তারার সংখ্যাগরিষ্ঠ শেয়ার টাটা গোষ্ঠীর হাতে।

তবে এয়ার ইন্ডিয়ার বসন্ত বিহার হাউসিং কলোনি, মুম্বইয়ের নরিম্যান পয়েন্টে এয়ার ইন্ডিয়া ভবন এবং নয়াদিল্লিতে এয়ার ইন্ডিয়া ভবন টাটা গোষ্ঠীর হাতে যাচ্ছে না।

এই মুহূর্তে, দেশের বিমানবন্দরগুলিতে এয়ার ইন্ডিয়া অভ্যন্তরীণ উড়ানের জন্য ৪৪০০ এবং আন্তর্জাতিক উড়ানের জন্য ১৮০০ ল্যান্ডিং ও পার্কিং স্লট নিয়ন্ত্রণ করে। বিদেশের তাদের হাতে এ ধরনের ৯৯০টি স্লট আছে।

এয়ার ইন্ডিয়ার যে ১৪১টি বিমান টাটা গোষ্ঠী পাবে তার মধ্যে ৯৯টি তাদের মালিকানাধীন এবং বাকি ৪২টি লিজে পাওয়া।

গত এক দশক ধরে ক্ষতিতে চলা এয়ার ইন্ডিয়াকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য ১.১০ লক্ষ কোটি টাকা নগদ সাহায্য এবং ঋণ গ্যারান্টি হিসাবে দেওয়া হয়েছে।

টাটা গোষ্ঠী ১৯৩২ সালে টাটা এয়ারলাইন্স-এর সূচনা করেন। ১৯৪৬ সালে তার নাম হয় এয়ার ইন্ডিয়া। ১৯৫৩ সালে সরকার এর নিয়ন্ত্রণভার নিজেদের হাতে নেয়। তবে জেআরডি টাটা ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত এর চেয়ারম্যান ছিলেন। এই হস্তান্তরের অর্থ হল ৬৯ বছর পর এয়ার ইন্ডিয়া ফিরে এল ঘরে, টাটাদের কাছে।

আরও পড়তে পারেন

শুধু ২৮ নয়, আসছে ৩০ দিনের রিচার্জ প্ল্যান, টেলিকম সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দিল ট্রাই

কোভিডবিধির মেয়াদ বাড়াল কেন্দ্র, বিস্তারিত দেখুন এখানে

এক ধাক্কায় আরটি-পিসিআর টেস্টের খরচ অনেকটাই কমাল রাজ্য

পশ্চিমবঙ্গে দৈনিক সংক্রমণ ৪ হাজারের নীচে, আরও ১১ হাজার সক্রিয় রোগীর পতন

কমছে সংক্রমণ, বিধিনিষেধ অনেকটাই শিথিল করল দিল্লি

অরুণাচলপ্রদেশ থেকে ‘নিখোঁজ’ ভারতীয় কিশোরকে ফেরাল চিন

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন